বলিউড

আমার দিদি জামাইবাবু খুব কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে! বিগ বসের ঘরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন শমিতা শেট্টি

টেলিভিশন জগতের অন্যতম জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো হোলো বিগ বস। এই রিয়েলিটি শো-টি কোন না কোন কারনে চর্চিত থাকে মানুষের মাঝে। এই রিয়েলিটি শোয়ের ক্রেজ মানুষের মধ্যে রয়েছে ভীষণভাবে। বিগ বসের এটি ১৫ নম্বর সিজন।

প্রতিটা সিজনে বিভিন্ন ধরনের তারকাদের জন্য বিভিন্নভাবে চর্চিত হয় এই রিয়েলিটি শো-টি। এই শো-তে প্রতিযোগীদের বিভিন্ন ধরনের টাস্ক দেওয়া হয় যেগুলো তাদের শেষ করতে হয়। এক্ষেত্রে এলিমিনেশন পর্ব থাকে। শেষ পর্যন্ত যে টিকে থাকতে পারে সেই হয় ঐ সিজনের বিগ বসের উইনার।

সম্প্রতি বিগ বসের সমস্ত দর্শকদের অপেক্ষার অবসান ঘটেছে। ওটিটি প্লাটফর্ম ভুটে সম্প্রচারিত হওয়া শুরু হয়েছে ‘বিগ বস ওটিটি’-র। এই সিজনে বিগ বসের সঞ্চালনার দায়িত্বে রয়েছেন বহুল পরিচিত বলিউডের পরিচালক কারাণ জোহার। বিগবসের প্রতিটি এপিসোডে থাকে নতুন নতুন চমক। বিগ বস শুরু হওয়ার পর থেকেই খুশি হয়েছেন বিগ বসের দর্শকরা।

ভুটের অফিশিয়াল ইনস্টাগ্রাম পেজ থেকে দুটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে শিল্পা শেট্টির বোন শামিতা শেট্টির সঙ্গে মুসকান নামে অন্য এক প্রতিযোগীর সঙ্গে তার তুমুল কথা কাটাকাটি চলছে। অন্য ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে সঞ্চালক কারাণ জোহারের কাছে সকলের সামনে বসে তার ওই ব্যবহারের বিবৃতি দিচ্ছেন শামিতা শেট্টি।

বিগ বসে আসার পর থেকেই ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকবার মেজাজ হারিয়েছেন শামিতা শেট্টি। বিগ বসে শামিতা শেট্টিকে রাকেশ বাপতের সঙ্গে একটি বিশেষ টাস্ক দেওয়া হয়েছিল। সেই টাস্ক করতে গিয়ে কার্যত ঝগড়ার মেজাজে নিশান্ত ও শামিতাকে কথা বলতে দেখা যায় এবং এরপরই তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। পরে এই পুরো বিষয়টির জন্য বিগ বসের এবারের সঞ্চালক কারাণ জোহারের কাছে বিবৃতিতে জানাতে হয় শামিতা শেট্টিকে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এই দুটি ভিডিও দেশ ভাইরাল হয়েছে। এবারের বিগ বসে শামিতা শেট্টি বারবার মেজাজ হারাচ্ছেন। এর কারণ হিসেবে অনেক নেটিজেনদের মনে হয়েছে অভিনেত্রী বর্তমানে তার পরিবারের দিক দিয়ে অনেক কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। কারণ তার দিদি শিল্পা শেট্টি স্বামী রাজ কুন্দ্রা বর্তমানে পর্ন কান্ডের জন্য পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Voot (@voot)

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Voot (@voot)

Back to top button