বলিউড

‘জোর করে নেশা করিয়ে অজান্তেই নগ্ন ভিডিয়ো তোলা হয়’, বলিউডের আসল চেহারা ফাঁস করে দিলেন অভিনেত্রী শ্রুতি

রাজ কুন্দ্রার গ্রেপ্তারের পর থেকে একের পর এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা বেরিয়ে আসছে। বেরিয়ে আসছে বলিউডের জঘন্যতম রূপ। এর আগে রাজের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন শার্লিন চোপড়া এবং পুনম। এবারে এ বিষয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী শ্রুতি গেরা।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পরিচিত মুখ শ্রুতি গেরা বলেছেন, “রাজ কুন্দ্রার অ্যাপের ভিডিওতে অভিনয় করার জন্য আমাকেও প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। যদি আমাকে বলা হয়েছিল ওয়েব সিরিজের জন্য ডাকা হচ্ছে আমায়।” এই মুহূর্তে রাজের ব্যাপারে সব খবর শুনে অভিনেত্রী শ্রুতির একটাই কথা মনে হচ্ছে, “ওদের থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে নিরাপদ রাখতে পেরেছি। এটাই আমার সৌভাগ্য।”

অভিনেত্রী জানান, একাধিক কাস্টিং নির্দেশক এর কাছ থেকে অভিনেত্রীর কাছে ফোন এসেছিল। তবে সব প্রস্তাবই অভিনেত্রী ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। অভিনেত্রী বলেছেন, ‘‘আমরা সবাই জানতাম, রাজ কুন্দ্রার বিশাল নাম। কিন্তু দেখা গেল, তিনি পর্ন বানাতেন!’’

বলিউডে ছোট শিল্পীদের কাজের সুযোগের জন্য সঙ্গমের প্রস্তাব দেয়া এটা এমন কিছু বড় ব্যাপার না। সোমি আলি থেকে সবাই এই বিষয়টি সামনে এনেছেন। সোমি আলি বলেছিলেন, “আমায় কাজের জন্য বিখ্যাত প্রযোজকেরা সঙ্গমের প্রস্তাব দিয়েছিলেন।” এ প্রসঙ্গে মুখ খোলেন শ্রুতিও, বলেন, ‘‘জোর করে নেশা করিয়ে তাঁদের অজান্তেই আপত্তিকর ভিডিয়ো তুলে তার পর এই ধরনের পর্ন বা যৌন উদ্দীপক ছবিতে কাজ করানোর জন্য ব্ল্যাকমেল করা হয়।

বলিউডে এটা খুবই সাধারণ ঘটনা। যত্রতত্র দেখা যায় এটা।’’ তবে এটা যে শুধু মহিলাদের সাথে হয় এমনটা কিন্তু না। মহিলা পুরুষ উভয়ের শিল্পীদের সাথে এমন করা হয় বলিউডে। তবে বড় খ্যাতনামা শিল্পীদের কোন অডিশন নেয়া হয় না।এমন পরিস্থিতির মুখে ফেলা হয় শিল্পীদের যেখানে দাঁড়িয়ে তাদের আর কোনো পথ থাকে না।

বেশ কিছুদিন আগেই শিল্পার বর রাজের বিরুদ্ধে সামনে এসেছে অনলাইন পর্ন ভিডিও বানিয়ে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে রাজ কুন্দ্রাকে। মুম্বাই পুলিশ সোমবার রাতে শিল্পার বর রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেপ্তার করে। জানা গেছে রাজই এই দলের মূল ষড়যন্ত্রকারী ছিল। রাজ কুন্দ্রার বিরুদ্ধে মুম্বাই পুলিশের হাতে উঠে এসেছে একাধিক প্রমাণ। পাওয়া গেছে রাজ কুন্দ্রার হোয়াটসঅ্যাপের চ্যাট। যেখানে এ বিষয়ে আর্থিক লেনদেনের কথাও বলেছেন তিনি।

তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করা হয়েছে। ৪২০(প্রতারণা),২৯২ এবং ২৯৩ (অশ্লীল ছবি এবং অশালীন বিজ্ঞাপন তৈরি এবং তার আচার) অনুযায়ী মামলা রুজু করা হয়েছে। রাজকে আদালতে পেশ করা হলে বিচারক রাজের জামিনে না করে দিয়েছেন। গত শুক্রবারই আদালতের তরফ থেকে আরও চার দিন পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তদন্ত করতে গিয়ে উঠে আসছে একাধিক তথ্য। প্রায় ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করার পর শিল্পার বয়ান রেকর্ড করেছে মুম্বাই পুলিশ।

মুম্বাই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ কে দেওয়া অভিনেত্রীর অনুযায়ী, “যৌন উদ্দীপক ছবি এবং পর্ন ফিল্ম এর মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। রাজ যে পর্নফিলম বানাতেন তা আমি জানতাম না। ইংল্যান্ডে রাজের ভগ্নিপতি প্রদীপ বক্সীর কেনরিন সংস্থার হাতেই হটশট অ্যাপ এর মূল মালিকানা রয়েছে। আমি সেখান থেকেই এই অ্যাপের সমস্ত কাজ করতাম।” এর পাশাপাশি অভিনেত্রী পুলিশকে আর্জি জানিয়ে বলেছেন রাজ নির্দোষ।

Back to top button