বাংলা সিরিয়াল

নীল জলে আগুন লাগিয়ে দিলেন ‘লালকুঠি’র অনামিকা! সুইমিং পুলে জলকেলিতে মত্ত অভিনেত্রী রুকমা, ভাইরাল ভিডিও

বর্তমানে জি বাংলা ‘লালকুটি’ ধারাবাহিকের অনামিকা সকলের মন জয় করে নিয়েছে। গা ছমছমে রহস্য-রোমাঞ্চ ধারাবাহিকে যে মানুষটির অভিনয় সকলের মনে শিহরণ জাগিয়ে দেয় তিনি হলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী রুকমা রায়। কিছুদিন আগেই দেশের মাটি ধারাবাহিকের মাম্পি চরিত্র করে অসম্ভব জনপ্রিয়তা লাভ করেন তিনি, ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্র কে ছাপিয়ে গিয়ে তার চরিত্র এতটাই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে যে, ধারাবাহিকে তাকেই পরবর্তীতে প্রাধান্য দেওয়া হয়‌। এর আগে ‘কিরণমালা’ ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করে সকলের মন জয় করে নেওয়া রুকমা সম্প্রতি একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ভিডিও দেখে দর্শকরা রীতিমতো পাগল হয়ে উঠেছেন।

রুকমার অভিনয় দেখে যারা এতদিন ধরে পাগল ছিলেন তারা রুকমার ভিডিও পোস্ট হতেই তার হটনেস দেখে রীতিমতো পাগল হয়ে গিয়েছেন। রুকমার এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ছুটির মেজাজে আছেন অভিনেত্রী। অসম্ভব গরমকালকে উপভোগ করবার জন্য সুইমিংপুল‌ই একমাত্র শ্রেষ্ঠ উপায়। তাই গরমকালে একান্ত সুইমিংপুলে সময় কাটাচ্ছেন তিনি। রবিবার ছুটির দিন তাই ফুরফুরে মেজাজে আছেন অভিনেত্রী, ছুটির দিন উপভোগ করা সেই ভিডিও তাই তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন আর হু হু করে মুহূর্তের মধ্যে শেয়ার হয়ে যায় সেই ভিডিও তার অনুরাগীরা মূলত তার সেই ভিডিও দেখার জন্য ভিড় করে আসেন।

শেয়ার করা সেই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, নীল জলে সুইমিং পুলের পোশাক পরে সুন্দর পারফরম্যান্স করছেন রুকমা। কখনো দেখা যাচ্ছে তিনি জলের মধ্যে স্টাইল করে হেঁটে বেড়াচ্ছেন, কখন আবার দেখা যাচ্ছে সুইমিং পুলের মধ্যে জলকেলি করছেন তিনি। ভিডিওটি শেয়ার করার সময় রুকমা ক্যাপশন দিয়েছেন, ‘perfect Sunday’। সত্যি তো রবিবার ছুটির দিন গরমের মধ্যে যদি সুইমিং পুলে কাটানো যায়, এর থেকে ভালো তো আর কিছুই হতে পারেনা। নিজের এই ভিডিওর সাথে আবার একটি হিন্দি গান ও জুড়ে দিয়েছিলেন অভিনেত্রী, ‘ইয়ে মেরা দিভানাপন হে’। এই গান শুনে তার অনুরাগীদের পাগলের মত অবস্থা। ইতিমধ্যেই ১ লক্ষের‌ও বেশি মানুষ এই ভিডিও দেখে ফেলেছেন। কিছু মানুষ কমেন্ট করে জানিয়েছেন, নীল জলের মধ্যে রূপের আগুন লাগিয়ে দিলেন অভিনেত্রী।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Rooqma Ray (@rayrooqma)

সম্প্রতি লালকুঠি ধারাবাহিকে দেখা যাচ্ছে যে অনামিকা এবং বিক্রমের বিয়ের দিন উপস্থিত হয়েছে। বিয়ের রাতে একটি ছেলের ফোন পেয়ে রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে দেখা করতে ছুটেছে অনামিকা! ঠিক সময় বিয়ের মন্ডপে পৌঁছাতে পারবে তো অনামিকা? এই নিয়ে রীতিমতো টানটান উত্তেজনা শুরু হয়েছে!

Back to top button