“সারা রাত শুধু কেঁদেছি”, মা-এর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ দিব্যেন্দু, শেষকৃত্যতে থাকতে পারলেন না অভিনেতা

বয়স যতোই বেড়ে যাক না কেন মা-বাবার কাছে সন্তান চিরকালই ছোটই থাকে। সন্তানের ছোট ছোট ইচ্ছার খেয়াল রাখে তার বাবা-মা। সন্তান বড় হয়ে যাওয়ার পর নিজের বাবা-মাকে আগলে রাখতে চায়। আর এই অতিমারির সময়েই অভিনেতা দিব্যেন্দু হারালেন তার মা-কে।

শুটিং ফ্লোরে ফোন নিয়ে যাননা অভিনেতা। শুটিং শেষ করে এসে অভিনেতা দিব্যেন্দু তার বোনের ম্যাসেজগুলো পেয়ে বোনকে সঙ্গে সঙ্গে ফোন করেন।

বোন তাকে জানান মাকে ভর্তি করার জনূয বেড পাওয়া যাচ্ছে না কোনো হাসপাতালে। রোগীদের ভর্তি করার আগে এখন সব জায়গাতেই কোভিডের নেগেটিভ রিপোর্ট চায়।

অভিনেতার মায়ের ক্ষেত্রেও সেই নিয়মের অন্যথা হয়নি। কলকাতায় থাকা অভিনেতার বন্ধুরা তাঁদের সাহায্য করার চেষ্টাও করেছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হয়নি। কিছু ব্যবস্থা করার আগেই অভিনেতা দিব্যেন্দুর মা ঢলে পড়েন।

তার মায়ের মৃত্যুর ব্যাপারে সবটা জানতে পারেন তিনি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তার মা। এরপরই কান্নায় ভেঙে পরেন অভিনেতা। এমনকি মাকে শেষ দেখাও দেখতে পাননি দিব্যেন্দু।

মায়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে দেশে ফেরার চেষ্টা করেছিলেন অভিনেতা। কিন্তু তিনি বুঝতে পারেন ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা এবং ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন এই পুরো বিষয়টা পার করে কলকাতায় পৌঁছে তার কোনো লাভ হবেনা। পৌঁছানোর চেষ্টাটাই বৃথা হবে।

অভিনেতা দিব্যেন্দু এপ্রিল মাসের শেষ সপ্তাহে তুরস্কে ছিলেন রিলায়েন্স প্রযোজিত এক ছবির শুটিংয়ে। তুরস্কের যাওয়ার ৫-দিন আগে তিনি মালদ্বীপে ছিলেন। ৫-ই মে থেকে শুটিং শুরু হয়েছিল তার। কিন্তু তারপরই তার কাছে জীবনের সব থেকে খারাপ খবরটা গিয়ে পৌঁছায় যা মন থেকে একেবারে ভেঙে দিয়েছিলেন অভিনেতাকে।