বাংলা সিরিয়াল

প্রেমিক অভিষেক বসুর সাথে সম্পর্ক বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন ‘মিঠাই’-এর শ্রীতমা অভিনেত্রী দিয়া মুখার্জি

জি বাংলার জনপ্রিয় ধারাবাহিক মিঠাইয়ের শ্রীতমা অর্থাৎ দিয়া মুখোপাধ্যায় কে তো আমরা সকলেই চিনি। এর আগেও জি বাংলার বিভিন্ন ধারাবাহিকে দিয়া অভিনয় করেছেন। সম্প্রতি ইন্ডাস্ট্রিতে দিয়া এবং তার বহু পুরনো প্রেমিক অভিনেতা অভিষেক বসুর বিচ্ছেদের গুঞ্জন উঠেছে, যা নিয়ে এবার সরাসরি মুখ খুললেন দিয়া।

বর্তমানে দিয়া জি বাংলার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক মিঠাই তে শ্রীতমার ভূমিকায় অভিনয় করছেন। ধারাবাহিকের সকলের সঙ্গে দারুন সম্পর্ক। শুটিং এর পড়ে দারুন মজা করে কাটায় সবাই। ধারাবাহিকে সিদ্ধার্থের চরিত্রে অভিনয় করছেন আদৃত রায় এবং শ্রীনিপার চরিত্রে অভিনয় করছেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা সাহা এরা দুজন শ্রীতমা অর্থাৎ দিয়া মুখার্জির ভীষণ কাছের বন্ধু এদের দুজনের সাথে বেশিরভাগ সময়টা কাটান দিয়া।

আদৃককে অন স্ক্রীন অফ স্ক্রীন সবসময় দাদাভাই বলে সম্বোধন করেন দিয়া একদিকে বন্ধু অন্যদিকে দাদা বোনের সম্পর্ক আদৃত এবং দিয়ার। ধারাবাহিকের মাধ্যমে তাদের একটি বন্ধুর গ্রুপ তৈরি হয়েছে। এমনকি কিছুদিন আগে আদৃত রায় এর নতুন গাড়ি করে মিঠাই পরিবার লং ড্রাইভে বেরিয়েছিল। দিয়া নিজেও গাড়ি চালাতে পারেন, কিছুদিন আগেই গাড়ির লাইসেন্স পেয়েছেন।

মেয়েদের গাড়ি চালানো নিয়ে বিভিন্ন লোকের বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য। তাদের ধারণা মেয়েরা গাড়ি চালাতে পারে না তবে দিয়ার বিশ্বাস একদিন এই ভুল ভেঙে যাবে কারণ তিনি মনে করেন মেয়েদের ধৈর্য শক্তি সবচেয়ে বেশি তাই মেয়েরা সব থেকে ভালো গাড়ি চালাতে পারেন। সম্প্রতি দিয়া এবং অভিষেকের সম্পর্ক ভাঙ্গন ধরা দিয়েছে ২০১৭ সালের জি বাংলার সীমারেখা ধারাবাহিকে অভিনয় করতে গিয়ে দিয়া এবং অভিষেকের পরিচয়।

সেখান থেকেই তাঁদের প্রেমের সূত্রপাত। চলতি বছরে কয়েক মাস আগেই দিয়া এবং অভিষেকের প্রেমে ভাঙ্গন ধরে, ইনস্টাগ্রামে একে অপরকে আনফলো করে তারা এমনকি তাদের প্রোফাইলে যে সমস্ত ছবি ছিল সেগুলো ডিলিট করে দেয় দুজন দুজন প্রোফাইল থেকে। তবে তাদের পুরনো ছবি এখনো সোশ্যাল মিডিয়ার আনাচে কানাচে ঘুরে বেড়াচ্ছে। দিয়া জানিয়েছেন কোথাও গিয়ে তাদের দুজনের মতের মিল হচ্ছিল না তাই এই সিদ্ধান্ত। অভিষেকের এই সিদ্ধান্তে দিয়া প্রথমে খুবই ভেঙে পড়েন, কিন্তু পরে তিনি নিজেকে সামলে নেন। একসঙ্গে দীঘা এবং মন্দারমনি ঘুরতে গিয়েছিল এই কাপেল।

দিয়া এবং অভিষেকের ব্রেকআপের পর টলিপাড়ায় গুঞ্জন উঠেছিল। মিঠাই ধারাবাহিকের রাতুল অর্থাৎ উদয় কে নিয়ে কিছু নেটিজেন এর ধারণা ছিল এবং উদয় এর মধ্যে সম্পর্ক তৈরি হয়েছে যার জেরে ভাঙ্গন ধরেছে অভিষেক এবং দিয়া সম্পর্কের। এই কথাটি জানাজানি হতেই দিয়া প্রচন্ডভাবে আঘাত পান এবং তিনি তৎপর হয়ে ওঠে এই ধরনের খবর ছড়াচ্ছে তা জানার জন্য। দিয়া এর আগেও সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন উদয় এবং সে খুবই ভালো বন্ধু একসময় একটি ধারাবাহিকে কাজ করেছেন তারা। তারপর বহু বছর বাদে আবার মিঠাই ধারাবাহিকে তাদের দেখা। উদয় কে বাংলা পড়ে দিতে সাহায্য করে দিয়া এবং ধারাবাহিকের মাধ্যমেই তাদের বন্ধুত্ব তবে এর চেয়ে বেশি কোন সম্পর্ক তাদের মধ্যে নেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব একটা অ্যাক্টিভ থাকেন না তিনি। অবসর সময় তিনি ধ্যান করেন, এমনকি শুটের মাঝেও ফাঁক পেলেই ধ্যানে বসেন তিনি সে সময় তাকে কেউ বিরক্ত করে না।

শিশুশিল্পী হিসেবে এই ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথম পা রাখেন দিয়া। মিঠুন চক্রবর্তী মত অনেক বড় বড় শিল্পীর সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি, টেলিভিশনের মাধ্যমে তাঁর প্রবেশ। ছোটবেলা থেকেই তাঁর অভিনয় প্রতি আগ্রহ দেখে তার মা-বাবা আকাশ বাংলায় তার ছবি জমা দেয় সেখান থেকেই ডাক আসে দিয়ার। এখনো পর্যন্ত বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন দিয়া। তবে নায়িকার চরিত্রে কখনো অভিনয় করার সুযোগ আসেনি তার কিন্তু তা নিয়ে কোনো আফসোস নেই দিয়ার তিনি মনে করেন অভিনয় যদি ভাল হয় সব চরিত্রের প্রাধান্য পায়।

Facebook Notice for EU! You need to login to view and post FB Comments!
Back to top button