বলিউড

ট্যালেন্ট এর কোনো বয়স হয়না! মাত্র ১৯ বছর বয়সী যুবক KGF 2 এডিটিং এর দায়িত্বে ছিল, জেনে নিন তার পরিচয়

বর্তমানে একের পর এক দক্ষিণী সিনেমাগুলি হিট হচ্ছে। বলিউড কোনভাবেই দক্ষিণের সিনেমা গুলির কাছে ঘেষতে পারছেনা। যার ফলে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে নেমে এসেছে ভয়ের আশঙ্কা কারণ যখনই কোন দক্ষিণী ছবি মুক্তি পাচ্ছে বক্সঅফিসে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করছে এই ছবিগুলি। যেমন এক মাসের মধ্যেই মুক্তি পেল আরআরআর, পুষ্পা এবং কেজিএফ চ্যাপটার টু। এই তিনটি ছবি বক্স অফিসে বর্তমানে রমরমিয়ে চলছে। সম্প্রতি কয়েকদিন আগে কেজিএফ চ্যাপটার টু মুক্তি পেয়েছে এবং মুক্তি পাওয়ার সাথে সাথেই দর্শকদের উপচে পড়া ভিড় দেখা গিয়েছে প্রতিটি সিনেমা হলে। ফুল অন অ্যাকশনে ভরা এই ছবি দর্শকদের দারুণভাবে আকৃষ্ট করেছে। এছাড়াও এই ছবিতে নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করছেন সুপার স্টার যশ। ভিএফএক্স এডিটিংয়ের জন্যই ছবিটি আরও বেশি হিট হয়ে গিয়েছে।

ছবিতে অ্যাকশন দৃশ্যগুলোতে দারুণভাবে এডিটিংয়ের কাজ করা হয়েছে। ছবিটি মোট ৩০০ কোটি টাকা দিয়ে বানানো এবং এই ৩০০ কোটির বেশিরভাগটাই খরচা হয়েছে এডিটিং এর ক্ষেত্রে। আর হয়তো অনেকেই জানেন না যে মাত্র ১৯ বছরের এক যুবক এই গোটা সিনেমার এডিটিং এর দায়িত্বে ছিল। কি অবাক হচ্ছেন নিশ্চয়ই? তবে হ্যাঁ এটাই সত্যি, এই গোটা ছবিটা এডিট করেছে একা ১৯ বছরের যুবক। এই খবর সামনে আসার পর প্রত্যেক নেটিজেন অবাক হয়ে গিয়েছেন।

১৯ বছর বয়সী যুবক উজ্জ্বল কুলকার্নি এই গোটা ছবি এডিটিং এর দায়িত্বে ছিল। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির জগতে এত বড় একটা বাজেটের সুপারহিট ছবি এডিটিং করা চাট্টিখানি ব্যাপার নয়। আর তাছাড়া উনিশ বছরের এই যুবকের হাতে এডিটিং এর দায়িত্বে নিয়ে দিয়ে বিশাল বড় একটা ঝুঁকির মধ্যে ছিলেন পরিচালক থেকে প্রযোজক প্রত্যেকে। কিন্তু অবশেষে সেই ঝুঁকি সার্থক হয়েছে তা বোঝা গিয়েছে বক্সঅফিসে কেজিএফ চ্যাপটার টু মুক্তি পাওয়ার পরই। দক্ষিণ ভারতীয় ছবি হলেও বিভিন্ন ভাষাতেই ভারতবর্ষের বিভিন্ন রাজ্যে মুক্তি পেয়েছে এই ছবি। আর প্রথম দুদিনেই বক্সঅফিসে মোট ১৬৪ কোটি টাকার ব্যবসা করেছে কেজিএফ চ্যাপটার টু। আর ছবি সুপারহিট হবার সাথে সাথেই এডিটিং এর দায়িত্বে থাকা উজ্জ্বল কুলকার্নি রীতিমতো দর্শকের লাইমলাইটে চলে এসেছে, প্রত্যেকেই তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

উজ্জল এর আগেও বিভিন্ন শর্টফিল্ম ফ্যান ভিডিও এডিটিং ইত্যাদি বানিয়েছে। আর তার এই এডিটিং দেখেই তাকে কেজিএফ চ্যাপটার টু ছবির মত বড় বাজেটের একটি ছবি এডিট করার অফার দেয়া হয়। আর তার প্রথমেই বড় বাজেটের কাজ সার্থক। উল্লেখ্য কেজিএফ চ্যাপটার ওয়ান মুক্তি পাওয়ার সময় দারুণভাবে জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়েছিল দর্শকমহলে। তাই কেজিএফ চ্যাপটার টু বানানোর কথা ভেবেছিলেন পরিচালক-প্রযোজক প্রত্যেকে। বহু আগেই এই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল কিন্তু করোনাকালীন পরিস্থিতিতে কোনভাবেই মুক্তি হতে দেরি হয়েছিল। ২০১৮ সালে মুক্তি পেয়েছিল কেজিএফ চ্যাপটার ওয়ান। তারপরে আবার দীর্ঘ চার বছর পর মুক্তি পেল কেজিএফ চ্যাপটার টু।

Back to top button