কাজের অভাবে আর্থিক অনটনে ভুগছেন কঙ্গনা রানাওয়াত! হাতে টাকাও নেই, দিতে পারছেন না ট্যাক্স

গত বছর থেকেই করোনা পরিস্থিতির জন্য লকডাউন চলেছে অনেকদিন। শুটিং বন্ধ ছিল সব জায়গায়। লকডাউনের প্রভাব বেশ ভালোভাবেই পড়েছিল বলিউড ইন্ডাস্ট্রির ওপর। বহু কলা-কুশলীদের হাতে বিশেষ কাজ ছিল না আর এখনও নেই।

বলিউডের প্রথম সারির অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে অন্যান্য কলাকুশলী, টেকনিশিয়ান, মেকআপ আর্টিস্টরা বিগত দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে এই সমস্যায় ভুগছেন। এদের মধ্যে অনেকেই নতুন পেশা বেছে নিয়েছেন।

আবার অনেকে তাদের জমানো পুঁজি দিয়েই চালাচ্ছেন জীবন। সম্প্রতি জানা গেছে বলিউডের অভিনেত্রী হাতে কাজ না থাকায় তিনি অর্থকষ্টে ভুগছেন।

কাজ না থাকার কারণে কঙ্গনা রানাওয়াতের আয় কমে গেছে ফলে তিনি যথেষ্ট বিব্রত হয়ে পড়েছেন। তিনি বলিউড অভিনেতা অভিনেত্রীদের মধ্যে অন্যতম যিনি সময়মতো আয়কর দিয়ে দেন।

কিন্তু তার হাতে কাজ না থাকার ফলে তিনি গত বছরে অর্ধেক আয়কর দিয়েছেন। তিনি ৪৫% আয়কর দিয়ে থাকেন বলে জানা গেছে। এই প্রথম তিনি সময়মতো আয়কর দিতে পারেননি। নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে লিখে এমন কথাই জানিয়েছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত।

অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত তার ইনস্টাগ্রম স্টোরিতে মোদি সরকারের প্রবর্তিত ‘‘ইচ ওয়ান পে ওয়ান’’ নিয়ম সম্বন্ধিত খবরটিকে তুলে ধরেছেন। এই নীতির অর্থ হলো দেশের নাগরিকদের মধ্যে যাদের সামর্থ্য এবং ইচ্ছে আছে, তারা মনে করলে দরিদ্র নাগরিকদের টিকাকরণের খরচ নিতে পারেন।

বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত কি কারণে এই খবরের সঙ্গে নিজের অসুবিধার কথা লিখে পোস্ট করলেন সেটা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। নেটিজেনরা বুঝতে পারছেন না ওই খবরের সাথে তারই লেখার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা! অভিনেত্রী কোন না কোন কারনে চর্চায় থাকেন। এবার আবারো এই ইনস্টাগ্রাম স্টোরির জন্যে মানুষের মধ্যে চর্চিত হচ্ছেন।