বলিউড

‘পাঞ্জাবে যা হয়েছে তা লজ্জাজনক, দেশকে বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়তে হতে পারে’, প্রধানমন্ত্রী মোদীর নিরাপত্তায় ত্রুটি নিয়ে বিস্ফোরক কঙ্গনা রানাউত

বুধবার, ১৩ মাস দীর্ঘ কৃষক আন্দোলনের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথমবারের জন্য পাঞ্জাব সফর গিয়েছিলেন। পাঞ্জাবের কংগ্রেস সরকারের তরফ থেকে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার অভাবে ফ্লাইওভারের উপর ১৫-২০ মিনিট প্রধানমন্ত্রীর কনভয় থমকে গিয়েছিলো। এদিন নিজের সফর পূরণ করতে পারেননি তিনি। মাঝ পথ থেকেই দিল্লি ফিরে আসতে হয়েছিল তাকে। আর এই ঘটনায় রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই ঘটনা ঘটার পর বলিউডের বিতর্কিত অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত এই বিষয় সরব হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। আর সেখানেই আবারো বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী।

এর আগে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য তার টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তবে তাও তিনি থামেননি। তার যেটা বলার সেটা তিনি বলবেন, তা তিনি জানিয়ে দিয়েছেন। সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর পাঞ্জাব সফর রদ নিয়ে নিজের বক্তব্য ইন্সটাগ্রামের মাধ্যমে জানিয়েছেন অভিনেত্রী। সেখানে তিনি লিখে জানিয়েছেন, পাঞ্জাবে যা হয়েছে তা সত্যিই খুবই লজ্জাজনক। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গণতান্ত্রিকভাবে সকল সাধারণ মানুষের দ্বারা নির্বাচিত নেতা জ প্রতিনিধি। ১৪০ কোটি মানুষের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি। তার সাথে এমন ঘটনা ঘটানো উচিৎ হয়নি। এটা গণতন্ত্র বিরোধী কাজ বলে মনে করেন অভিনেত্রী।

এরপর অভিনেত্রী আরো দেখুন, পাঞ্জাব নাকি বর্তমানে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছে। এরকম চলতে থাকলে দেশ বিপদের সম্মুখীন হতে পারে বলেই মনে করেন তিনি। এর সাথে সাথে ‘হ্যাশট্যাগ ভারত স্ট্যান্ড ফর মোদীজি’ লিখে পোস্ট করেন তিনি। অভিনেত্রী এই বিতর্কিত মন্তব্য করার পর থেকেই প্রতিবারের মত এবারেও শোরগোল পড়েছে নেটদুনিয়ায়। হাজারো কটুক্তি শোনার পরেও অভিনেত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় তার নিজস্ব বক্তব্য রাখেন। কে কি বলল তাতে কান দিতে নারাজ অভিনেত্রী।

উল্লেখ্য, এদিন প্রধানমন্ত্রীর ফিরোজপুরে যাওয়ার কথা ছিল তার। যেখানে যেখানে ৪২,৭৫০ কোটি টাকার উন্নয়ন পরিকল্পনায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করার কথা ছিল তার। কুয়াশা ও বৃষ্টির কারণে সড়ক পথে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল কিন্তু, সেখানেই ঘটে বিপত্তি। পাঞ্জাব সরকারের নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে মাঝপথে সফর রদ করে ফিরে আসতে হয় প্রধানমন্ত্রীকে। এই ঘটনা নিয়ে রাজনৈতিক মহলেও বেশ শোরগোল পড়েছে।

Back to top button