সিরিয়ালে আগমন মুসলিম চরিত্রের! পরতে শুরু করেছে খড়কুটো ধারাবাহিকের টিআরপি রেটিং

জি বাংলার খড়কুটো ধারাবাহিকটি সম্প্রচারিত হওয়ার পরপরই মন জয় করে নিয়েছিল বাংলা সিরিয়াল প্রেমীদের। অনেকেই মনে করেছিলেন ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ ধারাবাহিকটির পর খড়কুটো হচ্ছে সেই ধারাবাহিক যেখানে কূটকাচালির থেকে জয়েন্ট ফ্যামিলি এবং ফ্যামিলি মেলোড্রামাকে অনেক বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

দর্শকের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেছিল এই ধারাবাহিকের একাধিক চরিত্র। কারণ তারা সব সময় একে অপরের সঙ্গে খুনসুটিতে মেতে থাকতে ভালোবাসে। কিন্তু এবার সেই খড়কটোরই টিআরপি রেটিং নিম্নগামী। প্রথম থেকেই জি বাংলার টিআরপি রেটিং লিষ্টের প্রথম তিনের মধ্যে থাকতো ধারাবাহিকটি।

কিন্তু সম্প্রতি প্রকাশিত হওয়া টিআরপি রেটিং লিস্টে দেখা গেছে ধারাবাহিকটি একেবারে নেমে গিয়ে ষষ্ঠ স্থান অধিকার করেছে।
কিন্তু কেন এই অবনতি? নেটিজেনদের একাংশ বলছেন ধারাবাহিকে নতুন চরিত্র ‘আদিল’ এর আগমনের পর থেকেই নামতে শুরু করেছে খড়কুটোর জনপ্রিয়তা। একাংশ অভিযোগ করছেন ধারাবাহিকটি প্রশ্রয় দিচ্ছে লাভ জিহাদকে।

ধারাবাহিকের প্লট অনুযায়ী বড় জ্যাঠার মেয়ে মুনিয়া চরিত্রটি পরিবারের অমতে মুসলমান পরিবারে বিয়ে করছিল। আদিল হচ্ছে সেই মুনিয়ারই সন্তান। অনেকে আবার ধারাবাহিকটিকে অতিরিক্ত ড্রামার দোষে অভিযুক্ত করেছেন। গুনগুন এবং আদিলের মধ্যেকার বন্ধুত্ব অনেকেরই চক্ষুশূল।

একাংশ বলছেন তাদের প্রিয় ফ্যামিলি ড্রামা তে তারা একটি মুসলমান চরিত্রকে মানতে রাজি নন। পাশাপাশি অনেকেই বলছেন গুনগুন এবং আদিলের বন্ধুত্বের ফলে ভাঙ্গন ধরেছে গুনগুন এবং বাবিনের সম্পর্কে। তাই কিছুতেই এই বন্ধুত্ব মেনে নেওয়া যায় না।

এখন এটাই দেখার দর্শকের চাহিদা কে মেনে আদিল চরিত্রটিকে ধারাবাহিকের বাইরে ফেলে দেওয়া হয় কিনা। আবার অনেক নেট নাগরিকই সমর্থন করছেন ধারাবাহিকের এই প্লটকে। তাই তারা অপেক্ষায় আছেন এটা দেখার জন্য আদিল চরিত্রটির কি পরিনতি হয়।