ছয় মাস পেরিয়ে গেলেও মেলেনি বিচার, সুশান্ত মামলায় সমবেত আওয়াজ তোলার ডাক শেখর সুমনের

চলতি বছর প্রায় গোটা পৃথিবীকেই বয়ে চলতে হচ্ছে প্রভূত নেতিবাচকতা৷ একেই করোনা আবহে সংকটে মানবসমাজ৷ চলেছে একের পর এক মৃত্যুমিছিল৷ বাদ পড়ছেন না তারকারাও৷ লকডাউনে ঘরে বন্দীত্ব দশা কাটিয়ে সকলে যখন বিষাদে ভুগছেন ঠিক সেইসময়েই জুন মাসের এক দুপুরে জানা যায় বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত আত্মহত্যা করেছেন৷ স্তব্ধ হয়ে যায় বলিউড থেকে সাধারণ মানুষেরাও৷ সুশান্তের অনুরাগীরা ভেঙে পড়েন,শোকের ছায়া নেমে আসে রাজপুত পরিবারেও!

গত ১৪ই জুন এই ঘটনাটি ঘটে ৷ তার দেহ উদ্ধার করা হয় মুম্বাইয়ে তার ফ্ল্যাট থেকে৷ সুশান্তের মৃত দেহের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় অনেকে অনেকরকম প্রশ্ন তোলে৷ একপক্ষ দাবী করে যে এসএসআরকে আসলে খুন করা হয়েছে,আত্মহত্যা তিনি করতেই পারেন না৷ এ নিয়ে জলঘোলা হয় প্রচুর৷ এরপর থেকেই উত্তাল হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়া৷ সুশান্তের মৃত্যুরহস্য জানতে চাওয়ার পাশাপাশি তারা চেয়েছিল বিচার৷ প্রাথমিকভাবে প্রায় সকলেই দায়ী করে অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে,কারণ সুশান্তের সাথে বেশ অনেকদিনই সম্পর্কে ছিলেন রিয়া৷

সুশান্তের মৃত্যুর ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে বলা হয়েছিল তিনি আত্মহত্যাই করেছেন৷ তবে সুশান্তের পরিবার আর অনুরাগীরা এ রিপোর্ট মানতে নারাজ ছিল৷ তাদের প্রচেষ্টায় তদন্তভার যায় সিবিআই—এর হাতে৷ AIIMS—এর ফরেন্সিক টিম আবার নতুন করে ভিসেরা পরীক্ষা করে৷ তবে তখন তারা অভিনেতার দেহের ৭৫শতাংশ ভিসেরা নমুনা ব্যবহার করেন,বাকি ২৫শতাংশ সংরক্ষণ করেও রাখেননি৷ ফলে শেষে তারাও জানায় যে সুশান্ত আত্মহত্যাই করেছিলেন৷ খবর প্রকাশ্যে আসার পর সব ঝড় থেমে যায়৷ জামিন পায় রিয়া ও তার ভাই৷

তারপর কেটে গেছে ছয়মাস৷ মৃত্যুরহস্য অধরাই থেকে গেল৷ সম্প্রতি সিবিআইয়ের কাছে সুশান্তের মৃত্যু রিপোর্ট চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থে মামলা দায়ের করা হয়৷ সুশান্তের মৃত্যু আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত খুন এ নিয়ে যারা সরব হয়েছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম শেখর সুমন৷ সম্প্রতি তিনি টুইট করে লেখেন,”এসএসআর চলে গিয়েছে আমাদের ছেড়ে প্রায় অর্ধেক বছর কেটে গেল৷ কালপ্রিট কারা? এখনও কীসের জন্য জাস্টিস চেয়ে কেঁদে চলেছি?” পাশাপাশি তিনি আবারও সমবেতভাবে আওয়াজ তোলার ডাক দিয়েছেন৷ এমনকি সংবাদপত্র সহ বিভিন্ন মিডিয়ামাধ্যমকে অনুরোধ করেছেন সুশান্তের মৃত্যুরহস্য নিয়ে সরব হতে৷ বিচার চেয়ে সোচ্চার হতে আহ্বান জানান শেখর সুমন৷ তিনি বলেন,”জাস্টিস ইস ডিলেইড ইজ জাস্টিস ডিনায়েড৷”