বাংলা সিরিয়াল

অবশেষে সামনে এলো রাজা- মধুবনীর পুত্রসন্তানের প্রথম ভিডিও, দর্শকদের অনুরোধ রাখতে জন্মাষ্টমী দিন ছেলেকে সকলের সামনে নিয়ে আসলেন তারকা জুটি

বাংলা টেলিভিশন জগতের ছোটপর্দার অন্যতম দুটি পরিচিত মুখ হল মধুবনী গোস্বামী এবং রাজা গোস্বামী। আসল নামে থেকে তাদের দুজনকে সবাই ওম এবং তোড়া হিসেবেই চেনে। হ্যাঁ, স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ভালোবাসা ডট কম এর নায়ক ও নায়িকা মধুবনী এবং রাজার কথাই বলা হচ্ছে এখানে। কিছু ধারাবাহিক আছে যেগুলি আমাদের মনে আজীবন থেকে যায়, কিছু এমন ঘটনা যা আমাদের মনে দাগ কেটে যায় সেরকম একটি ধারাবাহিক হলো ভালোবাসা ডট কম এবং সেই ধারাবাহিকের দুই চরিত্র ওম এবং তোড়া কে এখনো মানুষ মনে রেখেছেন।

ভালোবাসা ডট কম ধারাবাহিকের সেটেই প্রথম মধুবনী ও রাজার আলাপ। সেখান থেকেই বন্ধুত্ব তারপর প্রেম এবং অবশেষে ২০১৬ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এই জুটি। তাদের সম্পর্কের বয়স এখন ১১ বছর, এরপর বিয়ের পাঁচ বছর বাদে তাদের ঘরে এসেছে ফুটফুটে পুত্রসন্তান। ভালোবেসে মধুবনী তার ছেলের নাম রেখেছেন কেশব।

মধুবনী বরাবরই কৃষ্ণ ভক্ত, তাই কৃষ্ণের নামের সঙ্গে মিল রেখেই ছেলের নামকরণ করেছেন কেশব। এতদিন সোশ্যাল মিডিয়াতে আমরা বিভিন্নভাবে কেশবকে দেখেছি তার বাবা-মায়ের সঙ্গে, কিন্তু স্পষ্ট ভাবে তার মুখ আমরা কেউই দেখিনি। দর্শকদের অনেক অনুরোধ ছিল মধুবনী এবং রাজার কাছে তাদের ছেলের মুখ দেখানোর জন্য। তবে সেই সময় মধুবনী জানিয়েছেন “আপাতত আমি আমার সন্তানের মুখ সকলের সামনে আনতে চাই না, ঠিক সময় আমি যদি মনে করি তাহলে অবশ্যই ওকে সকলের সামনে নিয়ে আসব এই সিদ্ধান্ত আমাদের দুজনের এবং তা খুবই ব্যক্তিগত এই সিদ্ধান্ত, বাকি যেসব তারকারা তাদের সন্তানকে সামনে নিয়ে আসে সেটি ও তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার”।

একমাত্র সন্তানের সুরক্ষায় ভীষণ সতর্ক রাজা এবং মধুবনী। তারা এখনই ছেলেকে সোশ্যাল মিডিয়ার সামনে আনতে চান না। ছেলে হলো মধুবনী প্রাণভোমরা, সারাক্ষণ ছেলেকে আদর যত্নে ভরে রাখেন তিনি। এমনকি ছেলের যত্নের জন্য কোন সাহায্য নেন নি তিনি নিজেই ছেলেকে মানুষ করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাই বর্তমানে অভিনয় জগৎ থেকে নিজেকে দূরে রেখেছেন মধুবনী।

তবে জন্মাষ্টমীর দিন সকল ভক্তের ইচ্ছেপূরণ হল। মধুবনী অবশেষে তার পুত্র সন্তানের মুখদর্শন করালেন সকলকে, ঐদিন সবার সামনেই মধুবনী তার পুত্র সন্তানকে নিয়ে আসলেন। দর্শকেরা মধুবনী সন্তানকে দেখে বেজায় খুশি। সকলেই ভালোবাসায় ভরিয়ে দিয়েছে মধুবনী কমেন্ট বক্স।

Back to top button