বলিউড

‘এখানে গোঁজামিল দেওয়ার চল খুব আছে, কিন্তু ওখানে তা নেই’, এবার বলিউডে পারি টলিউডের খুদে ষ্টার অরিত্রর, প্রথম বলিউডে শুটিং এর অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নিলেন অরিত্র দত্ত বণিক

এবার অরিত্র দত্ত বণিক এর যাত্রা বলিউডে। এতদিন টলিউডে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন অভিনেতা অরিত্র দত্ত বণিক। সবার প্রথমে জি বাংলার ডান্স বাংলা ডান্সের সঞ্চালক হিসেবে দেখা গিয়েছিল খুদে অরিত্রকে। তারপর থেকেই তাঁর অভিনয় জগতে পথচলা শুরু। এবার নিজে অভিনয় দক্ষতায় অরিত্র জায়গা করে নিলেন বলিউডে।

এই প্রথম বলিউডের একটি ওয়েব সিরিজে কাজ করেছেন অরিত্র। ওয়েব সিরিজের কাজের দরুন মুম্বাই রাজস্থানের বিভিন্ন অংশে এতদিন ঘুরে বেরিয়েছেন। সেই শুটিং প্রায় শেষের দিকে। শুটিং শেষ হলে কেককেটে শুটিং সেটাই শুভেচ্ছা জানানো হয় অরিত্রকে। এর জন্য আপ্লুত অভিনেতা। কেক কাটা সেই বিশেষ মুহূর্ত সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করে অভিনেতা ক্যাপশনে লিখেছেন,‘অভিনেতা হিসেবে বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে এটাই আমার প্রথম স্ক্রিন অ্যাপিয়ারেন্স। একমাত্র আমিই সেটে অভিনেতা এবং টেকনিশিয়ান, দুটো পরিচয় পত্র নিয়ে ঘুরছিলাম। আমার শুটিংয়ের শেষ দিন টেকনিশিয়ানরা ১৫ মিনিটের অফিশিয়াল ব্রেক ঘোষণা করেছিলেন। আমার শুটিং শেষ হওয়াটা কেক কেটে সেলিব্রেট করার জন্য এই ব্রেক। অনেক হাততালি, আশীর্বাদ…। এই দিনটা সারাজীবন আমার সঙ্গে থেকে যাবে। এই ওটিটি প্রজেক্টে আমাকে সুযোগ দেওয়ার জন্য প্রযোজক, পরিচালক, ট্যালেন্ট ম্যানেজার সকলের কাছে আমি কৃতজ্ঞ।’ আপাতত জানা যাচ্ছে এই প্রজেক্ট মুক্তি পেতে লাগবে এক বছর।

তবে কোন ওয়েব সিরিজ বা কোন চরিত্রে তিনি কাজ করেছেন তা এখনই কিছু বলতে চান না সংবাদমাধ্যমে। সংবাদমাধ্যমের কাছে দেয়া আগে এক সাক্ষাৎকারে অভিনেতা অরিত্র বলেছিলেন, “এটা বলিউডের হিন্দি ওয়েব সিরিজ। বলিউডে অভিনেতা হিসেবে এটা আমার ডেবিউ। করোনার আগেই হওয়ার কথা ছিল। করোনা হওয়ার পর অনিশ্চয়তা গ্রাস করেছিল। এখন শুটিং চলছে। যেভাবে আমাকে নির্দিষ্ট ফর্ম্যাটে দেখে এসছেন মানুষ, পাকা বাচ্চা বা কমেডি, সেটা থেকে বেরতে চাইছিলাম আমি। সেটার সুযোগ পেয়েছি।”

এই ওয়েব সিরিজে একমাত্র বাঙালি অভিনেতা অরিত্রই। ইয়ংস্টারদের নিয়ে গল্প বলবে এই ওয়েব সিরিজ। কোনরকম ফ্যামিলি ড্রামা নয়। তবে এই সুযোগ অভিনেতা কিভাবে পেলেন সেই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, “অডিশন মুম্বইতে হয়েছিল। এর আগে ‘কাহানি ২’-এর জন্য অডিশন দিয়েছিলাম। সেখানে সুযোগ পাইনি। সেই ক্লিপ মুম্বইয়ে পাঠিয়েছিলাম। সেখান থেকে এই প্রজেক্টের জন্য ডেকেছিল আমাকে।”

বলিউডে পা রেখে একেবারে ভিন্ন অভিজ্ঞতা হয়েছে অভিনেতা অরিত্রর। শুটিং শুরুর আগেই দীর্ঘদিন ধরে রিহার্সাল করতে হয়েছে তার চরিত্রের। সেই রিয়ার্সাল হয়েছে মুম্বাইতে। অভিনেতাদের সাথে প্রোডাকশন হাউজের সম্পর্ক একদম অন্যরকম। তবে কি খুব বেশী প্রফেশনাল তারা! এই প্রসঙ্গে অভিনেতার বক্তব্য, “প্রফেশনাল বলে দাগিয়ে দেওয়াটা ঠিক হবে না। অনেক বেশি স্ট্রাকচার্ডড।”

অভিনেতা অরিত্রর আরো সংযোজন, “বাজেট নিশ্চিত বড় বিষয়। সেটা অস্বীকার করার কারণ নেই। ওখানে অভিনেতা হিসেবে পৌঁছনোর পর মেকআপ বা হেয়ার কোনও কিছুরই দায়িত্ব আমাকে নিতে হচ্ছে না। এখানে যেটা হয়, ঘড়ি আনিনি, কন্টিনিউইটি মিস হয়ে গেল। এগুলো তো অনেক ফেস করেছি। ওখানে নিজে হাজির হওয়াটার পর ওদের দায়িত্ব। আর একটা বিষয়, এখানে গোঁজামিল দেওয়ার প্রবণতা রয়েছে। কিছুটা টাকার কারণেই। এটা কলকাতায় আমাদের অভ্যেস হয়ে গিয়েছে। ‘ও হয়ে যাবে।’ ‘চালিয়ে নেব আরকি।’ ওখানে দেখলাম যে জুতো, যে জামা, যে চশমা পরার কথা সেটা যদি ছোট হয়, একেবারে সেটা বড় করে এনেই শুটিং হবে। সেফটিপিন মেরে চালিয়ে দিলাম, ওসব হবে না।”

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Back to top button