বাংলা সিরিয়াল

চোখে মুখে বিষন্নতার ছাপ স্পষ্ট! কঠিন পরিস্থিতি কাটিয়ে আবারো ‘দিদি নম্বর ১’ এর সেটে ফিরলেন রচনা ব্যানার্জী, রচনাকে পেয়ে খুশির জোয়ার গোটা সেটে

চলতি মাসেই প্রয়াত হয়েছেন রচনা ব্যানার্জীর বাবা। বার্ধক্যজনিত অসুস্থতার কারণেই প্রয়াত হয়েছেন তিনি। এই ঘটনায় মানসিকভাবে একেবারে ভেঙে পড়েছিলেন তিনি। টলিউড ইন্ডাস্ট্রির একসময়ের প্রথম সারির অভিনেত্রী ছিলেন রচনা ব্যানার্জী। তবে বর্তমানে বড়পর্দায় তার দেখা মেলে না বললেই চলে। তিনি আপাতত সিনেমা জগৎ থেকে বেশ অনেকটাই দূরে রেখেছেন নিজেকে। অভিনয় থেকে দূরে সরে যাওয়ার পর টেলিভিশন জগতে ‘দিদি নাম্বার ১’এর সঞ্চালিকা হিসেবেই প্রত্যাবর্তন করেছিলেন অভিনেত্রী।

জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় গেম রিয়লিটি শো হল ‘দিদি নম্বর ১’। বলাই বাহুল্য এই শো দর্শকরা রচনা ব্যানার্জীকে ছাড়া ভাবতেই পারেন না। মাঝে একবার রচনা ব্যানার্জীর পরিবর্তে এই শোয়ের সঞ্চালিকা হিসেবে আনা হয়েছিল দেবশ্রী রায়কে। তবে সেই সময়ে এই শোয়ের টিআরপি কমে গিয়েছিল অনেকটাই। দর্শকদের মধ্যে থেকে অনেকেই রচনা ব্যানার্জীকে ফিরিয়ে আনার দাবি জানিয়েছিলেন। দর্শকদের কথা মাথায় রেখেই পরের সিজনে ফিরিয়ে আনা হয়েছিল রচনা ব্যানার্জীকে।

সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি এপিসোডে দেখা মেলেনি অভিনেত্রীর। আসলে অভিনেত্রীর বাবা প্রয়াত হওয়ার পরে তিনি বেশ কিছুদিনের জন্য টেলিভিশনের পর্দা থেকে বিরতি নিয়েছিলেন। তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন সেইসময়ে নিজের ঐ মানসিক স্থিতি নিয়ে কাজ করতে পারবেন না। তার অনুপস্থিতিতে একদিন সঞ্চালনার দায়িত্ব সামলেছেন ‘রান্নাঘর’ খ্যাত সঞ্চালিত সুদিপা চ্যাটার্জী ও অভিনেতা সৌরভ দাস।

তবে সমস্ত দর্শকদের কাছে এটাই সুখবর রচনা ব্যানার্জী আবারো ফিরেছেন ‘দিদি নম্বর ১’এর সেটে। তার চোখে-মুখে বিষন্নতা স্পষ্ট। বাবাকে হারানোর শোক এত সহজে ভোলা যায় না। তবে আপাতত সেই বিষন্নতা কাটিয়েই সেটে ফিরেছেন তিনি। সেটের সমস্ত কর্মীদের পাশাপাশি উচ্ছ্বসিত এই শোয়ের সমস্ত অনুরাগীরাও। ইতিমধ্যেই ২৯’শে নভেম্বর থেকে দিদির সঞ্চালিত পর্ব দেখানো শুরু হয়ে গিয়েছে টেলিভিশনের পর্দায়। সম্প্রতি রচনা ব্যানার্জীর সেটে ফেরার দিনটি ক্যামেরাবন্দি করে শেয়ার করা হয়েছে জি বাংলার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে, যা এখন নেটদুনিয়ায় ভাইরাল।

Back to top button