টলিউড

‘মোটা’ তকমা ঘুচিয়ে কঠোর পরিশ্রমের জেরেই শরীরের সমস্ত বাড়তি মেদ ঝরিয়ে ফেলেছেন ঐন্দ্রিলা, প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রেমিক অঙ্কুশ, গর্বে বুক ফুলল অঙ্কুশের

টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে এমন কোন অভিনেত্রী হয়তো নেই যাকে একবারের জন্য হলেও ট্রোলের শিকার হতে হয় নি। কোন না কোন কারণে বিশেষ করে অভিনেত্রীরা ট্রল হন। প্রতিদিন প্রতি নিয়ত চলছে বডি শেমিং। কারুর গায়ের রং নিয়ে, আবার কারোর চুল নিয়ে কারোর উচ্চতা নিয়ে প্রতিনিয়ত কিছু না কিছু খুঁজে নেয় ট্রোলাররা। আর কোন নায়িকা কোন কারনে যদি ওজন বৃদ্ধি করেন তাহলে তো আর কথাই নেই।

আসলে আজকের দিনে দাঁড়িয়েও মানুষের মাথায় একটা কথা ঢুকে আছে নায়িকারা কখনোই হেভিওয়েট হতে পারেন না। তবে সেই ধারণা যে একেবারেই ভুল তা বারবার প্রমাণ করে দেন বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই। অতিরিক্ত মেয়েদের কারণে যে সমস্ত অভিনেত্রীরা সমালোচিত হয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন ঐন্দ্রিলা সেন।

ছোটপর্দার পরিচিত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা। বর্তমানে অঙ্কুশের হাত ধরেই বড়পর্দাতেও ডেবিউ ঘটেছে তার। উল্লেখ্য, অঙ্কুশ হাজরা ও ঐন্দ্রিলা সেন দীর্ঘদিন ধরে সম্পর্কে রয়েছেন। এই অভিনেত্রী শুরু থেকেই কোনদিনই সেই ছিপছিপে রোগা ছিলেন না। তবে তার জন্য তাকে কম কথা শুনতে হয় নি। তবে নিজের ওপর ভরসা রেখে ছিলেন অভিনেত্রী। পাশের পেয়েছিলেন কাছের মানুষদেরও।

লকডাউনের কারণে বহু মানুষ ওজন পুট অন করেছেন। ব্যতিক্রমী নন অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও। কঠিন পরিস্থিতিতে বাড়িতে বসে থাকতে থাকতে অতিরিক্ত মেদ জমেছিল শরীরে। তার সাথে চলেছিল ভুরিভোজও। কিন্তু সম্প্রতি তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি ফিট হবেন। যেমন ভাবা তেমন কাজ। বর্তমানে তিনি একেবারে ফিট অ্যান্ড ফাইন। কঠোর পরিশ্রম ও কঠোর নিয়ম মেনে শরীরচর্চা করার পরই এখন ঐন্দ্রিলা সেন একেবারে ফিট। শরীরের সমস্ত অতিরিক্ত মেদ ঝরিয়ে ফেলেছেন তিনি। সম্প্রতি তার প্রেমিক, জীবনসঙ্গী অঙ্কুশ হাজরা তার আগেকার এবং এখনকার দুটি ছবি শেয়ার করে তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন। লিখেছেন, “ট্রান্সফর্মেশন, তোমার জন্য গর্ব হচ্ছে। আরও দূর যেতে হবে , কিপ রকিং”। একসময় অভিনেত্রীকে “মোটা হাতি”র মত মন্তব্য শুনতে হয়েছে। বর্তমানে তিনি সেইসমস্ত নেটিজেন এবং ট্রোলারদের ট্রেনিংয়ের যোগ্য জবাব দিয়েছেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Ankush (@ankush.official)

Back to top button