বাংলা সিরিয়াল

‘পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত গ্রামের মেয়ে হয়েও গ্রামের মাটিতে হাঁটা ইন্দ্রানীর কাছে নতুন অভিজ্ঞতা কেন হতে যাবে? তাহলে এই আড্ডা তে তিনি যা বলছেন সেটাও কি দর্শক টানার জন্য স্ক্রিপ্টেড অভিনয়?’ নবাব নন্দিনীর ইন্দ্রানীর ভিডিও দেখে ট্রোলিং শুরু করলেন দর্শক

স্টার জলসার ‘ নবাব নন্দিনী’ ধারাবাহিকে নন্দিনী অর্থাৎ ইন্দ্রানী পালের একটি ভিডিও সম্প্রতি চ্যানেলে আপলোড করা হয়েছে যেখানে নন্দিনী বিভিন্ন অভিজ্ঞতার কথা বলছে, যে গুলো নবাব নন্দিনী করতে গিয়ে তার হয়েছে। ইন্দ্রানী বলছে যে, সে প্রথম দিকে ভেবেছিলো কীভাবে সে শুটিং করবে সবাই কী রকম হবে? কারণ একমাত্র অনন্যা ছাড়া এখানে সে কাউকেই চিনতো না। কিন্তু শুটিং করতে করতে সে বুঝলো সবাই ভীষণ ভালো, সবাই ভীষণ সাপোর্ট করে তাকে। এখন সে সবার সাথে আনন্দ করে মজা করে কাজ করে। সবাই একটা পরিবারের মত হয়ে গেছে তার কাছে।

এরপর নবাব নন্দিনীর শুটিং করতে গিয়ে নতুন অভিজ্ঞতার কথা জিজ্ঞেস করা হয়, তখন ইন্দ্রানী বলে এই কাজটি করতে গিয়ে অনেক নতুন নতুন অভিজ্ঞতা হয়েছে তার- যেমন নবাব নন্দিনীতে একটি সুইমিংপুলে পড়ে যাওয়া দৃশ্য ছিলো। এই দৃশ্যটা করতে গিয়ে তার ভীষণ মজা হয়েছে কারণ এমনিতেই সে জলে ভয় পায় সে সাঁতার জানে না। তারপরে তাকে জলের মধ্যে ওই ভাবে পড়তে হয়েছে, তো খুব মজা করে সে এই কাজটা করেছে।

নবাবের সাথে তার কেমিস্ট্রি কেমন জমে উঠেছে এই প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করা হলে ইন্দ্রানী বলে প্রথম থেকে বন্ধুত্ব ছিলো তবে এখন যেহেতু নবাবের সাথে বেশি সিন করতে হচ্ছে তাই বন্ধুত্বটা আরো বেশি গাঢ় হয়েছে। দুজনে মিলে ভীষণ মজা করে সিন করে তারা।

এরপর ইন্দ্রানী বলে তারা যখন পপি কিচেনে গিয়েছিল সেটাও তার জন্য একটা দারুণ অভিজ্ঞতা ছিল কারণ গ্রামের মধ্যে গিয়ে প্রচুর মানুষের সাথে তাদের সাক্ষাৎ হয়েছে প্রচুর মানুষের তারা ভালবাসা পেয়েছে এটা আগে কখনো হয়নি। এছাড়া এখানে তিনি আরো বলেন যে, গ্রামে গিয়ে গ্রামের মাটিতে হাঁটাটা তার কাছে একটা নতুন অভিজ্ঞতা, কারণ পায়ে মাটি লেগে তার পা ভারি হয়ে যাচ্ছিল-এই অংশটা শুনে নেটিজেনদের একটি অংশ বলছেন, আমরা তো জানতাম ইন্দ্রানী পুরুলিয়ার প্রত্যন্ত একটি গ্রামের মেয়ে তাহলে তার কাছে গ্রামের মাটিতে হাঁটা বা গ্রাম কেন নতুন অভিজ্ঞতা হতে যাবে? তাহলে কি এই আড্ডা তে তিনি যা বলছেন সেটাও কি দর্শক টানার জন্য স্ক্রিপ্টেড?

ঐ ভিডিওতে নবাব নন্দিনী প্রসঙ্গে ইন্দ্রানী আরো বলেন যে তারা ভীষণ খাটাখাটনি করে এই কাজটা করে, তাই সবাই যেন তাদের এই কাজটা দেখে তাহলে তাদের পরিশ্রম সার্থক হবে। ইন্দ্রানী আরও বলে যে, সে জানে তাদেরকে সবাই খুব ভালোবাসে কিন্তু সে অনুরোধ করছে সবাই যেন তাদেরকে আরেকটু বেশি ভালোবাসে এবং রোজ সন্ধ্যে ছটায় নবাব নন্দিনী দেখে স্টার জলসায়।

Back to top button