সুখবর! ভারতীয় রেলে প্রচুর শূন্যপদ খালি! মাধ্যমিক পাশ হলেই আবেদন করতে পারবেন

বর্তমানে প্রতিযোগিতার যুগে প্রত্যেকেই ছুটছে একটা চাকরির জন্য। ছোটবেলা থেকেই বাচ্চাদের মাথায় এটা ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে তাকে বড় হয়ে একটা ভালো চাকরি পেতে হবে না হলে সে ভালো থাকবেনা। প্রতিটা বাবা-মা চায় তার ছেলে মেয়ে পড়াশোনা করে একটা ভালো চাকরি পাক যাতে তার ভবিষ্যত নিশ্চিত হবে।

আর চাকরি যদি সরকারি হয় তাহলে আর কথাই নেই। তবে বর্তমান যুগে এই একটা চাকরি পাওয়ার সবথেকে কঠিন ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে যারা চাকরি খুঁজছেন তাদের জন্য সুখবর আছে। সম্প্রতি রেলে চলছে কর্মী নিয়োগ। কিভাবে আবেদন করবেন জেনে নিন।

বর্তমানে রেল শূন্যপদে শিক্ষানবিশ অনেককে নিয়োগ করছে। শূন্য পদের সংখ্যা ৩৫৯১। দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় পাশ করলেই আবেদন করা যাবে। ২৪ শে জুনের মধ্যে আবেদন করতে হবে। আবেদনকারীর বয়েস ১৫-২৪ এর মধ্যে হতে হবে।

যে আসনগুলো সংরক্ষিত আছে কেবল মাত্র সেইসব আসনের ক্ষেত্রেই বয়সে ছাড় দেওয়া হবে। যারা আবেদন করবেন তাদের অবশ্যই সরকার পোষিত স্কুল থেকে পাস করতে হবে। মাধ্যমিকে তাদের নম্বর অন্ততপক্ষে ৫০% থাকতে হবে, না হলে আবেদন করা যাবে না। ভারতীয় রেলওয়ের একটি ওয়েবসাইট আছে। rrc-wr.com এর মাধ্যমেই আবেদনপত্র জমা করতে হবে।

যারা চাকরি পাবেন তাদের মাইনে রাজ্য সরকার নির্ধারণ করে দেবেন। শিক্ষানবিশ হিসেবে তারা এক বছর রাজ্য সরকার দ্বারা ধার্য মাইনে পাবেন।

চাকরিতে নিয়োগ করার জন্য কোনরকম লিখিত পরীক্ষা দিতে হবেনা আবেদনকারীদের। তাদের মাধ্যমিকের নম্বর এবং আইটিআই এর নম্বর গড় করে একটি মেরিট লিস্ট বার করা হবে। সেখানে যাদের নাম থাকবে তারাই শিক্ষানবিস হিসেবে চাকরিতে যোগদান করতে পারবেন।

কিভাবে আবেদন করবেন জেনে নিন-

rrc-wr.com প্রথমে এই ওয়েবসাইটে গিয়ে পর্ন সম্পর্কিত একটি লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে। এরপর ফর্মটা খুলে গেলে সেখানে আপনার সমস্ত ডিটেলস দিয়ে ডকুমেন্টগুলো এটাচ করে দিতে হবে। এরপর আবেদন করার জন্য যে ন্যূনতম ফি লাগে সেটি জমা দিতে হবে।

তবে আপনি যদি মহিলা হন বা সিডিউল কাস্ট হন বা দিব্যাঙ্গ হন তাহলে আপনাকে সেই সংক্রান্ত অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে যার জন্য কোনও টাকা লাগবে না। এই সমস্ত প্রসেস মিটে গেলে আপনার কাছে একটি কনফারমেশন মেসেজ যাবে।

যে ফরমটি ফিলাপ করলেন সেটি যদি ফোন থেকে করে থাকেন তাহলে তার একটা স্ক্রিনশট প্রিন্ট আউট করিয়ে নেবেন এবং যদি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার থেকে করে থাকেন তাহলেও সেটির প্রিন্ট আউট বার করে নেবেন তাতে ভবিষ্যতে আপনার সুবিধা হবে। যদি আবেদন করার পর আপনি চাকরিটা পান তাহলে সেটি কাজে লাগবে।