কাজে লাগলো না স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড,পর্যাপ্ত টাকা নেই বলে রোগী ফেরাল বেসরকারি হাসপাতাল

স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডে নেই পর্যাপ্ত টাকা,তাই এবার রোগী ফিরিয়ে দিল বেসরকারী হাসপাতাল৷ এমনটাই ঘটেছে উত্তর ২৪পরগণার সদর শহর বারাসাতে৷ অভিযোগ জানিয়েছে আমডাঙার এক পরিবার৷ বর্তমানে রাজ্য সরকারের তরফে ঘোষিত হয়েছে স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড যোজনা৷ এই কার্ড থাকলে পরিবারপিছু পাঁচলাখ টাকা পর্যন্ত চিকিৎসার সুবিধে পেতে পারে রাজ্যবাসী৷ তবে এই প্রকল্প চালু হয়েছে বেশ কয়েকবছর ধরেই৷ আগে শুধুমাত্র সরকারী কর্মীরাই এর সুবিধে পেতেন,এবারে নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্যে সকলের জন্য শুরু করা হয়েছে এই প্রকল্প৷ বাংলার সাড়ে সাত কোটি মানুষকে এই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের আওতায় আনার লক্ষ্য নিয়েছিল রাজ্য সরকার৷ এবার যুক্ত হবে আড়াইকোটি৷ সেইমতো স্বাস্থ্যসাথী কার্ডও করানো শুরু হয়েছে বুথে বুথে৷ মানুষ কাতারে কাতারে লাইন দিয়ে করাচ্ছেন এই কার্ড! চিকিৎসার খরচ খানিক লাঘব করতেই আসলে এই সিদ্ধান্ত!

তবে এবার সম্পূর্ণ উল্টো ঘটনা শোনা গেল বারাসাত সদর শহরে৷ আমডাঙাবাসী এক পরিবার রোগী নিয়ে গিয়েছিলেন বারাসাতের এক বেসরকারি হাসপাতালে৷ কর্তৃপক্ষকে রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড দেখালেও তারা বলেন কার্ডে পর্যাপ্ত টাকা নেই,তাই তারা পরিষেবা দিতে পারবেন না!

রোগীকে ভর্তি করানো যায়নি সেখানে৷ তারপর সেখান থেকে বারাসাত সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলেও সেখানেও ভর্তি করাতে পারেননি তারা রোগীকে৷ তারপর তাকে ভর্তি করানো হয় আরজিকর হাসপাতালে৷ সেখানেই এখন চিকিৎসাধীন রোগী৷ রোগীর মেয়ে মঞ্জুওয়ারা বিবি জানান,”এরপর বারাসাত সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেও তাকে ভর্তি করে নেওয়া হয় নি৷”

প্রসঙ্গত,রাজ্যের স্বাস্থ্যসাথীর প্রকল্পের আওতায় যেসব পরিবার থাকবে তারা পাবে পাঁচ লাখ টাকা৷ গৃহকর্ত্রীর নামে এ কার্ড হলেও পরিবারের সকলেই এর সুবিধা পাবে৷ চিকিৎসার প্রয়োজন হলে পাঁচ লাখ টাকার সুবিধা তিনি নিতে পারবেন একাই৷