দুস্থদের পেটে পড়বে ভাত! মাত্র ১টাকায় মিলবে খাবার, ক্যান্টিন চালু বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের

ভারতীয় ক্রিকেট টিমের অন্যতম খেলোয়াড় ছিলেন গৌতম গম্ভীর৷ অপনেন্ট টিম যতই শক্তিশালী হোক না কেন,দায়িত্ব আর দক্ষতার সাথে জিতিয়েছেন অনেক ম্যাচ৷ ব্যাট হাতে একেবারে অন্যরকম মানুষ গৌতম৷ তবে শুধু ক্রিকেটেই আটকে নেই তার জীবন,সফল হয়েছেন রাজনীতির ময়দানেও৷ বর্তমানে তিনি ভারতীয় জনতা পার্টির সাংসদ৷ এবার সেই রাজনীতিবিদ গম্ভীর নিলেন এক অভিনব উদ্যোগ৷ মাত্র এক টাকায় খাবার তুলে দিলেন সাধারণ মানুষের মুখে৷ বরাবরই করে এসেছেন সমাজসেবামূলক কাজ৷

মানুষের জন্য প্রাণ দিয়ে লড়েন৷ তবে এবারের নয়া উদ্যোগে একেবারে তাক লাগিয়ে দিলেন৷ যারা খেতে পায় না ভালোভাবে,একেবারে দুস্থ তাদের কথা চিন্তা করে খুললেন ক্যান্টিন৷ নিজের সংসদীয় কেন্দ্র পূর্ব দিল্লির দুস্থ জনতার জন্য চালু করবেন ক্যান্টিন,যেখানে অত্যন্ত সস্তায় মিলবে খাবার৷ নাম দিলেন , “এক আশা জন রসোই”৷ ক্যান্টিনে প্রতিদিন দুপুর সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত মিলবে খাবার৷

দিল্লির গান্ধীনগরের কৈলাস কলোনী বাস স্টপে এই ক্যান্টিন খুললেন ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার৷ শুধু এখামেই থামবেন না তিনি,প্রজাতন্ত্র দিবসে অশোক নগরেও চালু করবেন অপর একটি ক্যান্টিন৷ এভাবে দিল্লির দশটি বিধানসভা এলাকায় এমন একটি করে ক্যান্টিন খুলতে চান বিজেপি সাংসদ৷ তবে সরকারী কোনো অনুদানে নয়,বরং গৌতম গম্ভীরের নিজের ফাউন্ডেশন আর সাংসাদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকেই প্রকল্পটি চলবে৷ গান্ধীনগরের ক্যান্টিন প্রসঙ্গে গম্ভীর বলেন,”আমি সবসময় মনে করি জাতি—ধর্ম —বর্ণ ও আর্থিক অবস্থা নির্বিশেষে প্রত্যেকেরই স্বাস্থ্যকর ও ভালো গুণমানের খাবার পাওয়ার অধিকার আছে৷”

কি কি পাওয়া যাবে “জন রসোই”—তে?

পুরোপুরি আধুনিক পরিষেবা পাবেন এখানে মানুষেরা৷ মাত্র একটাকায় পাবেন খাবার৷ খাবারের তালিকায় থাকবে ভাত,মুসুর ডাল,সব্জির তরকারি ৷ এশিয়ার সবচেয়ে বড় পাইকারি জামাকাপড়ের বাজারগুলির অন্যতম গান্ধীনগরের বহু মানুষ এতে উপকৃত হবেন বলে মনে করছেন গৌতম৷ ক্যাণ্টিণে একসাথে বসে খেতে পারবেন প্রায় একশো জন৷ তবে করোনা আবহে ৫০জন একই সঙ্গে বসে খেতে পারবেন ক্যাণ্টিনে৷

এই প্রসঙ্গে গম্ভীর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করে বলেন যে তারও একটাই লক্ষ্য যাতে দেশের একজনও অনাহারে না থাকেন৷ পাশাপাশি বিজেপি সাংসদ এও বলেন যে “খুব কষ্ট হয় এটা দেখে যে গৃহহীন,দুঃস্থ লোকেরা দিনে দু’মুঠো খাবারও পান না৷” নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্নকেই বাস্তব রূপায়ণ এবার দিতে চলেছেন গৌতম গম্ভীর৷