বাংলা সিরিয়াল

মাতৃরুপে আত্মপ্রকাশের পর কটাক্ষের মুখে গদাধর, সকল অপমানের যোগ্য জবাব দিলেন নিজেই

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক গুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হলো রানী রাসমণি। গত চার বছর ধরে এই ধারাবাহিক জি বাংলার পর্দায় সম্প্রচারিত হয়েছে এবং প্রতিদিনই দর্শকদের যেন আরো কাছের হয়ে উঠছে এই ধারাবাহিক। বর্তমানে এই ধারাবাহিকে রানী রাসমনির উত্তর পর্ব দেখানো হচ্ছে।

উত্তর পর্বে গদাধর কি করে শ্রীরামকৃষ্ণ হয়ে ওঠেন সেই কাহিনী ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে। গদাধর আস্তে আস্তে সাধ্য সাধনার মাধ্যমে রামকৃষ্ণ হয়ে উঠছেন তা আমরা দেখতেই পাচ্ছি। কিছুদিন আগেই দুর্গা পুজোর বিশেষ পর্ব দেখানো হয়েছে ধারাবাহিকে, আর তখনই আমরা রামকৃষ্ণের অন্য আরেক রূপ দেখেছি তার মাতৃ রূপে প্রকাশ ঘটেছে দক্ষিণেশ্বর মন্দিরে।

ধারাবাহিকের উত্তর পর্বে পুরনো কিছু চরিত্রের মৃত্যু ঘটেছে যেমন মথুরামোহন কয়েকদিন আগেই পরলোকগমন করেছেন এবং সেইসঙ্গে ঘটেছে আরো বিভিন্ন চরিত্রের আগমন যেমন দ্বারিকানাথ এর স্ত্রী, পূর্ণ বয়স্ক সারদা মা এবং এই মুহূর্তে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র হল ঈশ্বরের বরপুত্র রামলালা। আর এই রামলালা কে দেখামাত্র গদাধরের মাতৃরূপেণ প্রকাশ ঘটেছে। সেই কারণেই গদাধর শাড়ি শাঁখা সিঁদুরের মাতৃরূপে সেজে উঠেছিলেন।

সম্প্রতি পর্বগুলিতে দেখানো হচ্ছে রামকৃষ্ণের এই হীন রূপের কথা শুনে হারান ঠাকুরের মতো বিভিন্ন জ্ঞানীগুণী পণ্ডিতের ছুটে আসছে দক্ষিণেশ্বরের মন্দিরের রামকৃষ্ণ কে দেখার জন্য। তাদের সঙ্গে করে নিয়ে এসেছেন জমিদার নগেন চৌধুরী রামকৃষ্ণের এইহানে রূপ নিয়ে সকল ব্যক্তিরাই রামকৃষ্ণকে বিভিন্ন প্রশ্নে জর্জরিত করে তোলে কিন্তু প্রতিবারের মতোই রামকৃষ্ণ বিরক্ত না হয়ে সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দেন কিন্তু রামকৃষ্ণের প্রশ্নের উত্তরের জবাব এর কোন মানে ধরতে পারেনা তারা তাই তারা গদাধর কে অপমান করে চলে যায়।

Back to top button