বাংলা সিরিয়াল

রঞ্জাকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হয় মল্লার! রক্ত ঝরিয়ে রঞ্জার মনে একটু একটু করে জায়গা করে নিচ্ছে মল্লার

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘পিলু’। এই ধারাবাহিকে বর্তমানে দেখা যাচ্ছে যে, রঞ্জা মল্লারের রসায়ন বেশ জমে উঠেছে। তবে তাদের মধ্যে আবার ভুল বোঝাবুঝি মান-অভিমান ইত্যাদিও দেখা যাচ্ছে। সম্প্রতি ধারাবাহিকে দেখা যায় সেতার পরীক্ষার ফর্ম তুলতে বাইরে যায় রঞ্জা, মাঝরাস্তায় তার গাড়ি খারাপ হয়ে যায়। তখন কুশল তাকে বাড়ি অবধি ছেড়ে দিয়ে যায়। এরপর কুশল রঞ্জাকে একসাথে দেখে সন্দেহ করে মল্লার, সে সন্দেহ করে যে রঞ্জা মিথ্যে বলে কুশলের সাথে বেড়াতে গিয়েছিল।

এই মিথ্যা সন্দেহ দেখে রেগে যায় রঞ্জা সে তখন বলে যে সে বাড়ির কোন খাবারই খাবে না, মাঝ রাত্রে রাগ দেখিয়ে সে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে যায় রাস্তার খাবার খাবে বলে। সেই রাস্তার দোকানে অনেকগুলো গুন্ডা ছিল তারা রঞ্জার সাথে অসভ্যের মতো আচরণ করলে রঞ্জা তাকে মারতে যায় তখন গুন্ডা গুলো আরো অসভ্যতামো করতে শুরু করে। এরপর রঞ্জাকে বাঁচাতে ছুটে আসে মল্লার ‌‌, গুন্ডারা মল্লারের উপর অ্যাটাক করলে হাতে মাথায় এবং পায়ে চোট পায়ে সে।

ধারাবাহিকে দেখানো হয় যে রঞ্জার দিকে এক গুন্ডা ছুরি তাক করে এগোলে রঞ্জাকে বাঁচাতে নিজে ছুটে যায় মল্লার এরপর ছুরিতে ক্ষতবিক্ষত হয় তার হাত। এই ঘটনার পর রঞ্জা ধীরে ধীরে দুর্বল হয় মল্লারের প্রতি। তারা দুজনে বাড়িতে ফিরে এলে দেখা যায় রঞ্জা নিজে মল্লারের আঘাত পাওয়া জায়গায় ওষুধ লাগিয়ে দিচ্ছে, এরপর মল্লারের সেবা করতে থাকে সে।

আঘাত পাওয়া থেকে মল্লারের রাত্রে বেলায় গায়ে জ্বর এলে দেখা যায়, রঞ্জা নিজে না ঘুমিয়ে সারারাত জেগে থেকে মল্লারের মাথায় জল পট্টি দিচ্ছে। এদিকে রঞ্জাকে এইভাবে সেবা করতে দেখে মল্লার‌ও রঞ্জার প্রতি দুর্বল হয়ে পড়ে, বাড়িতে সকলের কাছে রঞ্জার দোষ আড়াল করে সে‌। এইভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে মল্লার ও রঞ্জার সম্পর্ক!

Back to top button