বাংলা সিরিয়াল

কালি ফুরিয়ে গিয়েছিল বলে পদার্থবিদ্যায় ১০০ তে ৯৮ পেয়েছিল মাধবীলতা! সত্যি হার্ট টাচিং মোমেন্ট মাধবীলতা দেখে বলছেন দর্শকরা!

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো ‘মাধবীলতা’। এই ধারাবাহিকে মূখ্য চরিত্রের নাম হলো মাধবীলতা, সে একটি বন্য মেয়ে, তার মা নেই ,সে জঙ্গলে বেড়ে উঠেছে ছোটো থেকে তাই জঙ্গল তার প্রাণ আর গাছ হলো তার মা। গাছেদের চোরা কারবার ব্যবসায়ী পুষ্প রঞ্জন চৌধুরীর সাথে তার লড়াই, গাছ কাটতে সে দেবে না। অন্যদিকে
পুষ্প রঞ্জন চৌধুরীর ছেলে সবুজ তাকে ভালোবেসে বিয়ে করে। সেও সবুজের পিতৃপরিচয় না জেনে এই বিয়ে করে ফেলে। এরপর সে সবুজকে কথা দেয় যে তার শ্বশুরকে সে শুধরে দেবে। এরপর ধারাবাহিকে দেখানো হয় যে, মাধবীলতা পুষ্পরঞ্জন চৌধুরীকে গাছের কথা বলছে। গাছের উপকারিতার কথা বলছে।

মাধবী তার শ্বশুর মশায় কে বলছে, গাছ কাটলে পৃথিবীর তাপমাত্রা দিন দিন বাড়তে থাকবে এরপর পৃথিবীটা আগুনের গোলা হয়ে যাবে। তার বাবা গ্রামের মানুষ হওয়া সত্ত্বেও গাছের উপকারিতা জানে আর তারা জানে না? এরপর সবুজ অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করে, তুমি এত কিছু জানো? তখন মাধবী বলে, কেন গ্রামে থাকি বলে কি আমি অশিক্ষিত? আমি পদার্থবিদ্যায় একশোর মধ্যে ৯৮ পেয়েছিলাম আর দু’নম্বর পাইনি কেন জানেন? কারণ আমি যে কলম টাই লিখছিলাম সেই কলমের কালি ফুরিয়ে গিয়েছিলো আর একটা কলম কেনার পয়সা আমার কাছে ছিল না, আমি সকলের কাছ থেকে একটা কলম চেয়েছিলাম কিন্তু কেউ আমাকে দেয়নি। আর আমি লিখতে পারিনি তাই দুই নম্বর পাই নি।

যা দেখে একজন নেটিজেন লিখেছেন,“
আজ মাধবীলতা দেখে খুব কষ্ট পেলাম

মাধবী পদার্থবিদ্যায় ৯৮ নাম্বার পেয়েছিলো

আর দুই নাম্বার কেনো পায় নি জানো???
কলমের কালি ফুরায় গেছিলো
দুটো কলম কেনার সামর্থ্য ছিলো না
তাই দু নম্বর পায়নি

সত্যি হার্ট টাচিং মোমেন্ট ”

Back to top button