স্নো -ফলের সন্ধ্যে! হিমাচলে একে অপরকে উষ্ণতা দিলেন অঙ্কুশ ঐন্দ্রিলা

বড়দিন চলে গেলেও উৎসবের মরশুম চলছে৷ প্রান্তে প্রান্তে আলোর রোশনাইতে এখন যেন একটু বেশিই সুন্দরী তিলোত্তমা কলকাতা৷ ছুটির আমেজে শীতের দুপুরগুলোর রোদে চুল শুকোনোর দিন! আনন্দে মেতেছে আট থেকে আশি৷ বাদ নেই তারকারাও৷ এবার শিমলার ম্যালে স্নো ফলে উষ্ণতা ছড়ালো অঙ্কুশ আর ঐন্দ্রিলা৷ একে অপরকে জড়িয়ে ধরে তীব্র ঠাণ্ডায় খানিক উত্তাপ পেতে পরস্পরকে জড়িয়ে ধরলেন তারা,সেই ছবি দেখা গেল অঙ্কুশ হাজরার ফেসবুক পেজে৷ ঐন্দ্রিলাও পোস্ট করেন ওই একই ছবি৷ অনেক বছর ধরেই অঙ্কুশ আর ঐন্দ্রিলা একে অপরের সাথে সম্পর্কে আছেন৷ তারা কোনোদিনও রাখঢাক করেননি নিজেদের ব্যাপারে৷ নিজেদের প্রেম নিয়ে বরাবরই খোলামেলা দু’জনে৷ লকডাউনেও অঙ্কুশের বাড়িতে ছিলেন ঐন্দ্রিলা,দু’তরফের পরিবারও একসাথে সময় কাটিয়েছেন৷

অঙ্কুশ টলিউডের প্রথম সারির নায়ক হলেও ঐন্দ্রিলা এখনও টেলিভিশনের বাইরে বেরোননি৷ দু’জনেই ব্যস্ত থাকেন শুটিং—এর কাজে৷ তবুও করোনা আবহে প্রায় ৪মাস ঘরে বন্দী থেকে এবং সর্বোপরি ব্যস্ততা থেকে দূরে থাকতে যুগলে ছুটি কাটাতে গেলেন শিমলাতে৷ ডিসেম্বর মাস,হাঁড়কাপানো ঠাণ্ডা এই মুহুর্তে হিমাচলে৷ তবে বরফে মোড়া হিমাচল সৌন্দর্য্যের বাতাবরণ তৈরি করে রেখেছে! আজ সকালেও অঙ্কুশ নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যাণ্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করেন,আর তাতে দেখা যাচ্ছে পুরো শিমলা শহর আবৃত বরফে৷

গতকালও তাদের দেখা যায় স্নো ফলে আনন্দে মেতে উঠতে৷ ছুটি কাটাতে গিয়ে শিমলার ম্যালে বরফ পড়ছে,আর নিজেদের সামলাতে পারলেন না ঐন্দ্রিলা—অঙ্কুশ!

একে অপরকে জাপটে ধরে ছবি তুললেন! ক্যাপশনে লেখেন ,”হায় গরমি”৷ আপাতত দু’জনে ছুটির আমেজে একে অপরের প্রতি ভালোবাসায় ডুবে আছেন,আর খুঁজে নিচ্ছেন উষ্ণতা!