বলিউডStory

“অজানা কারণে আমায় বাদ দিয়ে বলা হয় গড ব্লেস ইউ”, সুশান্তর মতোই নেপোটিজমের শিকার অভিনেত্রী আমিশা প্যাটেলও! বরবাদ হয়ে গিয়েছিলো কেরিয়ার

বলিউডে স্বজনপোষণের কাহিনী যে জন্ম জন্মান্তর ধরে চলে আসছে তা কারোরই অজানা নয়। অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত মারা যাওয়ার পর থেকে বলিউডের জঘন্যতম নোংরা দিকগুলো উন্মোচিত হয়েছিল।

কিভাবে স্বজনপোষণের কারণে একজন শিক্ষিত গুণী প্রতিভাবান অভিনেতাও দূরে ছিটকে যেতে পারেন তার উদাহরণস্বরূপ রয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত নিজেই। শুধু সুশান্ত সিং রাজপুতই না, স্বজনপোষণের শিকার হয়েছিলেন বিখ্যাত জনপ্রিয় অভিনেত্রী আমিশা প্যাটেল।

বলিউডে খান কিংবা কাপুর ফ্যামিলি রাজত্ব যে জন্ম-জন্মান্তর বিস্তৃত তা দর্শকের সকলেরই জানা। ঋষি কাপুর, রাজ কাপুর, শশী কাপুর এনাদের পর এখন যদিও কাপুরদের মধ্যে থেকে টিকে রয়েছেন করিনা কাপুর এবং রণবীর কাপুর।

এরপরে কাপুর ফ্যামিলির ভবিষ্যৎ ঠিক কি হবে তা সবারই অজানা। তবে একসময় করিনা কিংবা করিশমার উত্থানের সময়ে ছিটকে গিয়ে ছিলেন গুণী অভিনেত্রী আমিশা প্যাটেল।

যথেষ্ট শিক্ষিতা তিনি, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। যেমন শিক্ষিতা ঠিক তেমনি সুন্দরী ও তিনি। ঋত্বিক রোশনের কাহো না পেয়ার হে দিয়ে বলিউডের প্রথম পা রাখেন। সেই ছবি বক্স অফিসে সুপার ডুপার হিটের তকমা পেয়েছিল। যদিও এই ছবিতে প্রথমে অভিনয় করার কথা ছিল করিনা কাপুরের।

তবে জানা যায় তার মা ববিতা কাপুর তাকে এই ছবি থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন, তার যুক্তি ছিল এই সিনেমার সমস্ত ফোকাস থাকবে ঋত্বিক রোশনের উপরেই। সেই ছবি থেকে সরে এসে কারিনা কাপুর জেপি দত্তের ছবি রিফিউজি তে সাইন করেন। সেই ছবি সুপার ফ্লপ হয়।

তারপরে সুভাষ ঘাইয়ের ইয়াদে মুভিতে প্রথমে সাইন করেছিলেন আমিশা প্যাটেল। তারপর কোনো এক অজ্ঞাত কারণবশত আমিশা কে বাদ দিয়ে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করার জন্য নির্বাচিত করা হয় কারিনা কাপুরকে।এর জন্য আজও দায়ী করা হয় ফিল্মি পলিটিক্সকেই।

ইয়াদে মুভি থেকে কেন আমিশা পাটেল কে বাদ দেয়া হয়, এ প্রশ্ন অভিনেত্রী সামনে রাখলে অভিনেত্রী খালি বলেছেন, “পরিচালক সুভাষ ঘাই আমার মাথায় হাত রেখে বলেন গড ব্লেস ইউ।” গতকালই ছিল ইয়াদে মুভির জন্মদিন। এদিনই অভিনেত্রী পুরোনো কথা তুলে ধরেছেন। বর্তমানে অভিনেত্রী হাতে কোনো কাজ না থাকলেও ‘কাহনা পেয়ার হে’ এর বিখ্যাত নায়িকা হিসেবে দর্শকের মনে থেকে যাবেন আজীবন।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Back to top button