অনির্বাণ ভট্টাচার্যের স্ত্রীকে জানেন? অভিনেতার মনের মানুষ তিনি, রইল তার পরিচয়

বাংলার এখন অন্যতম ক্রাশ অভিনেতা অনির্বাণ ভট্টাচার্য, একসময়ে হাজার হাজার রমনীরা স্বপ্ন দেখতেন অনির্বাণের সঙ্গে ঘর বাঁধবেন। তার সঙ্গেই বুড়ো হবেন। কিন্তু এই স্বপ্ন যে অধরাই থেকে গেল, সব রমনীদের স্বপ্ন চুরমার করে, রমনীদের মনের ভেতর অনুভূতিগুলোকে পুড়িয়ে দিয়ে বিয়ে করে বসলেন অভিনেতা।

যে মানুষই ভালোবাসতে শিখিয়েছিল সবাইকে, সেই মানুষই তিতুমির হয়ে গর্জে উঠলেন। সঙ্গে খুঁজে নিলেন তাঁর বাস্তবের সত্যবতীকে।

দীর্ঘদিনের বান্ধবী মধুরিমা গোস্বামীর সঙ্গেই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছিলেন অভিনেতা। তবে বিয়ের আগে টলিপাড়ায় গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল যে খুব শীঘ্রই বিয়ে করছেন টলিউডের খোকা। যদিও অনির্বাণ কখনই নিজে বিয়ে নিয়ে মুখ খোলেননি। আচমকাই ২০২০ সালের ২৬ নভেম্বর বিয়ে করেছেন অনির্বাণ।

কিন্তু কে সেই ভাগ্যবতী! জানেন কি, অনির্বাণের স্ত্রী মধুরিমা গোস্বামী আসল পরিচয়। বিয়ের দিন এই তারকাজুটি সেজেছিলেন লাল পোশাকে। তবে অনির্বাণের বিয়ের খবর শুনে চোখে জল নিয়ে হাজার হাজার রমণীর মন ভেঙে ছিল সেদিন। সল্টলেকের ন্যাশনাল মাইম ইনস্টিটিউটে আইনীমতে বিয়ে সারেন তাঁরা।

এত কুৎসিত মেয়েকে বিয়ে! আমিই তো ভালো ছিলাম”অনির্বাণের হবু স্ত্রীকে নোংরা  ট্রোলিং!

কিন্তু এক দুবছর নয়, প্রায় বারো বছরের সম্পর্ক অনির্বাণ-মধুরিমার। দুজনেই রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়া। মধুরিমা নাটকের সঙ্গে যুক্ত। জানা যায়, নাটকের সূত্র ধরেই মধুরিমার সঙ্গে অনির্বাণের আলাপ হয়েছিল। কারণ অনির্বাণ বড়পর্দায় অভিনয়ের আগে প্রচুর থিয়েটার করেছেন।

বহু নাটকে একসঙ্গে অভিনয় ও নাটকের প্রযোজনাও করেছেন অনির্বাণ-মধুরিমা। প্রসঙ্গত, রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী মধুরিমা পদ্মশ্রীখ্যাত মুকাভিনয় শিল্পী নিরঞ্জন গোস্বামীর মেয়ে। দীর্ঘদিন এই জুটি ‘হাতিবাগান সঙ্ঘারাম’ দলে একসঙ্গে কাজ করেছেন।

Actor Anirban Bhattacharya gets hitched to fellow theatre artiste Madhurima  Goswami

তবে মেদিনীপুর থেকে আসা এই ছেলেটার জীবনটা খুব একটা সহজ ছিল না। ২০০৫ সাল থেকে তিনি থিয়েটার জগতের সঙ্গে যুক্ত থাকলেও ২০১৩ সালে ‘কোলকাতার কিং’ ছবির মাধ্যমে তাঁর টলিউডে অভিনয়ের সূত্রপাত। এরপর থেকেই একের পর এক হিট ছবি তিনি বঙ্গ ইন্ডাস্ট্রিকে উপহার দেন। অরিন্দম শীল পরিচালিত ‘ঈগল চোখ’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড পান।

এরপর সৃজিত মুখার্জি পরিচালিত ‘শাহ জাহান রিজেন্সি’ ছবিতে তিনি একটি গান করেছিলেন, যার নাম ‘কিছু চাইনি আমি’। ব্যস! এই গানটি তখন হয়ে যায় প্রত্যেকটা বাঙালির জাতীয় প্রেমসংগীত।

এই গানের জন্যে অনির্বাণ বেস্ট প্লে ব্যাক সিংগারের ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড জিতে নেন। এরপরে সৃজিত মুখার্জি পরিচালিত বহু ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। এছাড়া হইচই-এর ওয়েব সিরিজ ব্যোমকেশে অভিনয় করে তিনি হয়ে ওঠেন সকল বাঙালির রোল মডেল।

তবে এখানেই শেষ নয়। এই ৩৪ বছরের ছেলেটির গুণ শুনলে অবাক হয়ে যান সকলেই। তিনিই প্রমাণ করেছিলেন যে দুর্বলতা দিয়ে কখনো মানুষকে বিচার করা jayn।

এমনকি সম্প্রতি তাঁর লেখা গান ‘আমি অন্য কোথাও যাব না। আমি এই দেশেতেই থাকব’। এই গানটি বর্তমানে নাড়িয়ে দিয়েছে অনেক ভারী ভারী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের। খুব শীঘ্রই বিরসা দাশগুপ্ত পরিচালিত তার নতুন ছবি ‘সাইকো’ ছবিতে অনির্বাণের দেখা মিলতে চলেছে বাঙালি দর্শকদের।