ছক ভাঙা শাশুড়ি-বৌমার বন্ধুত্বের গল্পেই সুপারহিট হয়েছিল ‘ওগো বধূ সুন্দরী’! দর্শক চাইছেন আবার তা ফিরে আসুক স্টার জলসায়

কিছু কিছু ধারাবাহিক শেষ হয়ে গেলেও ছাপ রেখে যায় দর্শকের মনে। ধারাবাহিকটি শেষ হয়ে গেলেও দর্শকরা চান সেটি আবারো ফিরে আসুক পর্দায়, যাতে তা আরো একবার দেখা যায়।

তেমনই একটি ধারাবাহিক হলো ‘ওগো বধূ সুন্দরী’। ২০০৯ সালে সম্প্রচারিত হয়েছিল এটি স্টার জলসার পর্দায়। ধারাবাহিকটি চলেছিল মাত্র এক বছর। কিন্তু প্রথম থেকে শেষ দিন পর্যন্ত তার টিআরপি রেটিং ছিল অত্যন্ত ভালো।

এই ধারাবাহিকটি দিয়েই অভিনয় জগতে ডেবিউ করেছিলেন টলিউড অভিনেত্রী ঋতাভরী চক্রবর্তী। সঙ্গে ছিলেন তুলিকা বসুর মত সিনিয়র অভিনেত্রীরা।

লকডাউন এর কারণে বর্তমানে টলিউডের ধারাবাহিক গুলির শুটিং বন্ধ। তার ফলে পুরনো এপিসোড দেখতে হচ্ছে দর্শকদের।
তাই তারা চাইছেন পুরনো সিরিয়াল গুলি যখন ফেরানো হচ্ছে তখন স্টার জলসার পর্দায় আরেকবার ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ কে ফেরানো হোক।

তবে চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফে এখনো এ ব্যাপারে কোন ফাইনাল ডিসিসন নেওয়া হয়নি বলে জানা গেছে। কেন এই ধারাবাহিকটি এত জনপ্রিয় দর্শকদের মধ্যে এ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে বলতেই হয় ধারাবাহিকটির গল্পের জন্য।

অন্যান্য ধারাবাহিকের মত একঘেয়ে শাশুড়ি বৌমার ঝগড়া ও কুটকাচালি নয়। বরং ধারাবাহিকটি তৈরি হয়েছিল শাশুড়ি বৌমার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের উপর নির্ভর করে।

বৌমার পাশে দাঁড়িয়ে শাশুড়ি তাকে হাতে ধরে শিখিয়েছিলেন যৌথ পরিবারের নিয়মাবলী। তেমনি বৌমা শাশুড়ির মধ্যে খুঁজে পেয়েছিল নিজের মাকে। সব মিলিয়ে হাসি মজায় যৌথ পরিবারের হই-হুল্লোড়ের গল্পে দর্শকের মন জয় করে নিয়েছিল ওগো বধূ সুন্দরী।