টলিউড

‘পুরোনো শটের গল্প বলতেন সৌমিত্র জেঠু আর থাপ্পড় মারার পর‌ই আদর করতেন স্বাতীলেখা আন্টি’! স্বাতীলেখা দাশগুপ্তকে নিয়ে স্মৃতি মনামী ঘোষের

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং স্বাতীলেখা দাশগুপ্ত বাংলা চলচ্চিত্র জগতের দুই উজ্জ্বল নক্ষত্র। এদের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতায় আলাদা। ‘বেলা শুরু’ ও ‘বেলা শেষে’ ছবিতে এই দুই তারকার সাথে কাজ করেছিলেন মনামী ঘোষ। এই দুই তারকার সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন তাই সম্প্রতি শেয়ার করলেন মনামী। মনামী বলেন,“ সৌমিত্র জ্যেঠু খুব গল্প করতো। একটা কোন শট হয়েছে। হয়তো তেমন কোন শট তার পুরনো ছবিতেও হয়েছিলো সেই গল্প সকলকে বলতেন জেঠু। শুনতে খুবই ভালো লাগতো। সেই সাদা কালো ছবির সব গল্প।”

ছবিতে স্বাতীলেখা মনামীর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। সেখানে একটা শট ছিল যেখানে মা মেয়েকে থাপ্পড় মারছেন। এই শটটা বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে শুট করা হচ্ছিলো, ফলে একটা থাপ্পড় প্রায় ৫ থেকে ৬ বার শ্যুট করা হচ্ছিলো, মনামী বলেন,“এই সিনটা করতে স্বাতী আন্টি খুবই কুণ্ঠাবোধ করছিলেন।” জোরে থাপ্পর মারতে অত্যন্ত কষ্ট হচ্ছিল তার। বারবার তিনি বলছিলেন,“আহা রে, মেয়েটার কী লাগছে।” মনামী বরং স্বাতী দেবীকে বলেন, জোরে মারতে, একেবারে যেমন ভাবে মায়েরা মেয়েদের মারে সেভাবে। তবে প্রতিটা সিন করবার পর স্বাতী দেবী তাকে আদর করেছিলো বলেও জানায় মনামী।

অভিনেত্রীকে একই সাথে জিজ্ঞেস করা হয় যে পুন্যি পুকুর, ইরাবতীর চুপকথার মতো ধারাবাহিকে লিড রোলে কাজ করা অভিনেত্রী বড় পর্দাতে কেন লিড রোলে অভিনয় না করে সাইড রোলে অভিনয় করছেন? এই প্রসঙ্গে অভিনেত্রী জানান, “কেন আমায় ছবিতে সেভাবে কাজ দেওয়া হয় না সেটা পরিচালকদের জিজ্ঞাসা করুন। আমি জানিনা”।উল্লেখ্য ‘বেলা শুরু’ ছবিতে মনামীর অভিনয় বেশ প্রশংসিত হয়েছে। তিনি টাপা টিনি নাচেও জমিয়ে দিয়েছেন। তিনি ভালো নাচেন এটা প্রায় সবাই জানে, তবে মনামি যে ভালো গানও গাইতে পারেন, সেটা সম্প্রতি জানা গেল ভিটামিন এম এ মিউজিক ভিডিও বাজারে আসার পর। এই ভিডিওতে তার অভিনয় জীবন গড়ার কাহিনী দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

Back to top button