বলিউড

প্রয়াত জিয়ার শেষকৃত্যে পোশাক নিলামে তুলে টাকা রোজগারের মানসিকতা! নেটিজেন দের ক্ষোভের মুখে দীপিকা পাডুকোন

অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের মুখে পড়েছেন সেলিব্রিটি দের শেষকৃত্যের সময় পড়া পোশাক গুলি নিলামে তোলা নিয়ে। ২০১৩ সালে বলিউড অভিনেত্রী জিয়া খান আত্মহত্যা করেন। তখন তিনি ইন্ডাস্ট্রিতে নতুন, সেই সময় দীপিকাও নিজের ক্যারিয়ার গড়তে ব্যস্ত। জিয়া খানের মৃত্যু সারা বলিউডে শোকের ছায়া ফেলেছিল। জিয়ার শেষকৃত্যের সময় দীপিকাকে সাদা রঙের একটি কুর্তি পরে দেখা গেছিলো এবারে সেই পোশাকই নিলামে তুলে বিতর্কের মুখে পড়েছেন তিনি। এমনকি প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বাবার শেষকৃত্যের সময় ও যেই কুর্তি তিনি পড়েছিলেন সেটিও নিলামে তুলেছেন অভিনেত্রী।

দীপিকা পাডুকোন একটি এনজিও ‘লিভ লাভ লাফ’ এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। সেই এনজিওতে তিনি আর্থিক সাহায্য করেন, সেখানে আর্থিক সাহায্য করতে গিয়ে তার এই উদ্যোগ মাঝেমধ্যেই তার কিছু পোশাক নিলামে তোলেন এবং সেখান থেকে যা অর্থ আসে তা তিনি সম্পূর্ণ এনজিওর হাতে তুলে দেন। এই কাজের জন্য দীপিকা প্রশংসিত হলেও এইবার নেটিজেনরা তার এই সিদ্ধান্তের উপর প্রশ্ন তুলেছেন নেটিজেনদের দাবি শেষকৃত্যের পোশাক গুলির সাথে জড়িয়ে থাকে অনেকগুলি মানুষের স্মৃতি। দীপিকার পোশাকগুলো বিক্রি হলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় তাকে নিয়ে চলছে নানা রকমের বিতর্ক।

এমনকি দীপিকার ভক্তরাও দীপিকার এই কাজের বিরুদ্ধে। তারা অধিকাংশই মনে করেন এই কাজটি তিনি একেবারে ঠিক করেননি। তিনি ওই পোশাক কোন গরীবকে বিনামূল্যে দান করতে পারতেন, এরকমভাবে শেষকৃত্যের পোশাক নিলামে তুলে তিনি খুবই নিচু মনের পরিচয় দিলেন।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Deepika Padukone (@deepikapadukone)

বলিউডের নবীন তারকা জিয়া খান ২০১৩ সালে ৩রা জুনে আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যার আগে তিনি একটি চিঠি লিখে যান, সেই চিঠিতে আদিত্য পাঞ্চোলির ছেলে সুরজ পাঞ্চোলির নামে কিছু অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। সুরাজের নামে তিনি মানসিক এবং শারীরিক অত্যাচার সহ তার গর্ভের সন্তান নষ্ট করার অভিযোগ লিখে যান। মাত্র ২৫ বছর বয়সী এই সুন্দরী অভিনেত্রী নিজেকে আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দেন। তবে জিয়ার মা পুলিশের কাছে দাবি করেন যে জিয়াকে খুন করা হয়েছে কারণ মৃত্যুর সময় তার ঠোঁটের পাশে একটি কালো দাগ ছিল যা শারীরিক অত্যাচারের ইঙ্গিত দিচ্ছিল, কিন্তু পরে পোস্টমডামের রিপোর্টে জিয়া আত্মহত্যা করে করেছে বলেই দাবি করা হয়। জিয়ার এই হঠাৎ মৃত্যু মেনে নিতে পারেননি নেটিজেন রা। তাই দীপিকার এই কাজে ক্ষুব্ধ সোশ্যাল মিডিয়া।

Back to top button