বাংলা সিরিয়াল

‘এই কিছুদিন আগে তিতির তিতির করত এখন বলছে ফুলঝুরি সব, একমুখে কত কথা বলে লালন!’ তিতিরকে ভালো ছেলে দেখে বিয়ে করার কথা বলতেই লালনের উপর চটে যায় নেটিজেনরা!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ধুলোকনা। এই ধারাবাহিকে দেখা যাচ্ছে যে, লালনের চরিত্রের মধ্যে বারবার নানান রকম দ্বন্দ্ব ফুটে উঠছে। স্মৃতিভ্রষ্ট লালন স্মৃতি হারিয়ে ফেলে তিতিরদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছিল।

এরপর একসময় তার কিছু স্মৃতি ফিরে আসে, তখন সে ফুলঝুরি কে চিনতে পারে এবং ফুলঝুরির কাজে ফিরে যায়, এই সময় লালনের চরিত্রের মধ্যে একটা দ্বন্দ্ব ফুটে ওঠে এবং সেই জানায় সে তিতির এবং ফুলঝুরি দুজনকেই পছন্দ করে। তখন সে তিতিরের কাছে ফিরে যায় কারণ সে জানায় যে তিতিরের কাছে থাকতে তার ভালো লাগছে। এরপর ফুল লালনকে ডিভোর্স দেয় যাতে সে তিতিরের কাছে পার্মানেন্টলি থাকতে পারে।

এরপর তিতির এবং লালনের বিয়ের ঠিক হয়। বিয়ের দিন লালন জানতে পারে ফুলঝুরির মাথায় একটা টিউমার হয়েছে এবং তার প্রাণ সংশয়ী একটি অপারেশন হচ্ছে। এইসব কথা শুনে তার অতীত সম্পূর্ণভাবে তার মনে পড়ে যায় এবং তার মনে হয় ফুলঝুরি তার জীবনের সব, সে বিয়ে ভেঙে চলে আসে হাসপাতালে। সেখানে এসে সে ফুলের বৌদিকে বলে যে আমি এতদিন একটা ট্রমার মধ্যে ছিলাম কিন্তু আজ আমি সবটা বুঝতে পেরেছি ফুলঝুরি আমার জীবনের একমাত্র সত্য।

এরপর দেখা যায় হাসপাতালে তিতির এবং তিতিরের বাড়ির লোকজন আসছে। তাদেরকে লালন বলে বিশেষ করে তিতিরের মাকে লালন বলে যে-আমি এতদিন অনেক কিছু ভুল করেছি কিন্তু আজ আমি সমস্ত সত্যিটা উপলব্ধি করেছি ফুলঝুরি আমার জীবনের সব আমি আর অন্যায় করতে পারবো না।

এমনকি সে তিতিরের মাকে আরো বলে যে তিতিরকে একটা ভালো ছেলে দেখে বিয়ে দিতে। এমনকি সে ভালো ছেলের সন্ধান করে দিতে পারে বলেও জানায়। এই এপিসোড দেখে একজন নেটিজেন সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন যে,“লালন এখন তিতিরের মাকে বলছে
তিতিরের একটা ভালো দেখে বিয়ে দাও

এক মুখে কত কথা বলে এই লালন”

Back to top button