“একা এক ৬৫-র বৃদ্ধা, ভারতের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী বনাম বহিরাগত গুণ্ডা”: দেবাংশু, পাল্টা দিলেন রিমঝিম

Rimjhim Mitra - Debangshu Bhattacharya
A 65year old woman , only female chief minister of India vs external people", said by Debangshu, Rimjhim replied back

গতকাল একটি ফেসবুক পোস্ট করেন তৃণমূলের যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য্য৷ পোস্টটি জুড়ে ছিল চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেওয়ার মত মন্তব্য৷’ পোস্টে তিনি লেখেন, “দেখা যাক বাংলার প্রত্যেকটা গরীব, অবহেলিত, প্রান্তিক মানুষের ওই হাওয়াই চটি পরিহিত চঞ্চলা মেয়েটা জয়ী হয় নাকি জয়ী হয় আসুরিক শক্তি৷” পাশাপাশি তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের আর নেতৃত্বকে “বহিরাগত গুণ্ডা” বলেও দাবী করেন৷ এদিন মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসাতেও পঞ্চমুখ হতে দেখা যায় দেবাংশুকে৷ লেখেন, “একা এক ৬৫ বছরের বৃদ্ধা, ভারতবর্ষের একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী”৷ তার মতে একমাত্র মহিলা মুখ্যমন্ত্রী বনাম ভিন রাজ্যের নেতা, প্রধানমন্ত্রী, দিলীপ ঘোষ, মুকুল রায়, জেপি নাড্ডা, রাহুল সিনহা, যোগী, ফেক নিউজ৷ বিজেপিকে সরাসরি উদ্দেশ্য করে দেবাংশু বলেন, “খেলা হোক”, মাঠেই আছি, হয়ে যাক এসপার উসপার৷”

এবার নাম না করেই দেবাংশুকে বিঁধলেন অভিনেত্রী রিমঝিম মিত্র৷ গতকালই নিজের ফেসবুক প্রোফাইল থেকে একটি পোস্ট করেন৷ গোটা পোস্টজুড়ে সরাসরি কটাক্ষ করেন দেবাংশুকে আর তার দলকেও৷ সামনেই বিধানসভা নির্বাচন! বিরোধীপক্ষও মাটি আঁকড়ে ধরতে চাইছে৷ ওদিকে শাসকদলও পুনরায় বাংলায় ক্ষমতা পেতে মরিয়া৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রায়ই দেখা যাচ্ছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের জনসভায়৷ একেই এবার ব্যঙ্গ করলেন ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার সদস্যা রিমঝিম মিত্র৷

ফেসবুক পোস্টে শুরু থেকে শেষ অবধি একহাত নেন মমতা আর তার সরকারকে৷ তিনি লেখেন, “আপনাদের মতো তুর্কিরা থাকতে দিদাকে খাটাচ্ছেন কেন? এ তো অন্যায়”৷ তৃণমূল সুপ্রিমোকে উদ্দেশ্য করে বলেন, “পিকে’র শেখানো লেটেস্ট বাণী ৬৫ বছরের মহিলা একা লড়ছেন৷”

এমনকি তীব্র বিদ্রূপের সুরে রিমঝিম আক্রমণ হানেন এদিন৷ ৬৫ বছরের মহিলা অর্থাৎ মমতা ব্যানার্জীকে অনেকদিন বাঁচতে হবে, নয়তো দুধের শিশু যুবরাজকে কোলে পিঠে করে মানুষ করবে কে?-প্রশ্ন রাখেন রিমঝিম৷ মুখ্যমন্ত্রীর বর্ণনায় পিকে হল “বাংলার ভূমিপুত্র”৷ এবার মাননীয়ার এই মন্তব্য ঘিরেও রিমঝিম মিত্র বলেন, “তাড়াহুড়োয় বেচারী বাংলার ভূমিপুত্র পিকে’র বাছাই করে দেওয়া রঙের শাড়ি পড়তে ভুলে যাচ্ছেন৷” এমনকি রিমঝিম ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে বলেন “TMC—এর মুখপাত্রদের দেখে আজ সত্যিই খুব করুণা হচ্ছে৷ সমস্ত হাতিয়ার হারিয়ে আজ শেষ সম্বল, সিম্পাথি৷” অভিনেত্রী কড়া সুরে কটাক্ষ করেন তৃণমূলকে৷ তার প্রশ্ন, এত সিম্পাথি হাজার হাজার বেকার যুবক যুবতীদের বেলায় কোথায় ছিল? অতিমারির সময়ে, আমফানের সময় গরীব মানুষের প্রাপ্য থেকে বঞ্চিত করার বেলা কোথায় ছিল?

BJYM-এর সদস্যা এদিন সরাসরি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে বলেন, “শুনলাম আলিমুদ্দিনে বৃদ্ধাশ্রমে বেড ফাঁকা আছে, ওখানেই পাঠানো হোক দিদাকে৷” জ্যোতিবাবুর প্রিয় ছাত্রী রঞ্জিত, চিরঞ্জিত, প্রসেনজিৎ —এর আত্মীয়া নাকি অতিবাম দিদা, মন্তব্য রিমঝিমের৷

নির্বাচন যত কাছে আসছে , ততই প্রতিনিয়ত বাড়ছে তৃণমূল—বিজেপি তরজা, ছবিটা বেশ পরিষ্কার!