‘বোনের সঙ্গে নোংরামি’! একাধিক কটূক্তি শুনে আত্মহত্যার পথ বাছেন সৌরভ দাস, বাঁচিয়েছিলেন অভিনেতার মা

সোশ্যাল মিডিয়া হল আজব জাদু। মানুষ সর্বত্র মুখিয়ে থাকে সেলিব্রিটিদের ক্ষুদ ধরার জন্যে এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। সেদিক দিয়ে বিচার করলে অভিনেতাদের জীবনও ভারী অদ্ভুত হয়, মানুষের পছন্দমত তাদের সর্বময চলতে হয়। কখনও মানুষই তাদের সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছে দেয়, আবার কখনও মানুষই তাদের টেনে নিচে নামিয়ে দিতে পিছপা হয়না৷

ফাঁক পেলে অজান্তেই নেটিজেনরা আঙুল তুলে দেন তারকাদের ওপর। একবারও যাচাই করার প্রয়োজন মনে করেন না তারা, যে কাকে কী বলছেন, এবং কী নিয়েই বা বলছেন তারা। এর জন্যে অনেকক্ষেত্রেই তারকাদের জীবন হয়ে ওঠে দুর্বিষহ। তাদের ব্যক্তিগত থেকে অভিনয় সবকিছুতেই যেন নেটিজেনরা তাদের দোষ ত্রুটি খুঁজে বেড়ান। আসলে কোথাও গিয়ে তারা ভুলেই যান অভিনেতারাও দিনের শেষে একজন মানুষ।

আজ আলোচনা করব এরকমই একজন সেলিব্রেটিকে নিয়ে যাকে নিয়ে কয়েকদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় উত্তাল হয়ে পড়েছিল, তাঁকে তুলোধনা করতেই ছাড়েননি নেটিজেনরা। তিনি হলেন টলিউডের (Tollywood) মন্টু পাইলট (Montu Pilot) ওরফে সৌরভ দাস (Sourav Das)।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে টলিউডের একাধিক তারকা তৃণমূলে যোগদান দিয়েছিলেন, তার মধ্যে একজন সৌরভও। এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই অভিনেতার জীবন দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। সোশ্যাল মিডিয়ায় টেনে আনা হয় সৌরভ এবং তার বোনের একটি পুরোনো ভিডিও।

এই ভিডিওর একটি দৃশ্যে নিয়ে মারাত্মক তোলপাড় শুরু হয় নেটমাধ্যমে। অভিযোগ করা হয়, বোনের বুকে হাত বোলাচ্ছেন সৌরভ।আসতে থাকে নানারকম নোংরা মন্তব্যে সৌরভকে ঘিরে। যার জেরে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন সৌরভসহ তাঁর গোটা পরিবার।

আসলে ঘটনাটি ছিল, সৌরভের জন্মদিনের দিন তোলা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, যে অভিনেতা আনন্দে বোনকে জড়িয়ে ধরে আদর করছেন। ব্যস! সেই নিয়েই শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। একের পর এক নোংরা কুরুচিপূর্ণ মন্তব্যে তো বটেই, রাতারাতি তৈরি হয়ে যায় সৌরভকে নিয়ে ট্রোলড মিমে। এমনকি তাঁর মা, বোনকেও প্রচুর কথা শুনতে হয় একারণে।

তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরেই এই ভিডিও বিভিন্ন ভঙ্গিতে নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়৷ না জেনেশুনে এরকম মন্তব্য মেনে নিতে পারেননি অভিনেতা। সঙ্গে আদরের বোনকে কুৎসিত মন্তব্য আরো যেনো সৌরভকে আক্রমণ করছিল, যার কারণে শেষ পর্যন্ত অভিনেতা আত্মহত্যার পথই বেছে নেবেন বলে ঠিক করেছিলেন।