বলিউড

‘ওর বাবা নিজের মেয়েকে বিয়ে করতে চেয়েছিল’, আলিয়ার ‘কন্যাদান’ বিরোধী বিজ্ঞাপন নিয়ে বিতর্ক তৈরি হতেই উঠে এল ভাট পরিবারের অতীত অধ্যায়

কিছুদিন আগে আলিয়া ভাট একটি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছিলেন, যে ভিডিওর বার্তা ছিল কন্যাদান নয় কন্যামান অর্থাৎ কন্যা কোন দান করা জিনিস নয়। বিজ্ঞাপন ভিডিওটি একটি পোশাকের ব্র্যান্ডের কোম্পানির হয়েছিল বিজ্ঞাপনের মুখ ছিলেন আলিয়া এবং বিজ্ঞাপন ভিডিওটিতে নামই পোশাকের পাশাপাশি কন্যাদান এর নিয়মের বিরুদ্ধেও বিরোধিতা করা হয়েছে। যার জন্য আলিয়াকে হিন্দু বিরোধী এবং ভুয়ো নারীবাদীর তকমাও পেতে হয়েছে।

এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে চিরচরিত হিন্দু ধর্মের বিয়ের নিয়মে ভাঙ্গন ধরেছে। এ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে নেটিজেনদের একাংশের থেকে প্রশংসা পেলেও বেশিরভাগ মানুষেরাই এই বিজ্ঞাপনের বিরোধিতা করেছেন। আর এই নিয়ে ব্যক্তিগত আক্রমণের শিকার হতে হয়েছে আলিয়া ভাটকে। তার বংশ পরিচয় থেকে কটুক্তি নিয়ে তার বাবার অতীতের কথা তুলে ধরা হয়েছে এই বিজ্ঞাপনের জন্য।

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় পরিচালক মহেশ ভাট এর দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রীর সন্তান হল আলিয়া ভাট। আগে তার প্রথম পক্ষের স্ত্রী এর দুটি সন্তান পূজা ভাট এবং রাহুল ভাট। ৯০ দশকের একটি নামী ম্যাগাজিনের কভার পেজে পূজা ভাট এবং মহেশ ভাটের ঘনিষ্ঠ ছবি উঠে এসেছিল। সেই সময় ম্যাগাজিনের কভার পেজে মহেশ ভাট কে পূজা ভাটের ঠোঁটে গভিরভাবে চুমু খেতে দেখা গিয়েছিল। সেই নিয়ে বেশ দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে সমালোচনা চলেছিল, এমনকি খবর সূত্র জানা গিয়েছিল মহেশ ভাট নাকি তার মেয়ে পূজা ভাট কে বিয়ে করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন।

তিনি প্রকাশ্যেই সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন পূজা যদি তার মেয়ে না হতো তাহলে তিনি পূজা কে বিয়ে করতেন। এই ধরনের কথা বিরাট গুঞ্জন শুরু হয়ে গিয়েছিল ইন্ডাস্ট্রি এবং সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। তখন মহেশ ভাটের ওপর সকলেই রাগে ক্ষোভে ফেটে পড়েছিলেন এই ধরনের নোংরা মানসিকতার জন্যই তিনি বারবার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন। এক্ষেত্রেও আলিয়ার বাবার অতীত তুলে আলিয়াকে কটাক্ষ করা হয়েছে।

নেটিজেনদের দাবি কন্যাদান যদি সামাজিক বিরোধিতা হয় তাহলে নিকাহ, মেহার এবং একাধিকবার বিয়ে সামাজিক বিরোধিতার মধ্যে পড়ে। জানা যায় মহেশ ভাট নাকি তার প্রথম পক্ষের স্ত্রী কিরণকে কোনদিনও ডিভোর্স দেন নি। পরে সোনি রাজদান কে বিয়ে করার জন্য নিজের মায়ের ধর্ম গ্রহণ করেন মহেশ। ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে আশরাফ ভাট নাম পরিবর্তন করে সোনি রাজদান কে বিয়ে করেন।

এর আগেও টলিউডের জনপ্রিয় হিট ছবি ‘ব্রহ্মা জানে গোপন কম্মটি’ নিয়ে নানা বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। ছবি থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে টলিউডের অনেক জুটি নিজেদের বিয়ের নিয়ম থেকে কন্যাদান বাদ দিয়েছেন এবং সকলকে বার্তা দিয়েছেন কন্যাদান কোন রীতি নয় অন্যান্য সামগ্রী নয়। এর আগেও এই নিয়ে বিতর্ক ছড়ালেও আলিয়া ভাটের নতুন বিজ্ঞাপন সামনে আসার পর যেন এ নিয়ে আরো বেশি করে বিতর্ক তৈরি হচ্ছে। বিশেষ করে হিন্দু সমাজ ধর্মীরা প্রচন্ডভাবে কেঁপে আছে বলিউডের এই অভিনেত্রীর উপরে।

Back to top button