মায়ের থেকে ছেলে বড় পোশাক পড়েছে, রাস্তায় বেরিয়ে তুমুল ট্রোলের মুখে মালাইকা অরোরা

ট্রোলিং যেন মালাইকা অরোরা-র পিছু ছাড়ছে না। কিছুদিন আগেই তাঁর একটি ডান্স ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে ঝলমলে শর্ট পোশাকে ‘স্টানিং’ মালাইকা একটি নাইটক্লাবে নাচ করছেন। এতেই রেগে গেছেন নেটিজেনরা। তাঁরা মালাইকাকে ট্রোল করে বলেছেন, গোটা মুম্বই যখন করোনা পরিস্থিতির শিকার, তখন মালাইকার নাচের ভিডিও শেয়ার করতে লজ্জা করা উচিত। অনেকে আবার বলেছেন, মুম্বইয়ে যেখানে আংশিক লকডাউন চলছে, সেখানে মালাইকা কি করে নাইটক্লাবে গিয়ে নাচ করছেন। এই বিষয়টি নিয়ে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টাও করেছেন নেটিজেনদের একাংশ। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে মালাইকার এই ভিডিওটি কয়েক বছর আগের যে সময় পৃথিবী করোনায় আক্রান্ত ছিল না। মালাইকা নিজেও এটি একটি থ্রোব‍্যাক ভিডিও বলেছেন। সেই ভিডিও আবার নতুন করে ভাইরাল হচ্ছে নেটদুনিয়ায়।

এর মধ্যেই ছেলে আরহান-এর সঙ্গে বিশেষ প্রয়োজনে রাস্তায় বেরিয়েছিলেন মালাইকা। দুজনের পরনেই ছিল বাড়ির পোশাক। মালাইকা পরেছিলেন কালো রঙের ডিপ নেক টি-শার্ট ও হলুদ রঙের শর্টস। অপরদিকে আরহানের পরনে ছিল সাদা রঙের ট্র‍্যাক প‍্যান্ট ও কালো টি-শার্ট। দুজনের পায়ে ছিল স্লিপার ও মুখে মাস্ক। মা ও ছেলে নিজেদের মধ্যে কথা বলতে বলতে হাঁটছিলেন। মা ও ছেলের এই ভিডিওটি ভাইরাল হতেই কিছু নীতিবাগীশ নেটিজেন বলতে শুরু করেছেন, মায়ের থেকে ছেলের পোশাক বড়। অনেকে বলেন মালাইকার কোনো শিক্ষা নেই। কিন্তু মালাইকা বা আরহান কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি।

অর্জুন কাপুর ও মালাইকার বিয়ের সিদ্ধান্ত আপাতত কত দূর এগোলো তা নিয়ে বলিউডে প্রায় রোজই জল্পনা চলে। এর মধ্যেই নেটিজেনদের একাংশ লক্ষ্য করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় মালাইকা ও অর্জুন প্রতিদিন একই স্থানের ছবি শেয়ার করেন। যদি মালাইকা তাঁর বাড়ির ছাদে চাঁদনী রাতের ছবি শেয়ার করেন তাহলে অর্জুন সেই একই বাড়ির ছাদে শেয়ার করেন সূর্যোদয়ের ছবি। এইসব দেখে নেটিজেনরা আপাতত এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন, মালাইকা-অর্জুন এক ছাদের তলায় লিভ-ইন শুরু করেছেন। তবে মালাইকা বা অর্জুনের তরফে এখনও এই বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Voompla (@voompla)

গত বছর গোয়ায় ভ‍্যাকেশন কাটাতে গিয়েছিলেন অর্জুন ও মালাইকা । ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় অর্জুন ও মালাইকার একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে যেখানে মালাইকা সুইমিং কস্টিউম পরে পুলের ধারে দাঁড়িয়ে রয়েছেন এবং অর্জুন সুইমিং পুলের জলে নেমে মালাইকার ছবি তুলছেন। এছাড়া অর্জুন ও মালাইকা গোয়া থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ছবি শেয়ার করেছেন। এবার মালাইকা গোয়ার আরও একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন। ছবিতে মালাইকার নিতম্ব সম্পূর্ণ বালিমাখা। বালিমাখা নিতম্বের ছবি শেয়ার করে মালাইকা লিখেছেন, বিচে এই অবস্থাই হয়। নেটিজেনদের একাংশ বলেছেন, ছবি দেখে মনে হচ্ছে, মালাইকা যেন বালিমাখা লুকের পোশাক পরেছেন।

