বাংলা সিরিয়াল

বছরের শুরুতেই ভুয়ো শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেফতার হলো সরকার পরিবারের বড় ছেলে! পর্দার সাত‍্যকি বড় বিপদের মুখে পড়েছে

বছরের শুরুতেই সরকার বাড়িতে নেমে আসলো বিপদের কালো ছায়া। জি বাংলা জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ এর সরকার বাড়িতে নতুন বছরের শুরুতেই ঘটে গেল এক অঘটন। ভুয়ো শ্লীলতাহানীর অভিযোগে গ্রেফতার হলো সাত্যকি।

ধারাবাহিকে দেখানো হয়েছে যে নতুন বছরের উপহার হিসেবে উর্মির দাদু সাত্যকি এবং উর্মিকে তাদের একটি বাগানবাড়ি উপহার দিয়েছে। তবে এই ঘটনা কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না উর্মির মামনি তাই জন্যই নানা ছল চাতুরী করে উর্মির কাকাকে দিয়ে সাত্যকি কে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

তাই সাত্যকি কে বিপদে ফেলার জন্যই একজন মহিলাকে 5 লাখ টাকার বদলে এই কাজ করতে বলে উর্মির কাকা। আর মোটা টাকার লোভে পড়ে এসেই মেয়েটিও রাজি হয়ে যায় এই ধরনের অপরাধমূলক কাজ করতে। সেই মতই সাত্যকি র ট্যাক্সিতে উঠে ওই মহিলা নিজে থেকেই নিজের কাপড় জামা ছিঁড়তে থাকে এবং চিৎকার করতে থাকে বাঁচাও বাঁচাও বলে। ওই মহিলার চিৎকার শুরু হয় আশেপাশের এলাকার মানুষজন জড়ো হয়ে যায় এবং সকলে ওই মেয়েটির মিথ্যা অভিযোগের কথা শুনে সাত্যকি কে গণপিটুনি দেয়।

তবে এরপরে সাত্যকিদের বাড়িতে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে পুলিশ সাত্যকিকে গ্রেফতার করতে আসে এবং বাড়ির সকলের সামনে দিয়ে সাত্যকিকে থানায় নিয়ে যায় টানতে টানতে এবং সবথেকে বড় চমক হলো উর্মিও এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে সাত্যকিকে কিছুতেই বিশ্বাস করতে পারছে না। আর উর্মির কাকার এইটাই পরিকল্পনা ছিল উর্মির চোখে সাত্যকিকে নিচু করে দেওয়া। তাদের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি করা। তবে আগামী দিনে ধারাবাহিকে কি হতে চলেছে সেটা দেখার জন্য আপনাদের চোখ রাখতে হবে প্রতি সোম থেকে শুক্র রাত দশটায় জি বাংলার পর্দায়।

Back to top button