বলিউড

অ্যাডাল্ট অ্যাপ থেকে দিনে ৬-৮ লক্ষ টাকা উপার্জন ছিল রাজ কুন্দ্রার, উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

গত ১৯ শে জুলাই রাজ কুন্দ্রা কে পর্ণগ্রাফি ভিডিও বানানোর অপরাধে মুম্বাই পুলিশ গ্রেপ্তার করে। পুলিশি তদন্ত অনুযায়ী সমস্ত প্রমাণ রাজ কুন্দ্রার বিরুদ্ধে রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এই ব্যবসা থেকে রাজ কুন্দ্রা দিনে প্রায় ৬ থেকে ৮ লক্ষ টাকা উপার্জন করতো বলে জানিয়েছেন।

মুম্বইয়ের যুগ্ম নগরপাল মিলিন্দ ভারাম্বে বলিউডলাইফকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি নিজে এই কথা স্বীকার করেন। রাজের এক আত্মীয় ব্রিটিশ যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা প্রদীপ বক্সির সঙ্গে এই ব্যবসায় জোট বেঁধেছিলেন বলে জানান তিনি।

মুম্বাই পুলিশের তদন্ত অনুযায়ী হাজার হাজার কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে এই ব্যবসাতে, সেই প্রমাণ রয়েছে পুলিশের হাতে। এই সব কিছুই নথিভুক্ত করা হচ্ছে এগুলি সবকটা অপরাধের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবে। এখনো পর্যন্ত মুম্বাই পুলিশ রাজ কুন্দ্রার অ্যাকাউন্ট থেকে ৭.৫ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে।

পুলিশি তদন্ত থেকে জানা যায় যে দুটি কোম্পানির আর্মস প্রাইম লিমিটেড দ্বারা নির্মিত ‘হটশটস ডিজিটাল বিনোদন’ নামে একটি মোবাইল অ্যাপ ছিল।

হটশটস অ্যাপটিকে “বিশ্বের প্রথম 18+ অ্যাপ্লিকেশন” হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে যা একচেটিয়া ফটো, শর্ট ফিল্ম এবং হট ভিডিওতে বিশ্বব্যাপী কয়েকটি হট মডেল এবং সেলিব্রিটিদের প্রদর্শন করে।

পরবর্তীকালে রাজ কুন্দ্রা এই অ্যাপটি প্রদীপ বক্সি কে ২৫ হাজার মার্কিন ডলারের বিক্রি করে দেয়। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে রাজ ওই অ্যাপ থেকে বেরিয়ে আসে। ওই অ্যাপ থেকে বেরিয়ে আসলেও অ্যাপ এ সমস্ত কাজকর্ম রাজের ইশারাতেই চলত, তিনি সমস্ত কর্মকান্ডের খবর রাখতে সেই প্রমাণ উঠে এসেছে হোয়াসঅ্যাপ চ্যাট এর মাধ্যমে।

দুই হাজার কুড়ি সালের জুন মাসে শালীনতার মাত্রা অতিরিক্ত ছাড়িয়ে যাওয়ার পর গুগল প্লে স্টোর ও অ্যাপেল প্লে ষ্টোর থেকে এই অ্যাপটি সরিয়ে দেয়া হয়।

প্রেস এর সাথে সাক্ষাৎকারের সময় পুলিশ আরও প্রকাশ করেছিল যে কীভাবে পুরো ভারত থেকে মুম্বাইয়ে আসা নতুন বা উচ্চাকাঙ্ক্ষী অভিনেত্রীদের শর্ট ফিল্ম, ওয়েব সিরিজ এবং অন্যান্য সিনেমাতে কাজের অফারে প্রলুব্ধ করা হয়েছিল।

তাদের অডিশনের জন্য ডেকে আনা হয়েছিল এবং নির্বাচনের পরে সাহসী দৃশ্যাবলী করার পরে এগুলি অর্ধ-নগ্ন এবং পরে পুরো নগ্ন কান্ডের দিকে চলে যায়। তাদের মধ্যে কেউ কেউ এর তীব্র বিরোধিতা করেছিল এবং পুলিশের কাছে গিয়েছিল। তবে রাজ কুন্দ্রা সহযোগীরা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

Back to top button