বলিউড

সন্তান জন্ম দেওয়ার পর করিনা নিজেকে দেখে আতঙ্কে সারা শরীর কেঁপে উঠেছিল, নগ্ন অবস্থায় আয়নার সামনে বেশ কিছুক্ষণ নিজেকে দেখেছিলেন তিনি

মা হওয়ার মধ্যে যেমন রয়েছে পরমসুখ তেমনি মা হওয়ার পেছনে রয়েছে একটি নারীর অজস্র সেক্রিফাইস। মা হতে গেলে একজন নারীকে তার সমস্ত সখ আহ্লাদ যেমন ত্যাগ করতে হয় তেমনি সেই সমস্ত ত্যাগের পরিবর্তে সে একটি সুন্দর জীবন লাভ করে। আর সেই নিজের সন্তান জন্ম দেওয়ার গল্প কারিনা কাপুর সোশ্যাল মিডিয়ায় সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন।

করিনা কাপুর খান জানিয়েছেন তৈমুরের জন্ম দেওয়ার সময় তাকে অনেক কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়েছে। তৈমুর যখন গর্ভে ছিল তখন তৈমুরের গলায় আম্বিলিকাল কর্ড জড়িয়ে গিয়েছিল যার ফলে তৎক্ষণাৎ তৈমুরের জন্ম দিতে হয় কারিনাকে। এরপরেই সন্তান জন্ম দেওয়ার সুখ এবং আতঙ্ক দুই দিকের সম্মুখীন হয়েছেন অভিনেত্রী।

কারিনা জানায় তৈমুরের জন্ম দেওয়ার পরে তিনি হসপিটালের বেডে আয়নার সামনে বেশ কিছুক্ষণ নিজেকে নগ্ন অবস্থায় দেখেছিলেন তার শরীরে স্পষ্ট ছিল ক্লান্তির ছাপ স্ট্রেচ মারকস তিনি ছিলেন তার ওজন বেড়ে গিয়েছিল। ২০১৬ সালের সেই ঘটনা মনে পড়লে তিনি এখনও শিউরে ওঠেন।

বলিউড এবং গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডে ২১ বছর পার করে ফেলেছেন করিনা। বলিউডের ফাস্ট ফ্যামিলির কন্যা এবং নবাব বংশের পুত্রবধূ করিনা কাপুর নিজের অভিনয় এবং গ্ল্যামার এর মাধ্যমে বলিউডে সকলের প্রিয় বেবো হয়ে উঠেছেন। প্রেগনেন্সি যে-কোনো ট্যাবু নয় তা পুরো দেশের সামনে উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরেছেন করিনা। অন্তঃসত্ত্বা অবস্থাতে যে-কোনো নারী বাইরে এবং ঘরের দুটো দিকই সামলাতে পারে এবং বলিউডের অভিনেত্রী গর্ভবতী অবস্থায় দেই শুটিং করতে পারে, রেম্পে হাঁটতে পারেন পিছিয়ে থাকে না তা তিনি উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরেছেন সব সময়।

কয়েকদিন আগেই প্রকাশিত হয়েছে করিনার ‘প্রেগনেন্সি বাইবেল’। সেই বইয়ে নতুন মায়েদের জন্য আর যারা মা হওয়ায় কথা ভাবছেন তাদের জন্য নানা রকমের উপদেশ দেওয়া হয়েছে। করিনা কাপুর নিজের অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নিয়েছেন। সেকশন নিয়ে সকলের ভ্রান্ত ধারণা থেকে সেই যন্ত্রণা, অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় সেক্সের প্রতি আগ্রহ হারানোর কথাও বইয়ের পাতায় কলমবন্দি করেছেন করিনা।

বর্তমানে তিনি দুই সন্তানের মা। স্বামী সাইফ আলী খান চার সন্তানের বাবা। এই বয়সে এসেও যে মা হওয়া যায় তাই নিশ্চিত করেছেন তিনি। অভিনয় জগতে থাকলেও যে মা হওয়া যায় তা বর্তমানে অনেক বলি অভিনেত্রী প্রমাণ করেছেন। মা হওয়ার পরও নিজেকে ফিট রেখেছেন তারা এবং দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে চলেছেন।

Back to top button