পুলওয়ামার চেয়েও মারাত্বক বড়ো এক বিস্ফোরণের হাত থেকে বাঁচালো পুলিশ, গ্রেফতার হল ৬ জন

এক মারাত্বক বিস্ফোরণ থেকে রক্ষা দেশ। পেল গোপন সূত্র থেকে জানা গেছিল , প্রচুর বিস্ফোরক পদার্থ গোপনে আদান প্রদান হতে পারে এক এলাকায়। সেই কথা মতোই মেঘালয়ের পূর্ব জয়ন্তিয়া পাহাড় এলাকায় তল্লাশি চালায় মেঘালয় পুলিস। বুধবার রাতে ৪ কিলো এলাকায় একটি এসইউভি গাড়ি আটক করতেই মাথায় হাত পড়ে পুলিসের। গাড়ি থেকে উদ্ধার হয় ২৫০ কেজি বিস্ফোরক, যা অন্যত্র পাচার করার পরিকল্পনা চলছিল।

সূত্রের খবর পাওয়া মাত্র পুলিস কড়া নজরদারি চালাচ্ছিল বিভিন্ন এলাকায় । লাদ্রিমবাই পুলিস আউটপোস্টের কাছে কংগং এলাকায় আসামের নম্বরপ্লেটের একটি গাড়ি দেখেই সন্দেহ হয় পুলিসের। তারপর গাড়িটিকে দাঁড় করিয়ে তল্লাশি চালাতে দেখা যায়, ভিতরে ১০টি বাক্স রয়েছে। বাক্সের ভিতর থেকে পলিশ উদ্ধার করে ওই দুই হাজার জিলেটিন স্টিক, এক হাজার ডিটোনেটর ও আটটি ফিউজ রোল ।

অ্যাসিস্টেন্ট ইন্সপেক্টর জেনারেল জি কে লাঙ্গরাই বলেন,”গাড়ির ভিতর থেকে ২৫০ কেজি বিস্ফোরক, ডিটোনেটর ও ফিউজ উদ্ধার করা হয়েছে। গাড়িতে যে দুজন ছিল, তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। পরে একটি গোপন ডেরায় তল্লাশি চালিয়ে আরও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়। সব মিলিয়ে মোট ১৫২৫ কেজি বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে।”
পুলিসি জেরায় মুখ খোলে ধৃত দুই ব্যক্তি। সেই তথ্য অনুযায়ী ৫ কিলো এলাকায় এক গোপন ডেরায় হানা দেয় পুলিস। সেখান থেকে আরও ৫১টি বিস্ফোরক ভর্তি বাক্স উদ্ধার করা হয়। সঙ্গে আরও পাঁচ হাজার ডিটোনেটর ও আট রোল ফিউজ উদ্ধার হয়। গোপন ডেরা থেকে চারজনকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও জানা গেছে যে, তদন্ত শুরু করা হয়েছে।বিস্ফোরক আইন ও অন্যান্য ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রাথমিক জেরায় জানা গিয়েছে ওই গোপন ডেরা থেকেই বিস্ফোরক নিয়ে অন্যত্র যাচ্ছিল ধৃত দুই ব্যক্তি। কিভাবে বা কোথা থেকে এলো এতো বিস্ফোরক পদার্থ এবং তার পেছনে কি উদ্দেশ্য ছিল তা খোঁজার চেষ্টা করছে পুলিশ।