“ও আমার গয়না আটকে রেখেছে, আমাকে না জানিয়ে আমার টাকা ব্যাবহার করেছে” দাবি নিখিলের সহবাসী নুসরতের

নুসরত জাহান ও নিখিল জৈন এর সম্পর্ক নিয়ে বহুদিনধরেই জল্পনা কল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছিল। এই বছরের শুরুতেই দুজনের বিচ্ছেদের কথা কান পাতলেই শোনা যাচ্ছিল। এই মার্চ মাসে যদিও সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে দেন এই তারকা দম্পতি। ইতিমধ্যেই কোর্টে নুসরতের বিরুদ্ধে দেওয়ানী মামলা দায়ের করেন নিখিল।

এখন এই আলোচনা সম্পূর্ণ নতুন মোড় নিল বুধবার। নুসরত জাহান এদিন মিডিয়া বিবৃতি জারি করে বললেন, ‘নিখিল আর আমার বিয়ে আইনত অবৈধ, তাই বিচ্ছেদের প্রশ্ন নেই। নুসরত নিখিল ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ জানিয়েছেন।

যদিও নিজের বৃবিতিতে নুসরত একবারও নিখিলের নাম উল্লেখ করেননি অভিনেত্রী। কখনও ‘সামওয়ান’, কখনও ‘এনিওয়ান’ আবার ‘রিচ গাই’ হিসাবে সম্বোধন করেছেন নিখিল জৈনকে।

শুধু তাই নয় তুরস্কের বোদরুমে অনুষ্ঠিত বিয়েটি বেআইনি বলেনও অভিযোগ করেছেন তিনি। এমনকি নিখিল তার ব্যাংক একাউন্ট থেকে টাকাও নিয়েছেন বলে এমন অভিযোগ জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

নুসরত আরো বলেছেন নিখিল তাঁর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়েছেন বিচ্ছেদের পরেও। তিনি বলেন, ‘আমি তাঁকে ব্যবহার করেছি বলে যিনি অভিযোগ করছেন, তিনি আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়েছেন।

রাতেরবেলা অদ্ভুত সময়ে টাকা নিয়েছেন বিচ্ছেদ হওয়ার পরেও। আমি ইতিমধ্যেই ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে বিষয়টা জানিয়েছি। খুব তাড়াতাড়ি পুলিশেও অভিযোগ দায়ের করব’। অভিনেত্রীর দাবি, তাঁর এবং পরিবারের অনেকেরই ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নিখিল দেখাশোনা করতেন।

নুসরতের অজান্তে এবং কোনওরকম অনুমতি না নিয়েই তাঁর টাকা ভুল ভাবে ব্যবহার করেছেন নিখিল। পাশাপাশি নুসরতের যাবতীয় নিজস্ব গহনা নাকি নিখিল ও তার পরিবার আটকে রেখেছে।

এই গুরুতর অভিযোগ নিয়ে বাংলার এক নিউজ চ্যানেলের তরফে যোগাযোগ করা হয়েছিল নিখিল জৈনের সঙ্গে। এই অভিযোগের উত্তরে নিখিল জানান, আমি কোনওদিন মন্তব্য করব না ওর এই অভিযোগ নিয়ে। কারণ এই বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন।

কোর্টে সিভিল স্যুট দাখিল করা রয়েছে। এবং আইনজীবীরা তাঁদের কাজ করছেন’। গয়না নিয়ে প্লাটা প্রশ্ন করা হলে নিখিল বলেন, ‘ওই সব নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না।

আপনারা সবাই জানেন আমি ওর জন্য কী করেছি না করেছি, তাই এই অভিযোগ নিয়ে কিছু বলবার নেই। কোর্টে যা ফাইল করবার আমি সেটা করে দিয়েছি’। আগামী মাসের ২০ তারিখ এই মামলার শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে