৭৪ জন বাচ্চার গর্বিত ‘মা’ ঋতাভরী চক্রবর্তী, আবেগঘন পোস্ট অভিনেত্রী

টলিপাড়ার স্টাইল আর ফ্যাশন আইকন বলতেই প্রথমে মাথায় আসে অভিনেত্রী ঋতাভরীর নাম। এই অভিনেত্রীর প্রত্যেকটি পোস্ট রীতিমতো আগুন ধরায় সোশ্যাল মিডিয়ার পাতাতে। ঋতাভরীর কোনও ছবি পোস্ট হতে না হতেই ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল দুনিয়াতে। একের পর এক বোল্ড ছবি দিয়ে নেট জনতার ঘুম কেড়েছেন তিনি। সব সাজেই একশোতে একশো। কখনো শাড়ির সাজে তো কখনো উষ্ণ অবতারে গোটা সোশ্যাল মিডিয়া মাতিয়ে রেখেছেন ঋতাভরী নিজে একাই। গা গরম করা হট ফোটোশুটে নজর আটকেছে নেটিজেনদের। তবে অভিনেত্রীর এসব ছাড়াও আরো অনেক গুণ আছে।

অন্য সেলিব্রেটিরা নিজের জন্মদিনে এলাহি পার্টি করতে ভালোবাসেন কিন্তু তিনি অন্যদের মতো পার্টি না করে ওই দিনটাতে স্কুলের বা অনাথ আশ্রমের বাচ্চাদের কাছে ব্যাগ ভর্তি উপহার নিয়ে পৌঁছে যান তিনি। গোটা দিন বাচ্চাদের সাথে সময় কাটাতে বেশি পছন্দ করেন অভিনেত্রী। আবার প্রান্তিক গ্রামে মেয়েদের স্যানিটারি ন্যপকিনের ব্যবহার সমন্ধে অবগত করতে ভোলেননি।

গতকাল ছিল কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মতিথি। পাশাপাশি কাল পালিত হয়েছে মাতৃ দিবস । হ্যাঁ যে মা তাঁর শিশুর জন্মের প্রতিটি মুহূর্ত বুকে আগলে মানুষ করে। মা শব্দটা অনেক ছোট্ট কিন্তু এই শব্দের মধ্যেই রয়েছে এক মায়ের আর সন্তানের গোটা পৃথিবী। সন্তানের জন্মের আগে থেকে গর্ভধারণের সেই ৯ মাসে মা হয়ে যায়। তবে জন্ম দিলেই যে মা হওয়া যায় তা কিন্তু নয়। মনের মিল আর ভালোবাসাতেও মা হওয়া যায়। যেমন এই টলি ডিভা ঋতাভরী এই প্রসব না করেই ৭৪ জন বিশেষভাবে সক্ষম শিশুর মা হয়ে উঠেছেন।

কিভাবে? ভাবছেন তো। খোলসা করে বলা যাক। সল্টলেকের ‘আইডিয়াল স্কুল ফর দ্য ডেফ’-এখান থেকেই অভিনেত্রীর যাত্রা শুরু মা হওয়ার। অভিনেত্রী মাত্র ১৬ বছর বয়স থেকেই এই স্কুলের সাথে যুক্ত হন। বয়স বাড়ার সাথে সাথে সময়ের এই স্কুলের বাচ্চাদের সাথে সম্পর্ক আরও গভীর হয়েছে। এবার অভিনেত্রী ৭৪ জন বিশেষভাবে সক্ষম পড়ুয়ার মা হয়েছেন। এই সন্তানদের যাবতীয় দায়ভার নিজের কাঁধেই তুলে নিয়েছেন অভিনেত্রী। এই স্কুলের পড়ুয়াদের সুখ-দুঃখের নানা মুহূর্তের সঙ্গী ছিলেন ঋতাভরী। এদের পড়াশোনার জন্য লাইব্রেরি তৈরি করে দিয়েছেন, কখনও আবার সান্তা ক্লজ সেজে বড়দিনের উপহারও দিয়েছেন।

গত কাল অভিনেত্রী এই বাচ্চাদের সাথে কাটানো একটি মিষ্টি ভিডিও শেয়ার করেছেন। তবে তিনি এও বললেন এই মহামারীর কারণে একবছর ধরে স্কুলে যেতে পারেননি ঋতাভরী। এই বাচ্চাদের তিনি ভীষণভাবে মিস করছেন। তবে সুরক্ষার জন্য এখন কিছু করার নেই। এদের ভালো জন্য দূরে থাকতে হবে। পাশাপাশি ক্যপাশানে লিখলেন, “৭৪ জন বিশেষ সন্তানের গর্বিত মা আমি। শুভ মাতৃ দিবস।” এই বিশেষ দিনে নিজের মা শতরূপা সান্যালকেও মিষ্টি একটি ভিডিয়ো করে মাধ্যমে মাতৃদিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ঋতাভরী।