মানুষের জন্য নিজের করোনার ওষুধ দান করতে চাইলেন ‘দেশের মাটি’-এর নোয়া

ভারতে শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যা গতবারের তুলনায় মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। ভারত হেঁটেছে আংশিক লকডাউনের পথে। অক্সিজেনের সঙ্কট, বেডের ঘাটতি সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে বিপর্যস্ত মানবসমাজ। সেলিব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষ, যে যেভাবে পারছেন, একে অপরের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছেন। এবার এগিয়ে এলেন ‘দেশের মাটি’-র ‘নোয়া’ শ্রুতি দাস (Shruti Das)।

কিছুদিন আগেই করোনামুক্ত হয়েছেন শ্রুতি। কিন্তু করোনামুক্ত হওয়ার পরেও তাঁর কাছে অতিরিক্ত কিছু ওষুধ রয়ে গিয়েছে। আবার কয়েকটি ওষুধের ডোজ অলসতা বশতঃ পূর্ণ করেননি শ্রুতি। এবার শুধু শুধু সেই ওষুধগুলি বাড়িতে ফেলে না রেখে দুঃস্থ করোনা রোগীদের জন্য দান করতে চাইলেন শ্রুতি। ওষুধগুলির ছবি ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করে শ্রুতি এই কথা লিখতেই অনেক সাড়াও মিলেছে। তবে শ্রুতি জানিয়েছেন যদি কোনো ব্যক্তির এই ওষুধগুলি প্রয়োজন হয়, তিনি শ্রুতির ইনবক্সে ডাক্তারের প্রেসক্রিপশনের ছবি পাঠালে তবেই তাঁকে ওষুধগুলি দেবেন শ্রুতি। শ্রুতির এই উদ্যোগ নেটিজেনদের কাছে প্রশংসিত হয়েছে।

গত 6 ই এপ্রিল শ্রুতি দাস সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছিলেন নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার কথা। শ্রুতি জানিয়েছেন 2 রা এপ্রিল হঠাৎই তিনি অসুস্থ বোধ করতে শুরু করলে তাঁর কোভিড টেস্ট করানো হয়। শ্রুতির কোভিড টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। শ্রুতি জানান, 2 রা এপ্রিল ‘দেশের মাটি’-র সেটে কফি খাওয়ার সময় কফির কোনো স্বাদ বা গন্ধ না পাওয়ায় তাঁর সন্দেহ হয়েছিল। তিনি তখনই প্রোডাকশনকে পুরো ঘটনাটি জানান। এরপর মূল সেটের বাইরে কেবলমাত্র ডিওপি ও পরিচালকের উপস্থিতিতে শুটিং শেষ করে বাড়ি ফিরে কোভিড টেস্ট করান শ্রুতি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ফলে বাড়িতেই কোয়ারেন্টিনে ছিলেন শ্রুতি।

চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী সমস্ত বিধিনিষেধ মেনে কোভিড পজিটিভ হওয়ার মাত্র বারো দিনের মধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন শ্রুতি। পরবর্তী করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসতেই ফেসবুকে রিপোর্টের ছবি শেয়ার করে শ্রুতি লিখেছেন, করোনার সফর ছিল মনে রাখার মতো। আপাতত শ্রুতি ফিরেছেন শুটিং ফ্লোরে। এই মুহূর্তে তিনি স্টার জলসার জনপ্রিয় বাংলা সিরিয়াল ‘দেশের মাটি’-তে ‘নোয়া’-র ভূমিকায় অভিনয় করছেন।