বাংলা সিরিয়াল

“আপনাদের এই বুদ্ধির জন্যে অস্কার দেওয়া উচিত” – পুজোর নারকেল একহাতে ভেঙে সেই জল দিয়ে নায়িকা জ্ঞান ফেরাবেন হবু শাশুড়ি মায়ের! হরগৌরী পাইস হোটেলের নতুন প্রোমো দেখে তাজ্জব দর্শক

বর্তমানে মানুষের কাছে বিনোদন বলতে অন্যতম হয়ে উঠেছে ধারাবাহিক। নিজেদের টিআরপি বজায় রাখতে প্রত্যেকটি চ্যানেল নতুন নতুন ধারাবাহিক এনেছে। তেমনি স্টার জলসা তে এসেছে হরগৌড়ি পাইস হোটেল। বিভিন্ন চ্যানেলে নতুন নতুন ধারাবাহিকে দেখানো হচ্ছে বিভিন্ন প্রেক্ষাপট। আমরা সকলেই জানি দর্শক আজকাল পছন্দ করছে খুবই বাস্তববাদী সামাজিক ও সাধারণ জীবনের সাথে যুক্তিযুক্ত ধারাবাহিক। কিন্তু তারপরেও বর্তমান ধারাবাহিকগুলিতে দেখানো হচ্ছে যে প্রথমে প্রেক্ষাপট হয়তো মানুষের পছন্দের মত করেই তৈরি করা হচ্ছে কিন্তু তারপর সেখানে দেখানো হচ্ছে অদ্ভুত সব ঘটনা।

এরকমই কিছু নতুন ধারাবাহিকের সাথে এসেছে স্টার জলসার হরগৌরী পাইস হোটেল। ধারাবাহিক শুরু হওয়ার আগে বেশ গুঞ্জন সোনা গিয়েছিল যে ধারাবাহিকটি তোমায় আমায় মিলে সিজন টু। কিন্তু এসব গুঞ্জন ভেঙে দিয়ে নায়ক নিজেই বলেছিলেন যে ব্যাপারটা ঠিক তা নয় এটা একটা নতুন ধারাবাহিক। কিন্তু তারপরও মানুষের মধ্যে রয়ে গিয়েছে বিষয়টি। যাই হোক এসব গুঞ্জনের মধ্যেই শুরু হয় এই নতুন ধারাবাহিক হরগৌরী পাইস হোটেল।

ধারাবাহিক শুরু হয়েছে মাত্র অল্প কয়েকদিন। তার মধ্যেই দর্শকের চোখের সামনে আসলো নতুন এপিসোডের প্রোমো। কিন্তু এই প্রমো দেখে দর্শকের চোখ তো ছানাবড়া। ধারাবাহিকে এমন সব দৃশ্য দেখানো হচ্ছে যা একেবারেই অবাস্তব। যদিও এর আগে বহু ধারাবাহিক এমন দেখা গিয়েছে যেখানে এইসব অদ্ভুত অলৌকিক কান্ড দেখানো হত। কিন্তু এখনকার দর্শক যেসব পছন্দ করছে না সেটা কি বুঝতে পারে না চ্যানেল কর্তৃপক্ষ? যদি তাঁরা বুঝতেই পারে, তাহলে তার পরেও নতুন ধারাবাহিক গুলোতে কেন এ ধরনের অদ্ভুত ঘটনা দেখানো হয়? বলাবাহুল্য এই নতুন প্রমো খুব একটা বেশি পছন্দ হয়নি দর্শকের। নতুন প্রমাণ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ জল ঘোলা হয়েছে।

সম্প্রতি প্রকাশিত হওয়া ধারাবাহিকের প্রমোতে দেখানো হচ্ছে যে নায়িকা কৌশানি সকলকে ঘুরিয়ে দেখাচ্ছে মন্দির। সে সময় হঠাৎ করে সে দেখতে পায় শঙ্করের মায়ের শরীর খারাপ করছে আসে জল জল বলছে। এদিকে শঙ্করের মাকে বাঁচাতে দৌড়ে আসে কৌশানি আর তারপরেই লাল ওড়না উড়ে এসে পরে কৌশানির মাথায়। যা শঙ্করের মা কিনেছিল তার হবু বৌমার জন্য। অন্যদিকে আবার বাড়িতে হইচই পড়ে যায় যে শঙ্করের মা দরকারি ব্যাগ নিয়ে বেরোয় নিয়ে আর সেটা নিয়ে হুলস্থুল পরে যায় বাড়িতে।

পরবর্তী আবার এদিকে দেখানো হয় যে কৌশানি তড়িঘড়ি করে পূজোর নারকেল ভেঙে তার জল খাওয়াচ্ছে হবু শাশুড়ি মাকে। এভাবেই শাশুড়ি মায়ের জ্ঞান ফিরিয়ে আনবে সে। তবে এভাবে যে অসুস্থ মানুষের জ্ঞান ফেরানো যায় এই বিষয়টিতেই খিল্লি করেছেন দর্শক। সাধারণত এইসব জিনিস কারোর মাথায় আসবে না যে নারকেল ভেঙে জল খাওয়ানো যায়। সোশ্যাল মিডিয়ার একাংশ দর্শক এই নিয়েই সমালোচনা করেছেন যে আরে সিরিয়ালের নায়িকারা সব করতে পারে। এরপরে শঙ্করের মা কৌশানিকে ভালোবেসে ফেলবে আর তারপরেই বিয়ে। সেই এক পুরনো বাধা ধরা ছকের সিরিয়াল।

Back to top button