“পাল্টিবাজ নেতা! নিজের বাড়িতে পদ্ম ফোটাতে পারে না আবার বাংলায় নাকি পদ্ম ফোটাবে!”নাম না করেই শুভেন্দুকে বিঁধলেন অভিষেক

বছর প্রায় শেষ! ২০২১ দোরগোড়ায়,ভোটের বাদ্যি বাজল বলে! এরই মধ্যে দলবদলের পালাতে রাজ্য রাজনীতি সরগরম৷ ২০২০—এর শেষ সপ্তাহ,আর আজ রবিরার তৃণমূল যুব নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঝড় তুললেন নিজের কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে৷ একদিকে দাঁতনে হুডখোলা গাড়িতে রোড শো করছেন সদ্য বিজেপির সদস্যপদ নেওয়া শুভেন্দু অধিকারী৷ অন্যদিকে একেবারে ছক্কা মারলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শুভেন্দু অধিকারী গেরুয়াশিবিরে যোগ দিয়েছেন বেশিদিন হয়নি,এরই মধ্যে বিভিন্ন সভামঞ্চ থেকে তোপ দেগেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে৷ দিন কয়েক আগেই নাম না করে বলেছেন,”লাল চুল,কানে দুল ,তার নাম তৃণমূল৷” এবার সমস্ত আক্রমণের কড়া জবাব দিলেন অভিষেক৷ শুভেন্দু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার দিনই বলেছিলেন,”তোলাবাজ ভাইপো হঠাও৷”

অভিষেক আজ বলেন,”পাল্টিবাজ নেতা৷”এদিন যুব নেতা আরও বলেন,”আমি সারদাতেও নেই,নারদাতেও নেই,তোমাকেই দেখা গেছে কাগজে মুড়ে টাকা নিতে৷ তোলাবাজ আমি নই,তোলাবাজ তুমি৷” পদ্মপতাকা হাতে তুলে নিয়েই প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী অভিষেককে “ভাইপো” বলে বেঁধেন নাম না করেই! এমনকি অমিত শাহকে নিজেকে “দাদা” বলে অভিহিত করেছিলেন৷এবার সেই প্রসঙ্গে অভিষেক রবিবার নিজের কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে জোর গলায় বললেন,”অমিত শাহ যদি তোমার দাদা হয়,তাহলে ভাইপো কে? জয় শাহ?”

পাশাপাশি বিজেপিকে একহাত নেন অভিষেক৷ এদিন তিনি দাবী করেন পদ্মফুল চার দিন পরেই শুকিয়ে যায়৷ ঘাসফুল আসলে কাটলে বাড়ে৷যত কাটবে তত হবে,তৃণমূল থেকে নেতা ভাঙিয়ে নিয়ে গিয়ে তৃণমূলকে শেষ করা যাবে না,হুঙ্কার দেন অভিষেক৷৷ যুব নেতা বিদ্রূপ করে বলেন,বিজেপিতে নেতা কম পড়েছে তাই তৃণমূল থেকে নেতা নিয়ে আক্রমণ করছে৷ এমনকি এদিন অভিষেক একহাত নেন শুভেন্দুকে৷ শুভেন্দু বারংবারই বলে চলেছেন যে বাংলাকে মোদীর হাতে তুলে দিতে হবে৷ কেন্দ্র ও রাজ্যে একই সরকারের পক্ষে সওয়াল করেছেন৷ এবার এই বক্তব্যের পাল্টা আজ দিলেন অভিষেক৷ তিনি বলেন,”বাংলা কি আলু না পেঁয়াজ নাকি জয়নগরের মোয়া? যে নরেন্দ্র মোদীর হাতে তুলে দিতে হবে?”

মোদীকে নিশানা করে এও বলেন,নিজের বাড়িতে পদ্ম ফোটাতে পারেননা৷গোটা বাংলায় নাকি পদ্ম ফোটাবে৷ সরাসরি ব্যঙ্গ করে বসেন প্রধানমন্ত্রিকেই৷  আজ অভিষেককে দেখা গেল স্বমহিমায় !তিনি নাম না করেই আক্রমণ করেন শুভেন্দুকে! তিনি এদিন বলেন,”অনেকের হিংসা হয়,পূর্ব মেদিনীপুরে কাজ হয়নি৷ দক্ষিণ ২৪পরগণায় নাকি কাজ হয়েছে৷ আমার নাম না নিয়ে আক্রমণ কেন? ক্ষমতা থাকলে নাম নিয়ে বলুন! একমাস হতে চলল! নাম নিয়ে কিছু বলতে পারল না৷”

এদিন শুভেন্দুর নাম না করলেও পরপর চাচাছোলা ভাষায় কটাক্ষ ছুঁড়ে দিয়েছেন অভিষেক৷ শুভেন্দু হুঙ্কার দিয়েছেন যে তিনি নাকি পদ্ম ফুটিয়ে ঘুমোতে যাবে আর মেদিনীপুরে বিজেপি জিতবে! ২১বছর তৃণমূল করেছেন বলে লজ্জা হয়—শুভেন্দুর এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে যুব নেতা বলেন,”তোমার দাদা ও ভাই তো এখনও তৃণমূল করে৷ ওই একই বাড়িতে থাকতে লজ্জা করে না?”
রবিবার নিজের কেন্দ্রে দাঁড়িয়ে একেবারে রণংদেহী মূর্তি নিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