বাংলা সিরিয়াল

মিঠাই ধারাবাহিকের রাতুল এবং শ্রীতমা নিজেদের অফস্ক্রিন কেমিস্ট্রি শেয়ার করলো দর্শকদের সাথে, ক্যামেরায় ধরা পরল তাদের বিভিন্ন মজার মুহূর্ত

বর্তমানে বাংলা ধারাবাহিক গুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক জি বাংলার মিঠাই। প্রথম দিন থেকে এই ধারাবাহিক দর্শকের মন কেড়েছে, নিত্যনতুন টুইস্ট এবং সিদ্ধার্থের ও মিঠাইয়ের দারুন কেমিস্ট্রি দর্শকের বেশ পছন্দের। এছাড়াও ধারাবাহিকে অন্যান্য চরিত্র গুলি ও বেশ আকর্ষণীয় দর্শকের কাছে। এই জন্যই এই ধারাবাহিক প্রথম দিন থেকে টিআরপি লিস্টের প্রথম স্থান অধিকার করে রয়েছে। ধারাবাহিকে মিঠাই সিদ্ধার্থ ছাড়াও রাতুল শ্রিতমার জুটিও দর্শকের নজর কেড়েছে।

ধারাবাহিকে শুরুতে দেখানো হয়েছিল পরিবারের ছোট মেয়ে শ্রীনিপার সঙ্গে তার জামাইবাবুর ছোটভাই রাতুলের বিয়ে স্থির হয়। কিন্তু নিপার ভুলের জন্য সেই বিয়ে বিয়ের দিনই ভেঙে যায় এবং মণ্ডপ থেকে পালিয়ে যায় নিপা। সেই একই মণ্ডপে পরিবারের মান-সম্মান রক্ষা করতে ওই বাড়ির বড় মেয়ে শ্রীতমা রাতুল কে বিয়ে করে। শ্রীতমার সাথে বিয়েটা রাতুল প্রথম দিকেই মেনে নিতে পারেনি, সে মনে মনে নিপাকেই ভালোবাসা। কিন্তু ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে বোঝাপড়া তৈরি হচ্ছে, ইতিমধ্যেই একে অপরকে বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে তারা।

ধারাবাহিকে শ্রীতমার চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী দিয়া মুখোপাধ্যায়, এবং রাতুলের চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেতা উদয় প্রতাপ সিং। ধীরে ধীরে দর্শকদের কাছেও প্রিয় হয়ে উঠছে রাতুল শ্রীতমার জুটি। এছাড়া নিজেদের অফ স্ক্রীন বন্ডিং নিয়ে ইতিমধ্যেই কথা বলেছে দিয়া এবং উদয়।

সম্প্রতি প্রেম ভেঙেছে দিয়া এবং স্টার জলসার গঙ্গারাম ধারাবাহিকের অভিনেতা অভিষেক এর। দীর্ঘ ৩-৪ বছরের প্রেমের ইতি ঘটেছে এই বছরেই। বরাবরই খোলাখুলি ভাবে প্রেম করতেন দুজনে তাদের সম্পর্ক কখনো আড়ালে ছিল না। ২০১৭ সাল থেকে একে অপরের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছিলেন তারা, তবে ব্যক্তিগত কিছু সমস্যার কারণে চলতি বছরে কয়েক মাস আগেই তাদের সর্ম্পকে ভাঙ্গন ধরে। ২০১৭ সালের জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক সীমারেখা তে অভিনয় করেছিলেন দুজনে সেখান থেকেই আলাপ হয় তাদের।

দিয়া এবং অভিষেকের বিচ্ছেদের পর দিয়া এবং উদয়কে নিয়ে নানারকম রটনাটা ছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে দিয়া এই সম্পর্কে স্পষ্ট জানিয়ে দেন “তুমি এলে তাই ধারাবাহিকের মাধ্যমে উদয় এবং দিয়ার পরিচয়, সেখান থেকেই তারা ভালো বন্ধু, উদয় একেবারেই বাংলা পড়তে পারে না এখন যদিও বাংলা ধারাবাহিক করতে করতে কিছুটা বাংলা শিখেছে তাও মাঝে মাঝে তার বাংলা কিছুটা সমস্যা হয় দিয়া প্রথম থেকেই উদয়কে বাংলা স্ক্রিপ্ট গুলো পড়ে পড়ে শোনাত উদয়কে।

সেই শুনেই ডায়লগ মুখস্ত করত উদয়। এখনো কিছু কিছু শব্দ উদয় ভুল করে যেমন অভাব-অনটন কখনো অভাব-অনটন বলতে পারেনা সবসময় অভাব টনাটন বলে। ফ্লোরে বিভিন্ন রকমের খুনসুটি গল্প-আড্ডা হয় তাদের মধ্যে তারা খুবই ভালো বন্ধু।

Back to top button