টলিউড

অবশেষে স্বীকৃতি পেল যশের প্রথম পক্ষের বড় ছেলে, সংবাদমাধ্যমের সামনে প্রকাশ্যেই নিজের বড় ছেলের কথা স্বীকার করলেন অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত, উঠে এলো যশের পূর্বজীবনের সমস্ত গল্প

নুসরাত জাহানের সন্তানের পিতৃপরিচয় সামনে আসতেই সোশ্যাল মিডিয়া এবং সংবাদমাধ্যমে শুরু হয়ে গিয়েছে শোরগোল। নানা রকমের প্রশ্ন তর্ক-বিতর্ক একেবারে ঘিরে ধরেছে যশ এবং নুসরাত কে। তবে এই সবের মাঝে যশ দাশগুপ্তের আগের জীবন নিয়ে নতুন করে জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে যশের প্রাক্তন স্ত্রী শ্বেতা সিং কালহানস প্রথমবারের জন্য স্বীকার করেন যে তিনি যশ দাশগুপ্তের প্রথম পক্ষের স্ত্রী এবং শুধুমাত্র তাই নয় তাদের ন বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে বলে জানান তিনি। সম্প্রতি সেই নিয়ে নিজেও বেশ কিছু তথ্য সংবাদমাধ্যমকে দিয়েছেন যশ।

গত বুধবারই নুসরাত জাহানের সন্তানের পিতৃপরিচয় ফাঁস হয়ে যায়। তারপর থেকে যশ বা নুসরাত কেউই খোলাখুলিভাবে এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করেননি। তবে ঈশানের জন্ম সার্টিফিকেট থেকে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে আসল সত্যিটা। এই মুহূর্তে নিজের দায়িত্ব ভালোভাবে পালন করছেন যশ, এর পাশাপাশি নিজের অভিনয় জগতে ফিরেছেন তিনি। তার আগামী ছবি ‘চিনেবাদাম’ র জন্য কাজ করছেন। সেখানে সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারের যশ কে কিছু প্রশ্ন করা হয়। ‘এই ব্যস্ত জীবনে অনেকটা সময় ঈশান নিয়ে নিয়েছে, কেমন কাটছে আপনার দিন?’ যশ জানান ‘বেশ ভালোই কাটছে দিনগুলো, ঈশান অনেকটাই সময় নিয়ে নিয়েছে এখন, তবে বর্তমানে তার ক্লান্তি স্ট্রেস সমস্তটাই দূর মোক্ষম ওষুধ হল করার ঈশান।’ এরপর সংবাদমাধ্যম যশ কে জিজ্ঞাসা করে ঈশান একই দিনে কতটা বড় হয়েছে? অভিনেতা জানান “ঈশান মাত্র পনের দিনের, এই কদিনেই কোন চেঞ্জ আসেনা আমার ন বছরের একটি ছেলে রয়েছে সেও যথেষ্ট ছোট এই কয়েক বছরে কোন পরিবর্তনই আসেনা বাচ্চাদের মধ্যে। এই প্রশ্নগুলি একেবারেই অর্থহীন।” এতদিন পর্যন্ত নিজের বিবাহিত জীবন নিজের প্রথম সন্তান সবকিছুকেই গোপন রেখেছিলেন অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত। বর্তমানে সংবাদমাধ্যমের সামনে ঈশানের পাশাপাশি নিজের প্রথম পক্ষের ছেলেকেও স্বীকৃতি দিলেন তিনি।

যশ দাশগুপ্তের প্রথম সন্তান স্ত্রী এই সমস্ত বিষয়ে কেউ জানতেন না, এমনকি গুগলের কাছে কোনো তথ্য ছিল না এই বিষয়ে সমস্ত বিষয়ই গোপন ছিল। বেশ কয়েক বছর আগেই মুম্বাইতে থাকাকালীন শ্বেতাকে বিয়ে করেন যশ, এরপরে তাদের একটি পুত্র সন্তান হয়। তবে সন্তানের বয়স যখন দুই, শ্বেতা এবং যশ এর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। টলিউডে আসার আগেই যশ এবং শ্বেতার মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

টলিউডে আসার আগে মুম্বাইয়ের টেলিভিশন জগতে কাজ করতেন যশ। ‘না আনা ইস দেশ লাডো’ ধারাবাহিকে শ্বেতা এবং যশ একসঙ্গে কাজ করেন, সেখানেই তাদের আলাপ। তারপর বন্ধুত্ব এবং বিয়ে। বিচ্ছেদের পরে যশ এর বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসা মামলার অভিযোগ দায়ের করে শ্বেতা এর পর বেশ কিছু দিন পুলিশ হেফাজতে থাকতে হয়।

এরপর ২০১৩ সালের প্রথম টেলিভিশনে ছোটপর্দায় ‘বোঝেনা সে বোঝেনা’ ধারাবাহিক এর মাধ্যমে জনপ্রিয়তা পায় যশ। সেই বছরই শ্বেতা এবং তার পুরোপুরি বিচ্ছেদ ঘটে। তারপর থেকে সন্তানকে নিজের কাছেই রেখেছিলেন যশ। শ্বেতা ফিরে গিয়েছিলেন মুম্বাই, এমনটাই খবর জানা গিয়েছে সংবাদমাধ্যমের তরফ থেকে।

Back to top button