ভারতে চলা কৃষক আন্দোলোন থেকে মনোযোগ সরাতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করতে পারে ভারত? আশঙ্কা প্রকাশ পাক-মিডিয়ার

কৃষক আন্দোলনকে ঘিরে উত্তাল গোটা ভারতবর্ষ৷ কৃষকদের সাথে বৈঠকেও কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারছে না কেন্দ্রীয় সরকার৷ একটাই দাবী উঠছে আন্দোলোন থেকে,প্রত্যাহার করা হোক কৃষিবিল৷

এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তান আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যে দিল্লিতে কৃষক বিক্ষোভের থেকে মনোযোগ ঘুরিয়ে দিতে ভারত করতে পারে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক৷ পাকিস্তানের শীর্ষস্থানীয় সংবাদপত্র এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে যে ,গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর তরফে ইঙ্গিত মিলেছে যে ভারত এবার নিতে পারে বড়ো পদক্ষেপ৷ এমনকি পাকিস্তান সীমান্তে সেনাদের সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছে ওই সংবাদমাধ্যম৷ এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের মতে ভারতে চলা কৃষক বিক্ষোভ থেকে মোড় ঘুরিয়ে দিতেই ভারতের তরফে হতে পারে বিশাল কোনো পদক্ষেপ৷

এমনটা দাবী করেছে আরেকটি পাক—সংবাদমাধ্যম জিও নিউজ৷ তাদের মতে, ভারত এই মুহুর্তে বিভিন্ন রকম সমস্যার মধ্যে আছে৷ আভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক দু’ক্ষেত্রেই ভারত সমস্যায় এখন৷ এছাড়াও কাশ্মীর এবং লাদাখ নিয়েও সংকটে আছে ভারত৷ এই মুহুর্তে দিল্লিতে চলা কৃষক আন্দোলোনকেও থামাতে পারেনি তারত,ফলে পাক সীমান্তে ঢুকে ভারত চালাতে পারে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক৷ এর আগেও পুলওয়ামাতে হওয়া হামলার নিরীখে পাকিস্তানে জঙ্গিঘাঁটি ধ্বংস করতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছিল ভারতবর্ষ৷ এবারও এমনটাই করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে দাবী করা হয়েছে ওই দুই সংবাদমাধ্যম তরফে৷

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভারতে চলা কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে নানান বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের মন্ত্রীরাও৷ কৃষিবিল প্রত্যাহারের দাবীতে কৃষকরা বিক্ষোভ জানাচ্ছে ভারতের পথে পথে,কেন্দ্র সরকারের সাথে বারংবার আলোচনা হলেও সমস্যা রয়েছে অব্যাহত৷

এই বিষয়টিকে ইঙ্গিত করে পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী একটি টুইট করেন৷ টুইটে তিনি লেখেন,”নির্দয় মোদী সরকার পাঞ্জাবে কৃষকদের গুরুত্ব বোঝে না৷” তবে ভারতের অভ্যন্তরের কোনো বিষয় নিয়ে ফাওয়াদ চৌধুরু মন্তব্য করেননি,কিন্তু পাশাপাশি ভারতে কৃষকদের মধ্যে বিভেদ তৈরী করতে উস্কানিমূলক প্ররোচনা দেন বলে অভিযোগ৷

ভারতে কৃষকদের ওপর কোনো ন্যায়ও হচ্ছে না,আর তারা উপযুক্ত বিচারও পাচ্ছে না বলে দাবী পাক—মন্ত্রীর৷ যদিও এ বিষয়ে ভারতের তরফে কোনো প্রতিক্রিয়া জানা যায় নি৷