বাংলা সিরিয়াল

অঙ্কুশ যেভাবে সঞ্চালনা করছে তাতে মনে হয় সঞ্চালক কাঞ্চন মল্লিকের কাজ কমে গেল বলে! মন্তব্য বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের

ডান্স বাংলা ডান্সের সিজেন ১১ যেভাবে দর্শকের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে দিনে দিনে অন্যান্য রিয়ালিটি শো কতদিন টিকতে পারবে তা নিয়ে বড় প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে। প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে সঞ্চালকের ভূমিকা নিয়ে। ডান্স বাংলা ডান্সের সঞ্চালনের মূল দায়িত্বে রয়েছেন অঙ্কুশ হাজরা এবং বিক্রম চট্টোপাধ্যায়।

অঙ্কুশ হাজরা এতটাই ভাল সঞ্চালনা করছেন যে ডান্স বাংলা ডান্সের টিআরপি দিনে দিনে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে রীতিমতো। মজাদার কথা, মজাদার অঙ্গভঙ্গি, মজাদার অভিনয় সহযোগে ডান্স বাংলা ডান্স রীতিমতো দর্শকের কাছে কমেডি-শো হয়ে উঠেছে। সারাদিনের একঘেয়ে জীবন ছেড়ে টিভির পর্দায় দেখেন একটু স্বস্তি পাওয়ার জন্য। সেই ১০০% স্বস্তি এনে দিতে পারছেন অঙ্কুশ হাজরা।

তবে টলিউডের বিখ্যাত নায়ক থেকে এখন সঞ্চালকের ভূমিকায় পাঠ করছেন অঙ্কুশ। তবে এটা প্রমোশন নাকি ডিমোশন! এ প্রশ্নে মুখ খুলেছেন অঙ্কুশ হাজরা নিজেই। অঙ্কুশ হাজরা মনে করেন, “একজন সঞ্চালকের ওপর সবসময়ই সেই চ্যানেলের বা সেই রিয়েলিটি শোয়ের টিআরপি বাড়ানোর দায়িত্ব থাকে। টানা দেড় ঘন্টা দর্শক তো এমনি এমনি একটি চ্যানেল দেখবেন না।

তাদেরকে সেই চ্যানেল যথেষ্ট পরিমাণে এন্টারটেইন না করতে পারলে অন্য চ্যানেল ঘুরিয়ে দেবেন মুহূর্তের মধ্যেই। তাই এমন কোন কাজ করা দরকার যা দেখে দর্শক আনন্দ পাবেন। আমার মতে সঞ্চালকের অনুভব মিশে যায় দর্শকের অনুভবের সঙ্গে। আমার ওপর তাই বিনোদন যোগানোর দায়িত্ব আছে। এছাড়াও রয়েছে মানুষের ঘর বন্দী দশা। গত ২০২০ থেকে মহামারীর জেরে মানুষ গৃহবন্দী। বন্ধ সিনেমা হলগুলোও। ফলে দর্শকের মূল বিনোদনের জায়গা হয়ে উঠেছে টেলিভিশন এবং অনলাইন স্ট্রিমিং প্লাটফর্ম গুলি।”

অঙ্কুশের সাথে মুখ খুলেছেন বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ও, তিনি রীতিমতো কাঞ্চন মল্লিকের সঞ্চালনার কাজ পাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন, তিনি বলেছেন, “অঙ্কুশ যেভাবে মঞ্চ অধিকার করেছে তাতে কাঞ্চনের হাতে কাজের সংখ্যা কমে যায়! তবে অঙ্কুশ কিন্তু কাঞ্চন যীশু সেনগুপ্ত এদেরকে তার গুরু মানে।”

অঙ্কুশের সঞ্চালনা দেখে প্রশংসায় পঞ্চমুখ কাঞ্চন থেকে শুরু করে বিশ্বনাথ বসু পর্যন্তও। প্রথমে বাংলা টেলিভিশনে সঞ্চালনার গুরুত্ব যে কতটা সেটা সকলের চোখে আঙ্গুল দিয়ে বুঝিয়ে ছিলেন কাঞ্চন এবং বিশ্বনাথ দুজনেই। অঙ্কুশ বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খানকে দেখে অনুপ্রাণিত হন।

তার থেকে শেখার চেষ্টা করেন অনেক কিছুই। তিনি অভিনেতা শাহরুখ খান কে দেখেছেন মেয়েদের পোশাক পরে আসতে, আবার কখনোবা ফেস মাস্ক লাগিয়ে আসতে কিংবা খালি গায়ে তোয়ালে পড়ে নাচতে আসতে। সেখান থেকেই অঙ্কুশের উপলব্ধি সঞ্চালনা করতে গেলে নিজের ইমেজ নিয়ে অত ভাবলে হবে না, মন প্রাণ দিয়ে সঞ্চালনাই করতে হবে।

ডান্স বাংলা ডান্সের অঙ্কুশের ফ্যাশন ডিজাইনিং এর দায়িত্বে রয়েছেন ফ্যাশন ডিজাইনার অভিষেক রায়। তিনি অঙ্কুশের উপর বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাকের ওপর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে পারছেন। ফ্যাশন ডিজাইনার অভিষেক জানিয়েছেন, “অঙ্কুশের মজাদার সঞ্চালনার কথা মাথায় রেখে আমাকে ওর জন্য একটু অন্যরকম রং ও প্রিন্ট এর পোশাক ডিজাইন করতে হচ্ছে। অঙ্কুশ কিন্তু এই ধরনের পোশাক যথেষ্ট ভাল ভাবেই ক্যারি করছে। তবে এটা রিয়েলিটি শো বলেই আমি ওর ওপর এত এক্সপেরিমেন্ট করতে পারছি। যেটা ফিল্ম হলে সম্ভব হতো না।”

Back to top button