কিন্তু এখানেই থেমে থাকেননি মালাইকা। এবার তিনি শেয়ার করলেন তাঁর ‘বুটি টোয়‍্যারকিং’ ডান্সের ভিডিও। মালাইকার নিখুঁত বুটি টোয়্যারকিং ডান্সের ভিডিও দেখে অনেকেই তাঁর ফিটনেসের প্রশংসা করেছেন। বুটি টোয়্যারকিং নিউ ইয়র্কের একটি জনপ্রিয় ডান্স ফর্ম। তবে এই মুহূর্তে এই ডান্স ফর্মটি শুধুমাত্র আমেরিকার স্ট্রিপার ক্লাবগুলির নর্তকীদের পারফর্ম করতে দেখা যায়। ইউটিউবে এই ডান্স ফর্মটির প্রচুর টিউটোরিয়াল ভিডিও রয়েছে। এই ডান্স ফর্মের কিছুটা আভাস পাওয়া যায় মহারাষ্ট্রের বিখ্যাত ‘লাবণী’ ডান্স ফর্মের মধ্যেও। মালাইকা আইটেম ডান্সার থাকাকালীন অনেকবার তাঁকে এই ডান্স ফর্ম পারফর্ম করতে দেখা গেছে।

মালাইকা ও অর্জুনের বয়সের ফারাক পনেরো বছর। এর ফলে ইদানিং অযথা মালাইকাকে তাঁর বয়স নিয়ে কটূক্তি করা শুরু হয়েছে। ভারতবর্ষে বরাবর একটি প্রবাদ প্রচলিত রয়েছে, তা হলো ‘মেয়েরা কুড়িতে বুড়ি’। এই প্রবাদকে অন্ধভাবে অনুসরণ করে মেয়েদের ত্রিশ বছর বয়স হতেই সমাজ মেয়েদের ‘বুড়ি’ বলতে শুরু করে। এই কারণেই একবিংশ শতাব্দীতে এসেও মালাইকার সাতচল্লিশ বছর বয়স নেটিজেনদের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে উঠেছে। কিন্তু ‘মেয়েরা কুড়িতে বুড়ি’ এই প্রবাদটির অন্তর্নিহিত অর্থ হলো মেয়েরা খুব তাড়াতাড়ি সামাজিক প্রভাবে ও বৈজ্ঞানিক কারণে ছেলেদের তুলনায় বেশী ‘ম্যাচিওর’ হয়ে যান। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিক সমাজ এই প্রবাদটির ভুল ব্যাখ্যা করে। সমাজে আজও মেয়েদের বিয়ের জন্য বয়সে বড় পাত্রের খোঁজ করা হয়। কিন্তু একটি মেয়ে যদি তাঁর থেকে বয়সে ছোট একটি ছেলেকে বিয়ে করেন, তাহলে তিনি সমাজের চক্ষুশূল হয়ে যান।

এর আগে মালাইকা বিয়ে করেছিলেন অভিনেতা আরবাজ খানকে। কিন্তু আরবাজের বেআইনি ক্রিকেট বেটিং মামলা তাঁদের বহুদিনের দাম্পত্যে চিড় ধরিয়ে দেয়। অপরদিকে আরবাজ তাঁর বিদেশিনী বান্ধবী জর্জিয়া অ্যান্দ্রিয়ানি -এর সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। মালাইকা ও আরবাজের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। বহুদিন সিঙ্গল থাকার পর মালাইকার সঙ্গে অর্জুনের সম্পর্ক তৈরী হয়। গত বছর তাঁরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নিলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে তা স্থগিত হয়ে যায়।

তবে প্রায়ই মালাইকার বাপের বাড়িতে মালাইকার সঙ্গে যেতে দেখা যায় অর্জুনকে। হলুদ রঙের ব্যাকলেস গাউনে মালাইকাকে খুব সুন্দরী লাগছিল। তার সঙ্গে পায়ে ছিল মানানসই ব্যালেরিনা। অর্জুন পরেছিলেন ক্যাজুয়াল টি-শার্ট ও জিনস। করোনা বিধি মেনে দুজনের মুখেই ছিল মাস্ক। ইস্টার উপলক্ষ্যে পারিবারিক প্রার্থনা ও লাঞ্চে যোগ দিয়েছিলেন অর্জুন ও মালাইকা। কিন্তু বাড়ির বাইরে তাঁরা দুজনে একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দী হয়েছেন। মালাইকা ও অর্জুনের ছবিগুলি ভাইরাল হয়েছে নেটদুনিয়ায়।