“একদিন আমরাও বয়স্ক হব, একটি সাহায্যের হাত আমাদেরও প্রয়োজন হবে, “দুয়ারে দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচীর প্রচারে এবার মিমি

১লা ডিসেম্বর থেকে রাজ্য সরকারের তরফে শুরু হয়েছে “দুয়ারে দুয়ারে সরকার” কর্মসূচী৷ এই কর্মসূচীর প্রচারেই গতকাল দক্ষিণ কলকাতার পাটুলীতে হাজির হয়েছিলেন যাদবপুরের সাংসদ মিমি চক্রবর্তী৷ সেখানে ১১০নম্বর ওয়ার্ডের মানুষদের অভাব—অভিযোগের কথা এদিন শুনলেন মন দিয়ে৷ নিজে তিনি যাদবপুর এলাকার মেয়ে,তার ওপর আবার সাংসদ এই এলাকারই৷ ফলে এলাকার প্রতি মনোযোগ তার সর্বদাই৷ এবার তারই প্রমাণ ফের একবার পাওয়া গেল গতকাল পাটুলীতে৷ মিমি চক্রবর্তী নিজে দাঁড়িয়ে এলাকাবাসীর সমস্ত অভিযোগ শুনলেন মন দিয়ে৷

কথা দিলেন তাদের অভাব তিনি মিটিয়ে দেবেন৷ যাদবপুরের সাংসদ হলেও পাশাপাশি মিমি টলিউডের একজন সেরা অভিনেত্রী৷ অভিনয়ের সাথে রাজনীতি চালিয়ে যাচ্ছেন একেবারে সমান তালে৷ কীভাবে এতকিছু সামলান তিনি , অবাক হয়ে যান সকলেই৷ বরাবরই প্রচলিত ট্যাবুকে ভেঙেছেন তিনি৷ আর এবারও ব্যতিক্রম হল না৷ এদিন পাটুলীতে মানবিকতার পরিচয় দিলেন৷ এলাকার এক বয়স্ক মহিলাকে সাহায্য করলেন৷ মানবিকতার প্রমাণ দিলেন৷ একেবারে রাস্তায় নেমে মহিলার হাত ধরে এগিয়ে দিলেন রাস্তায়৷

সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ফিগার মেইনটেইনেই হোক,আর ফটোশুটেই হোক মিমি চক্রবর্তী মাত করে দেন সর্বত্রই৷পাশাপাশি সাংসদ হিসেবেও পালন করেন দায়িত্ব৷ আর সেই ছবিই দেখা গেল গতকাল পাটুলীতে৷ দুয়ারে দুয়ারে সরকার কর্মসূচীর প্রচারে গিয়ে মিমি চক্রবর্তী সেখানকার নানান ছবি পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়৷

ক্যাপশনে লেখেন মন ভরে,”আমরা বলে থাকি বয়স কেবল একটি সংখ্যা মাত্র,কিন্তু সেটি আসলে নয়৷”সাংসদ আরও লেখেন,”একদিন আমরাও বয়স্ক হব,এককি সাহায্যের হাত আমাদেরও প্রয়োজন হবে৷ আপনার সাথে অন্যরা কীভাবে আচরণ করবে সেটা আপনার আচরণই বলে দেবে৷তাই নিজের মতো করে ভালোবাসা ছড়িয়ে দিন৷” সরকারের তরফে ‘দুয়ারে দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচী ইতিমধ্যেই মানুষের মধ্যে সাড়া ফেলেছে,এবার সেই প্রচারে হাত মেলালেন মিমি চক্রবর্তীও৷