টলিউড

মহালয়ার সকালে দেবী বন্দনায় সেজে উঠেছে বিভিন্ন অভিনেত্রীরা, সৌমিতৃষা কমলে কামিনী, শুভশ্রী আদ্যা মা! জেনে নিন কোন দেবীর রূপে দেখা যাবে কোন অভিনেত্রী কে

হাতে আর মাত্র কয়েকটা দিন সামনেই বাঙালি সবথেকে প্রিয় এবং বড় উৎসব, দুর্গোৎসব। সারাবছর বাঙালিরা এই চারদিনের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকেন । আর দুর্গা পুজোর আগেই মহালায়া, এই দিন প্রতিটি বাঙালির ঘুম ভাঙ্গে বীরেন্দ্রকৃষ্ণ ভদ্রের কন্ঠে মাতৃ বন্দনার সঙ্গে। এরপরেই সকলের চোখ চলে যায় টেলিভিশনের পর্দায়। বিভিন্ন চ্যানেলগুলি তাদের নিজেদের মতো করে আয়োজন করে মাতৃ বন্দনার। মহালয়ার ভোরে বিভিন্ন চ্যানেলে বিভিন্ন রূপে ফুটিয়ে তোলা হয় মা এর বিভিন্ন রূপ।

এবারে মহালয়ার ভোরে জি বাংলার পর্দায় দেখা যাবে ‘কত রূপে মা গো তুমি’। দর্শকদের প্রিয় অভিনেত্রীরা সেজে উঠবে মায়ের বিভিন্ন রূপে। শুভশ্রী থেকে সৌমিতৃষা সকলেই থাকছেন এই অনুষ্ঠানে। তাদের মহালয়ার ভোরে বিভিন্ন রূপে দেখা যাবে টিভির পর্দায়।

১. মহালয়ার ভোরে লাল পেড়ে সাদা শাড়ি রুপে দেখা যাবে শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায় কে। ইতিমধ্যেই শুটিং শেষ হয়েছে, বিভিন্ন ভিডিও ইতিমধ্যেই সামনে এসেছে দর্শকদের। শুভশ্রী ইনস্টাগ্রামেও নিজের কাজের কিছু অংশ ভাগ করে নিয়েছেন। অনুষ্ঠানের শেষে মহিষাসুরমর্দিনী রূপে দেখা যাবে অভিনেত্রীকে।

শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়: লাল পাড় সাদা শাড়ি পরে আদ্যা শক্তি রূপে দেখা দেবেন রাজ-পত্নী। ইতিমধ্যেই কাজ শেষ করে ফেলেছেন তিনি। তার কিছু ঝলক পাওয়া গিয়েছে অভিনেত্রীর ইনস্টাগ্রামে। অনুষ্ঠানের শেষের দিকে আবার মহিষাসুরমর্দিনী রূপে আবির্ভাব হবে তাঁর।

 

২. অন্নপূর্ণা রূপে দেখা যাবে ‘করি খেলা’ র পারমিতা কে। অর্থাৎ আপনাদের সকলের প্রিয় শ্রীপর্ণা রায় কে। এখানে দেবী অন্নপূর্ণার মহিমা ফুটিয়ে তুলবেন অভিনেত্রী।

শ্রীপর্ণা রায়: ‘কড়িখেলা’ ধারাবাহিকের পারমিতাকে দেখা যাবে দেবী অন্নপূর্ণা রূপে। এখানে দেবী অন্নদাত্রী।

৩. যমুনা ঢাকির যমুনা অর্থাৎ শ্বেতা ভট্টাচার্য কে দেখা যাবে দেবী ছিন্নমস্তা রূপে। দেবী ছিন্নমস্তা রক্তবর্ণ মুক্তকেশী রূপে দেবী অসুর দমন করেন।

শ্বেতা ভট্টাচার্য: ‘যমুনা ঢাকি’-র শ্বেতা ভট্টাচার্যকে দেখা যাবে দেবী ছিন্নমস্তা রূপে। রক্তবর্ণা, মুক্তকেশী হয়ে পাপ স্খলন করতে তাঁর আবির্ভাব।

৪. মুক্তকেশী শ্যামবর্ণা রূপে মা কালী সেজে উঠেছে ‘অপরাজিত অপুর’ অপু। অর্থাৎ সুস্মিতা দে।

সুস্মিতা দে: শ্যামবর্ণা, মুক্তকেশী, মুণ্ডমালা পরে কালী সেজে উঠবেন ‘অপরাজিতা অপু’ ধারাবাহিকের সুস্মিতা।

৫. শুম্ভ নিশুম্ভ এবং রক্তবীজদের মত দুষ্ট অসুরদের দমন করতে আবির্ভূত হয়েছিলেন দেবী কৌশিকী। এবারে দেবী কৌশিকী রূপে দেখা যাবে ‘কৃষ্ণকলি’ ধারাবাহিকের শ্যামা অর্থাৎ তিয়াসা রায় কে।

শ্রাবণী ভুঁইয়া: ঝিলম অর্থাৎ শ্রাবণী ভুঁইয়াকে দেখা যাবে দেবী ললিতা ত্রিপুরাসুন্দরী রূপে। ভন্ডাসুর এবং তাঁর ছেলেদের বধ করতে আবির্ভূত হয়েছিলেন এই দেবী।

৬. চন্ডীমঙ্গল কাব্য গ্রন্থে দেবী কমলে কামিনীর কথা উল্লেখ রয়েছে, এই দেবী চতুর্ভূজা। দেবী কমলে কামিনী রূপে সেজে উঠবেন সকলের প্রিয় ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকের সৌমিতৃষা কুন্ডু।

সৌমিতৃষা কুন্ডু: চণ্ডী মঙ্গলে দেবী কমলে কামিনীর গল্প বর্ণিত আছে। এই দেবী চতুর্ভুজা। কমলের উপর অধিষ্ঠিত থাকেন তিনি।সেই তিনিই ‘মিঠাই’ অর্থাৎ সৌমিতৃষা কুন্ডু।

৭. জীবনসাথী ধারাবাহিকের ঝিলাম কে দেখা যাবে দেবী ত্রিপুরাসুন্দরী রুপে। ভন্ডাসুর এবং তার বংশধরদের নিধন করতে জন্ম হয়েছিল এই দেবীর।

তিয়াসা সাহা: শুম্ভ-নিশুম্ভ এবং রক্তবীজের মতো অসুরকে বধ করতে আবির্ভাব হয়েছিল দেবী কৌশিকীর। মহালয়ার সকালে ‘কৃষ্ণকলি’ ধারাবাহিকের শ্যামা অর্থাৎ তিয়াসাকে দেখা যাবে এই রূপে।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Back to top button