টলিউড

“একেই বলে মা দশভূজা” – সারা বছর কাজের ব্যস্ততা, অন্য সময় পরিবারের জন্য সময় কোথায়, পুজোর ছুটিতে পুরোটাই নিজের ছোট ছেলের সাথে কাটালেন অভিনেত্রী সোনালী চৌধুরী

চলতি বছরের দুর্গা পূজার হয়েছে সমাপন। গোটা একটা বছরের অপেক্ষার পর আসে শারদ উৎসব। সাধারণ মানুষ থেকে অভিনেতা অভিনেত্রী সকলেই এই পাঁচটা দিন জমিয়ে পূজো থেকে খাওয়া-দাওয়া, আড্ডা সবটা এনজয় করতে ব্যস্ত থাকেন। সেলিব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষ সকলেই মেতে ওঠেন পুজোর আনন্দে। প্রত্যেক বছরের মত এ বছরেও পুজোর আনন্দে মেতে ছিলেন সকলে। কেউ ঘুরে বেড়িয়েছেন কলকাতায় আবার কেউ গেছেন কলকাতার বাইরে। বেশিরভাগ সেলিব্রিটিই দেবীর আরাধনায় পূজা মন্ডপে উপস্থিত হয়েছেন।

পরিবারের সাথে পুজো কাটিয়েছেন যেসব অভিনেতা – অভিনেত্রীর তাঁদের লিস্টে রয়েছেন টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী সোনালী চৌধুরী। নিজের অভিনয়ের গুণে কয়েক দশক ধরে দর্শকদের মন জয় করে রেখেছেন অভিনেত্রী। একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিকে অভিনেত্রীকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে কাজ করতে দেখতে পাওয়া গেছে। বর্তমানে অভিনেত্রীকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে জি বাংলার বোধিসত্ত্বের বোধবুদ্ধিতে বোধির মায়ের চরিত্রে। সেই ধারাবাহিকে অভিনেতা বিশ্বনাথ বসুর বিপরীতে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী।

অভিনেত্রী কিছুদিন আগেই এক সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী এবারের দুর্গাপুজো কাটাতে চান নিজের ছোট ছেলের সাথে। পুরো পুজোটাই ছেলেকে নিয়ে খাওয়া-দাওয়া তাঁর সাথে খেলা তাঁকে ঠাকুর দেখানো এসব নিয়েই কাটাতে চান তিনি। প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগেই অভিনেত্রী জন্ম দিয়েছেন এক পুত্রের। বর্তমানে অভিনেত্রীর বয়স ১ বছর ৪ মাস। গত বছর পরিবেশের কারণে ছেলেকে নিয়ে তেমনভাবে পুজো কাটাতে পারেনি। তাই এই বছর জমিয়ে মজা করবেন তাঁরা একরত্তি একটি ছেলের সাথেই।

উক্ত প্রসঙ্গে অভিনেত্রী নিজে বলেছেন, “গত বছর কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ছেলেকে নিয়ে ঠাকুর দেখা ঠিক বলে মনে করিনি, কারণ তখন ছোটদের সংক্রমণের সম্ভাবনা বেশি ছিল।” তিনি আরো বলেন, “আমি চাই আমার ছেলেও পূজোর ছোটখাটো বিষয়গুলি দেখে বড় হোক।” প্রসঙ্গত অভিনেত্রীর বাপের বাড়িতে প্রত্যেক বছর সাবেকি ঢাছে দেবী দুর্গার পূজা করা হয়। সেখানেও পুজোর সমস্ত দায়িত্ব পালন করতে দেখতে পাওয়া যায় অভিনেত্রীকে।

Back to top button