বলিউড

রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের মাত্র ৯২ রানে হারার পর এই তুমুলভাবে ভাইরাল হলো বলিউডের অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের তাচ্ছিল্যভরা টুইট

চলতি মাসের ১৯ তারিখ থেকে শুরু হয়ে গিয়েছে আইপিএলের দ্বিতীয় ভাগের খেলা। প্রথম ভাগের পর বাকি খেলাগুলো আবারো শুরু হয়েছে নতুন করে। প্রথমভাগে খেলার শিবিরে করোনা প্রকোপ পড়ায় খেলা মাঝপথে বন্ধ করতে হয়েছিল। তবে ক্রিকেট বোর্ড থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেয়া হয় আইপিএল আয়োজনে যে পরিমাণ অর্থ খরচ হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ যদি মেটাতে হয় তাহলে আইপিএল দ্বিতীয় ভাগ পূরণ করতেই হবে। তাই জন্যেই চলতি মাসের ১৯ তারিখ থেকে শুরু হয়ে গেছিলো আইপিএল এর দ্বিতীয় ভাগ।

আইপিএলের প্রথম ভাগে সবথেকে এগিয়েছিল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। দুর্দান্ত পারফরম্যান্স এর মাধ্যমে স্কোরবোর্ডে সবার উপরে ছিল এই দল। তবে গত ২০শে সেপ্টেম্বর এর ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্স এর বিপরীতে খুব বাজেভাবে পরাজিত হন বিরাট দল। বিরাট কোহলি দল টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন তারপর ১৯ ওভারে অলআউট হয়ে তারা মাত্র ৯২ রান করেন।

অপরদিকে কেকেআর মাত্র ১০ ওভারে ৯৪ রান করেই জিতে যায় এই ম্যাচ। এবছর আইপিএলে অনেকেই আশাবাদী ছিলেন, বিশেষ করে আরসিবির ফ্যানরা। প্রথম পর্বের খেলা দেখে খুবই উৎসাহী ছিলেন যে এবারে ট্রফি হয়তো আরসিবির ঘরে আসবে। তবে দ্বিতীয় পর্বের প্রথম ম্যাচ দেখে হতাশ অনুরাগীরা। খুব বাজে ভাবে পরাজিত হতে হয়েছে আরসিভিকে কেকেআরের বিরুদ্ধে। এই হারের পর সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে শুরু হয়ে গিয়েছে ট্রোল, প্রত্যেকটি খেলোয়াড় কে নিয়ে সমালোচনা করছে নেটিজেনরা।

আজ থেকে প্রায় ১১ বছর আগেই এরকম একটি দিন এসেছিল রাজস্থান রয়েলস এবং আরসিবির মধ্যে। রাজস্থান রয়েলস কে মাত্র ৯২ রানে অলআউট করেছিল ব্যাঙ্গালোর এবং মাত্র ১০ ওভারে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর রান তুলে নেয়। সেই সময়ে দীপিকা পাডুকোন খুব তাচ্ছিল্যের সঙ্গে বলেছিলেন “৯২! এটা কোনো রান হলো! আমরা তোমাদের পাশে আছি আরসিবি আরো এগিয়ে যাও এভাবেই জয়লাভ করতে থাকো।” সেই সময় মাঝেমধ্যেই দীপিকাকে খেলার মাঠে ভিআইপি বক্সে দেখা যেত। সিদ্ধার্থ মালিয়ার সঙ্গে বহুবার ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন দীপিকা। এমনকি তাদের মধ্যে সম্পর্কের গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল ইন্ডাস্ট্রিতে।

চলতি বছরে আইপিএল শুরু হয়েছিল ৯ই এপ্রিল থেকে। তবে খেলার মাঝেই করোনার থাবা পরে ক্রিকেট শিবিরে। একাধিক ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত হন। তাই ম্যাচ মাঝপথে বন্ধ করে দেয়া হয়, তবে আইপিএলের ক্রিকেট বোর্ড থেকে জানানো হয়েছে ম্যাচ সম্পন্ন করতে হবে না হলে বিরাট বড় অঙ্কের টাকার ক্ষতি হয়ে যাবে। যার জন্যই দীর্ঘ কয়েক মাস পরে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ভ্যাক্সিনেশন এবং সমস্ত বিধি-নিষেধ মেনে আবারো ম্যাচ শুরু হয় গত ১৯শে সেপ্টেম্বর থেকে।

Back to top button