প্রস্রাবের সময় পেটে টান, জ্বালা ও অন্য সমস্যা? মেনে চলুন এই ঘরোয়া টোটকাগুলি

বর্তমান পরিস্থিতিতে যে কোনও মানুষ যে কোনও সময় একাধিক শারীরিক সমস্যায় ভুগতে পারেন। এই সমস্যাগুলির মধ্যে অন্যতম একটি হল ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা প্রস্রাবের সমস্যা।

কিডনিতে স্টোন হওয়া থেকে একাধিক ইস্যুতে হতে পারে এই সমস্যা। আর এর থেকে দেখা দিতে পারে ভয়ঙ্কর রোগ। চিকিত্সকরা বলছেন, ভারতীয়দের মধ্যে এই সমস্যা খুব বেশিভাবে দেখা যায়। তাও আবার বিশেষভাবে পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের মধ্যে বেশি।

ডাক্তার দেখিয়ে, ওষুধ খেয়ে অবশেষে কমে এই সমস্যা। চিকিত্সকদের মধ্যে ই-কোলাই নামে একটি ব্যাকটেরিয়াই এই রোগের উত্স। একবার হলে এই ব্যাকটেরিয়ার প্রভাব একজনের মধ্যে বারবার দেখা দিতে পারে বলেও জানানো হচ্ছে।

তবে, চিকিত্সা বিজ্ঞানের সঙ্গে সঙ্গে কিছু ঘরোয়া টোটকা আপনাকে এই রোগের প্রকোপ থেকে মুক্তি দিতে পারে সহজেই।

ভিটামিন সি জাতীয় খাবার খেলে সহজেই রোখা সম্ভব এই সমস্যা। বিশেষ করে টমেটো, কমলালেবু, বাধাকপি, ব্রকোলি জাতীয় খাবার খেলে শরীরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ঢুকবে। মিটবে এই সমস্যা।

ক্যানবেরি জুস। একটু দামী হলেও, এই ফল বাজারে অতি সহজেই পাওয়া যায়। আর তা বাড়িতে এনে জুস বানিয়ে খেলে আটকানো যায় কিডনি স্টোন।

বেকিং সোডা। সাধারণ ভাবে এই বস্তুটি আমাদের বাড়িতে কেক বা বিশেষ ধরণের ভাজা খাওয়ার তৈরি করতে প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু, ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনের ক্ষেত্রে এক গ্লাস জলে ২ চামচ বেকিং সোডা গুলে খেলে তা অতি সহজেই উপকারে আসে।

চিকিৎসকরা প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় আদা ও রসুন রাখার কথা বলছেন।কারণ এই দুটি সবজিই অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল বলেই গণ্য করা হয়। সেই সঙ্গে রয়েছে আনারসের রসও।

গরমকালে অতি সহজেই বাজারে পাওয়া যায় আনারস। আর তাই তা নিয়ে এসে আনারসের রস খাওয়ার কথা বলা হচ্ছে।

এ তো গেল না হয় ঘরোয়া টোটকার কথা। তবে, এগুলো ছাড়াও খেতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণে জল।